বিভাগ : মে-14

ম্পা দ কী য় : শ্রমের মর্যাদা ও শ্রমিকের অধিকার সম্পর্কে ইসলাম

সমস্ত প্রশংসা একমাত্র আল্লাহ তা’আলার জন্য। অসংখ্য দরূদ ও সালাম বর্ষিত হোক সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ট মহামানব মুহাম্মদ সা. এর উপর এবং তার অনুসারীদের উপর । শ্রমিকের অধিকার এবং শ্রমের মর্যাদা এ দুটিকেই ইসলাম বিশেষ গুরুত্ব দিয়েছে। পবিত্র কুরআনের সূরা বালাদ-এর ৪ নম্বর আয়াতে মহান আল্লাহ ইরশাদ করেছেন, ‘নিশ্চয়ই আমি মানুষকে সৃষ্টি করেছি শ্রমনির্ভর করে।’ একজন শ্রমিক

সুদভিত্তিক অর্থব্যবস্থার বিকল্প : মুফতি তাকি উসমানী

পূর্ব প্রকাশিতের পর.. গত সংখ্যায় আলোচিত হয়েছে সুদের অপকারিতা নিয়ে আজকের আলোচ্য বিষয় হলো ইসলামে সুদের বিকল্প কি হতে পারে, তা নিয়ে। সুদী ব্যবস্থার বিকল্প আরও একটি প্রশ্ন আছে, যেটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ, যা আজকাল মানুষের মনে জাগ্রত হচ্ছে। প্রশ্নটি হলো, আমরা একথা স্বীকার করি যে, ‘ইন্টারেস্ট’ হারাম। কিন্তু যদি ‘ইন্টারেস্ট’ কে বিলুপ্ত করে দেওয়া হয়,

বান্দার আমলের ওজন : সংকলন : সৈয়দা সুফিয়া খাতুন

al-jannatbd.com, আল জান্নাত । মাসিক ইসলামি ম্যাগাজিন, al-jannatbd.com, quraner alo, মাসিক জান্নাত, islamer alo, www.al-jannatbd.com, al-jannat, bangla islamic magazine, bd islam, islamic magazine bd, ব্লগে জান্নাত, জান্নাতের পথ, আল জান্নাত,

আল্লাহর রহমতে মাফ করা হবে হযরত আবু সাঈদ খুদরী রা. থেকে বর্ণিত, রাসূলুল্লাহ সা. এরশাদ করেন, কস্মিনকালেও কেউ আল্লাহর রহমত ছাড়া জান্নাতে প্রবেশ করতে পারবে না। সাহাবায়ে কেরাম আরজ করলেন, ইয়া রাসূলাল্লাহ! আপনিও কি আল্লাহর রহমত ছাড়া জান্নাতে প্রবেশ করতে পাররবেন না? জওয়াবে রাসূলুল্লাহ সা. হাত মাথায় রেখে বলেন, আল্লাহ তাআলা স্বীয় রহমত দ্বারা আমাকে

হাদীসের আলোকে অযুর ফযীলত : মাওলানা আলী উসমান

ইসলাম সর্বশ্রেষ্ঠ ও পাক পবিত্র ধর্ম। এর মাধ্যমে আল্লাহ তাআলা যেমন মানুষের আধ্যাত্মিক পবিত্রতা দান করেন, তেমনি বাহ্যিক পবিত্রতাও দান করেন। আধ্যাত্মিক পবিত্রতা যেমন, হিংসা-বিদ্ধেষ, অহংকার, পরনিন্দা, গোনাহ, শিরক ইত্যাদি হতে পবিত্র করে, শুকর, অল্পতুষ্টি, পরোপকার ইত্যাদি গুণে গুনান্বিত করেন। বাহ্যিক পবিত্রতা যেমন কাপর, শরীরকে ছোট বড় হুকমি নাপাক থেকে পবিত্র করে। আল্লাহ তাআলা শরীয়তের

আদর্শ মা আদর্শ সমাজ গড়ার কারিগর : মুহাম্মদ আবু সালেহ

একথা চরম সত্য যে, পৃথিবীর সকল মাখলুকের সৃষ্টিকর্তা এক আল্লাহ। আবার এটাও সত্য যে, সবমাখলুককেই তিনি এক উদ্দেশ্যে সৃষ্টি করেননি এবং রাখেননি সবাইকে মান-মর্যাদার এক স্তরে। আল্লাহ তাঁর সকল সৃষ্টিকে সৃষ্টি করেছেন এক উদ্দেশ্যে, শুধু একটিমাত্র সৃষ্টিকে সৃষ্টি করেছেন অন্য এক উদ্দেশ্যে। একমাত্র মানুষই সেই সৃষ্টজীব যাকে আল্লাহ তাআলা তার যমীনে তার প্রতিনিধিত্ব করার জন্য

প্রতিবেশীর প্রতি আমাদের দায়িত্ব ও কর্তব্য : মাওলানা আব্দুস সাত্তার

আমরা সমাজ বদ্ধ হয়ে বাস করি। মানুষকে নিজের প্রয়োজনের তাগিদেই সমাজবদ্ধ হয়ে বাস করতে হয়। নানা কারনে সমাজবদ্ধভাবে বাস করে থাকি। আমার আশপাশের লোকদেরকে বলা হয় প্রতিবেশি। প্রতিবেশির সংজ্ঞা দিতে গিয়ে মহানবী হযরত মুহাম্মদ সা. বলেছেন,- “আশপাশের ৪০ ঘর পর্যন্ত প্রতিবেশি বলে বিবেচিত হবে।” [আলকাফি : ২/৬৬৯ হা.১, ২, মিশকাতুল আনওয়ার : হা. ২১৪, মাকাসেদে

যৌতুকের ভয়াবহতা : মুফতী পিয়ার মাহমুদ

আজকের সমাজের অতি পরিচিত ও বহুল আলোচিত একটি শব্দের নাম যৌতুক। বিবাহের সকল আলোচনার সঙ্গে সমাজের একটি বড় অংশে আলোচনা হয় যৌতুক নামের এই ‘দেনা-পাওনা’ নিয়ে। এই দেনা- পাওনার আলোচনাটা অনেক সময় হয় একদম শুরুতেই বর-কনে পছন্দের আগে। কখনো কখনো বর-কনে পছন্দের পর। বহু পরিবারে বিয়ের ক্ষেত্রে এটা প্রধান গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। এ নিয়ে হয় বিস্তর

প্রভুর অগণিত নেয়ামত : হাফেজ মুহাম্মদ আবদুল্লাহ

আল্লাহ তাআলা আমাদেরকে অসংখ্য অগণিত নিয়ামতে ডুবিয়ে রেখেছেন যা গণনার উর্ধ্বে। দিবা নিশি নির্জনে সবে যদি চিন্তার অথৈই সাগরে ঝাপিয়েও পড়ি তবুও সামান্যমত নেয়ামত গণনা করে শেষ করা যাবে না। সুবহানাল্লাহ! তাইতো আল্লাহ পাক স্বয়ং ঘোষণা করেছেন- وَإِن تَعُدُّوا نِعْمَتَ اللَّهِ لَا تُحْصُوهَا যদি তোমরা আল্লাহর নেয়ামত গণনা কর শেষ করতে পরবেনা। [সূরা নাহল :

রজব মাসের আমল ও শবে মেরাজের তাৎপর্য : সৈয়দা সুফিয়া খাতুন

আল্লাহ তাআলা বারো মাসের মধ্যে চারটি মাসকে ‘আশহুরে হুরুম’ তথা সম্মানিত ঘোষণা করেছেন। পবিত্র কুরআনে ইরশাদ হয়েছে, ‘নিশ্চয়ই আল্লাহর বিধান ও গণনায় মাস বারোটি আসমানসমূহ ও যমীন সৃৃষ্টির দিন থেকে। সুতরাং তোমরা এই মাসসমূহে নিজেদের প্রতি অত্যাচার করো না।’ [সূরা তাওবা : ৩৪] এই চারটি সম্মানিত মাসের একটি হল রজব। রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম ইরশাদ

ইসলামের দৃষ্টিতে সাংবাদিকতা : মুহাম্মদ আমিনুল হক

সাংবাদিকতা মহৎ পেশা। সংবাদপত্রকে বলা হয় সমাজের দর্পণ। সাংবাদিকরা সমাজের খুটিনাটি সংবাদপত্রের মাধ্যমে মানুষের কাছে তুলে ধরেন। বর্তমান সময়ে সংবাদপত্র বা মিডিয়াকে রাষ্ট্রের চতুর্থ স্তম্ভ হিসেবে গণ্য করা হয়। উইকিপিডিয়া থেকে জানলাম, জোহান কারোলাস (ঔড়যধহ  ঈধৎড়ষঁং) ১৬০৫ সালে ‘জবষধঃরড়হ ধষষবৎ ঋহৃৎহবসসবহ ঁহফ মবফবহপশহিৃৎফরমবহ ঐরংঃড়ৎরবহ’ নামে সর্ব প্রথম পত্রিকা প্রকাশ করেন। জার্মান ভাষায় এটি ফ্রান্সের স্ট্রাসবার্গে

একজন সংগ্রামী যোদ্ধার কথা : অনুলিখিকা- কন্যা নূরে ইয়াসমিন ফাতেমা

মোহাম্মদ নূরুল ইসলাম – বিসমিল্লাহির রহমানির রাহীম, আজ আমি কিছু লিখবো, তা হলো আমার পিতা নূরুল ইসলাম সাহেবের মুখে শুনা কিছু ওয়াজ। তিনি প্রায় সময়ই সময় পেলে হাদীস কুরআন মোতাবেক আমাদের কিছু শুনান এবং উৎসাহ দেন যেন বেশি বেশি আল্লাহর হুকুম মেনে চলি আর রাসূর সা. এর সুন্নাহকে সম্মান করি। আল্লাহ তাআলা দান করাকে সম্মানী

সালাতুত্ তাসবীহ ও তার গুরুত্ব : মো আমীনুল ইসলাম

ফযীলত রাসূল সা. একবার আপন চাচা হযরত আব্বাস রা. কে বলেন, হে আব্বাস! হে আমার চাচা। আমি কি আপনাকে এমন একটি উত্তম আমলের জ্ঞান দান করবো? একটি বখশিশ দিবো? একটি জিনিস বলে দিবো? আপনাকে দশটি জিনিসের মালিক বানাবো? (তাহলে শুনুন) যখন এই আমলটি করবেন তখন আল্লাহ তাআলা আপনার অতীত ও ভবিষ্যতের গোনাহ, নতুন পূরাতন গোনাহ,

বিশিষ্ট দাঈ কালিম সিদ্দিকীর বয়ান : অনুলেখক, মো. আবু হানীফা

কালিম সিদ্দিকি একটি পরিচিত নাম। বিশ্বজুড়ে তার দাওয়াতি সফর। আল্লাহভুলা মানুষকে ডাকেন আল্লাহর পথে। বয়স তার ৬০ থেকে ৬২ বছর। এপর্যন্ত তার হাতে নব মুসলিমের সংখ্যা প্রায় ৫ লাখেরও বেশি। জামিয়াতুল ইবরাহীম মাদরাসায় শুভাগমন হয়েছিল এই প্রখ্যাত দাঈর। বয়ান করেছিলেন আছরের পর। সেই বয়ানটিই পাঠকের হাতে তুলে দিলাম। মুহতারাম উলামায়ে কেরাম, সকল শ্রেণীর ও পেশার

জীবন সায়াহ্নে হযরত ওমর রা. : সায়্যিদ আবুল হাসান আলী নদভী

আমর বিন মাইমুন রা. বলেন, যেদিন সকালে উমর রা. আহত হন, সেদিন সকালে আমি তার সাথে দাঁড়ানো ছিলাম। আমাদের দুজনের মাঝে আব্দুল্লাহ বিন আব্বাস রা. ছিলেন। আর তখন ছিল ফজরের সময়। তিনি যখন নামাযের মুহূর্তে দুই কাতারের মাঝখান দিয়ে আতিক্রম করতেন, তখন তিনি মুসল্লিদের লক্ষ করে বলতেন, তোমরা কাতার সোজা করে দাঁড়াও তখন মুসল্লিগণ ঠিকভাবে

আল-কুরআনের অলৌকিকত্ব মানব দেহের গঠনক্রম : মূল ড. হারুন ইয়াহিয়া

“মাতৃগর্ভে প্রথমে কর্ণ  ও পরে চক্ষু  তৈরি হয়”আমরা সাধারণত উপরোক্ত দু’টি অঙ্গ সম্পর্কে একত্রে বলতে গেলে প্রথমে চক্ষু ও পরে কর্ণ শব্দটি ব্যবহার করে থাকি। কিন্তু মহান স্রষ্টা এ দুটি অঙ্গের সৃষ্টি সম্পর্কে বলতে যেয়ে কুরআনের বিভিন্ন স্থানে বর্ণনা দিয়েছেন। এবং প্রতিক্ষেত্রেই তিনি প্রথমে দৃষ্টি শক্তির কথা উল্লেখ করেছেন। এর ব্যাতিক্রম করেননি একটুও । যেমন

নারী অধিকার ইসলামের দৃষ্টিভঙ্গি : হাফেজ রিদওয়ানুল কাদের উখিয়াভী

পৃথিবীতে ইসলাম ধর্মের আবির্ভাব ঘটে ঐ সময়, যখন মানবতা চরম পর্যায়ে উপনীত হয়েছিলো। অত্যাচার এবং নির্যাতনে জর্জরিত মানবতার করুণ বিলাপ ছাড়া করার কিছুই ছিলোনা। ন্যায়-নীতি ও সমতা যেন সোনার হরিণে পরিণত হয়েছিলো।  ইসলাম এরূপ প্রতিকূল অবস্থায়ও সুবিচার ও ন্যায়ের শ্লোগান তুলে বাস্তব ক্ষেত্রে তার হুবহু প্রতিফলন ঘটাতে সক্ষম হলো। শাসক-শাসিত, মালিক-ভৃত্য এবং উঁচু-নীচুই ভরা অশান্ত

ইতিহাসের টুকরো কাহিনী : মাও. মোহাম্মদ সফিউল্লাহ

পঁচা মাছ খেয়েই ইলম চর্চা জারাহ ও তা’দীল কিতাবের লেখক আব্দুর রহমান বিন আবু হাতেম (২৪০-৩২৭হি.) বলেন, ইলম অন্বেষণের উদ্দেশ্যে আমরা কয়জন সহপাঠী ও সহযাত্রী মিশর গিয়েছিলাম যেখানে আমরা দীর্ঘ ৭ মাস ঘুরে ঘুরে বিভিন্ন ফকীহ ও মুহাদ্দিসের কাছ থেকে হাদীস ও ফিকহের জ্ঞান অর্জন করি। এই দীর্ঘ সময়ের মধ্যে আমরা তরকারী চেখে দেখারও সুযোগ

হযরত আদম আ.-এর সৃষ্টির ইতিহাস : সংকলন, আব্দুল্লাহ মোহাম্মদ জোবায়ের

আব্দুল্লাহ ইবনে উমর রা. বলেন, আদম আ.-এর পূর্বে জিন জাতি দু’হাজার বছর বসবাস করে। তারা রক্তপাতে লিপ্ত হলে আল্লাহ তা’আলা তাদের কাছে এক ফেরেশতা বাহিনী প্রেরণ করেন। তারা তাদেরকে বিভিন্ন দ্বীপে তাড়িয়ে দেন। ইবনে আব্বাস রা. থেকেও এরূপ বর্ণনা পাওয়া যায়। পবিত্র কুরআনে এসেছে, ফেরেস্তারা আল্লাহ পাকের কাছে আরজ করেন- “আমরা সর্বদা আপনার ইবাদত করি।

দেশ-বিদেশের খবর

মাদকাসক্ত সন্তানের হাতে মা খুন কুমিল্লা সদরের ৬ নম্বর জগন্নাথপুর ইউনিয়নের বাজগড্ডা এলাকায় অহিদা বেগম নামে এক নারীকে গলাটিপে হত্যা করেছেন তার মাদকাসক্ত ছেলে আশিক। নিহত অহিদা বাজগড্ডা এলাকার আব্দুস সাত্তারের স্ত্রী বলে জানা যায়। জানা যায়, আশিক মায়ের কাছে ৫ হাজার টাকা চান। টাকা না দেয়ায় আশিক তার মাকে গলাটিপে হত্যা করেন। টের পেয়ে

শয়তানের ডায়েরি

পূর্ব প্রকাশিতের পর…… পির আলী- তোর বংশের ইতিহাস শুনিয়া অবাক হইলাম। ইহার প্রতিটি বাক্যে শরীর শিহরিয়া উঠে। তোর পিছনে যে এত বড় ও ভয়াবহ ইতিহাস রহিয়াছে তাহা কখনও ধারণা করি নাই। এই আশ্চর্য্যজনক ইতিহাস না বলিয়া এতক্ষণ খুটিনাটি বিষয় আলোচনা করিয়া সময় নষ্ট করিয়াছ কেন? শয়তান- হুজুর! আমার সংক্ষিপ্ত নছবনামা শুনিয়া অবাক হইয়াছেন? তবে আমার

কায়রাওয়ানী দুলহান : ফুসত্বাত্বে

পূর্বপ্রকাশিতের পর… আবু হামেদের কথায় কাফুরের চেহারায় আনন্দের দ্যুতি খেলে গেল..।  প্রশ্ন করলেন, তুমি কি নিশ্চিত যে, মিশনে তুমি এ পরিমাণ সফলতা অর্জন করতে পেরেছ? আবু হামেদ বলল, জনাব! আমি শতভাগ নিশ্চিত। আপনি জানেন যে, আমি ও আমার এই ভাতিজা (সালিমের দিকে ইঙ্গিত করে) যুদ্ধসরঞ্জাম মজুদ করছি এবং পার্শ্ববর্তী কবীলাগুলোকে আমাদের কাক্সিক্ষত দিনটির সফলতার লক্ষ্যে


Hit Counter provided by Skylight