বিভাগ : ফেব্রুয়ারি -16

জীবনজিজ্ঞাসা

মুহাম্মাদ সামিউল হক, মীরপুর, ঢাকা প্রশ্ন: কুফর এবং শিরক কাকে বলে? দু’টি একই বিষয় নাকি দু’টির মাঝে কোনো পার্থক্য আছে? পার্থক্য থাকলে কি কি? বিস্তারিত জানাবেন। উত্তর: কুফল হলো, অকাট্য প্রমাণ দ্বারা সাব্যস্ত শরী‘আতের কোনো বিষয়কে অস্বীকার করা। আর শিরক হলো, আল্লাহ তা‘আলার একত্ববাদকে অস্বীকার করা। তার সত্ত্বা ও গুণাবলীতে অংশীদারিত্ব সাব্যস্ত করা। এ হিসেবে

লুকমান হাকিমের প্রজ্ঞা

ইতোপূর্বে উল্লেখ করা হয়েছে যে, আরবদেশে তৎকালে লুকমান হাকিমের হেকমত ও প্রজ্ঞার ব্যাপক চর্চা ছিলো। অধিকাংশ মজলিসে তাঁর প্রজ্ঞাপূর্ণ কথামালা উদ্ধৃত করা হতো। তাবেঈন, সাহাবায়ে কেরাম রা., এমনকি নবী করিম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম থেকেও লুকমান হাকিমের কতিপয় প্রজ্ঞাপূর্ণ উক্তি বর্ণনা করা হয়েছে। তার মধ্য থেকে নিম্নে কয়েকটি উদ্ধৃত করা হলো : ১.    প্রজ্ঞা ও

নামাযই আত্মার সর্বশ্রেষ্ঠ খোরাক

নামায বান্দা ও তার রবের মধ্যে একটি বন্ধন—এই বন্ধন থেকে অন্তর শক্তি লাভ করে এবং আত্মা স্থিরতা ও প্রশান্তি অনুভব করে। নামায আত্মার মেরাজ, মুমিনের আত্মা নামাযের মাধ্যমে উৎকর্ষ ও উন্নতি লাভ করে। এ-বিষয়টিই হযরত আনাস রা. থেকে বর্ণিত একটি হাদিসের সারমর্ম। হযরত আনাস রা. বলেন, রাসুল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম ইরশাদ করেছেন—“তোমাদের কেউ যখন

চেয়ারে বসে নামায আদায়ের মাসআলা-মাসায়েল || মাওলানা মাহমূদুল হাসান

আমাদের দেশের সিংহভাগ মসজিদে অনেকেই চেয়ারে বসে নামায পড়তে দেখা যায়। বিশেষ করে অভিজাত এলাকার মসজিদগুলোতে এর প্রবণতা বেশি। অনেক মুসল্লি বাসা-বাড়ি , দোকান ও অফিস আদালতে চেয়ারে বসে অভ্যস্ত। এ অভ্যাসপ্রসূত কারণে তাদেরকেও চেয়ারে বসে নামায আদায় করতে দেখা যায়। অনেক সময় এ বিষয় টা নিয়ে তর্ক বিতর্ক ও করতে দেখা যায়। তর্ক বিতর্ক

মানব জীবনে সুন্নতের অনুসরণ || মিযানুর রহমান জামীল

সুন্নতে নববীর আদর্শ মানব সভ্যতার উত্তম পথ ও পন্থা। বিপদ-আপদ আর অসহায়ত্বের বিনম্র পন্থাতেই জাতির জন্য এ সুন্নতের রয়েছে সুফল। ইসলামে সুন্নতের গুরুত্ব অপরিসীম। মানব জীবনে রয়েছে এর অবিস্মরণীয় প্রভাব। সুন্নত ছাড়া উম্মতপাড়া অচল, নি®প্রাণ। আর তাই আলাহ তাআলা শেষ জামানাকে একটি সুন্নত জিন্দা করার বিশেষ মুহূর্ত হিসেবে উম্মতে মোহাম্মদীর জন্য নির্বাচন করেছেন। উম্মদের হায়াত

মুবাল্লিগ ও দায়ী’র অপরিহার্য গুণাবলি ॥ হাফেজ মাওলানা আবদুস সাত্তার আইনী

পবিত্র কুরআনে আল্লাহ তাআলা বলেছেন, ‘তুমি মানুষকে তোমার প্রতিপালকের প্রতি আহ্বান কর হিকমত ও সদুপদেশ দ্বারা এবং তাদের সঙ্গে তর্ক করবে উত্তম পন্থায়।’ [সুরা নাহ্ল : আয়াত ১২৫] নবী ও রাসুলগণের প্রধান কার্যাবলি সম্পর্কে আল্লাহ তাআলা বলেছেন, ‘(নবী ও রাসুল) তাঁর আয়াতসমূহ তাদের কাছে তেলাওয়াত করে, তাদেরকে পরিশোধন করে এবং কিতাব ও হিকমত শিা দেয়।’

স্বামীর ওপর স্ত্রীর অধিকার আবদুস সাত্তার আইনী

মহান আল্লাহপাক কুরআন শরিফে ইরশাদ করেন, ‘নারীদের ন্যায়সঙ্গত অধিকার আছে, যেমন আছে তাদের ওপর পুরুষদের; কিন্তু নারীদের ওপর পুরুষদের মর্যাদা আছে। আল্লাহ মহাপরাক্রমশালী, প্রজ্ঞাময়।’ [সূরা আল-বাকারা, আয়াত ২২৮] আল্লাহপাক আরো বলেন, ‘তারা [নারীরা] তোমাদের পরিচ্ছদ এবং তোমরা তাদের পরিচ্ছদ।’ [সূরা আল-বাকারা, আয়াত ১৮৭] তিনি আরো বলেন, ‘তারপর তাদের প্রতিপালক তাদের ডাকে সাড়া দিয়ে বলেন, আমি

ভাষার বৈচিত্র্য ও বিভিন্নতা : আল্লাহ পরিচিতির অন্যতম নিদর্শন হাফেজ মাওলানা আবূ সালেহ

সকল ভাষার স্রষ্টা আল্লাহ তা‘আলা আমরা পৃথিবীতে যত ভাষার কথা শুনি এ সবই আল্লাহর সৃষ্টি এবং সকল ভাষার শিাদাতাও আল্লাহ তা‘আলা। কেননা, সূরা আর-রাহমানে আল্লাহ যে মানুষকে বর্ণনাজ্ঞান শিাদানের অবদানের কথা উল্লেখ করেছেন তাতে ‘বয়ান’ বা বর্ণনার অর্থ ব্যাপক। মৌখিক বর্ণনা, অর্থাৎ মুখের ধ্বনির মাধ্যমে বর্ণনা, লিখিত বর্ণনা, চিঠিপত্রের মাধ্যমে বর্ণনা তথা একের মনের ভাব

বাংলিশ ব্যবহার! ভাষার সমৃদ্ধিকরণ! নাকি মানক্ষুণের কারণ? // উবায়দুল হক খান

প্রতিটি মানুষের মনের ভাব প্রকাশের শ্রেষ্ঠ উপায় হচ্ছে তার মাতৃভাষা। মহান আল্লাহ তাআলা মানুষকে চিন্তা-ভাবনা, নতুন জিনিস উদ্ভাবন ও আবিস্কার করার মতা দান করেছেন। সেই সাথে পরস্পরে মনের ভাব প্রকাশের জন্য শিা দিয়েছেন মুখের ভাষা। তাই মানুষের মনের ভাব প্রকাশের জন্য মাতৃভাষাই হচ্ছে সর্বোত্তম মাধ্যম। মাতৃভাষায় যত সহজে মনের ভাব প্রকাশ করা যায়, অন্য যে

পাকিস্তান : রাষ্ট্রভাষা ও সাহিত্য // ফররুখ আহমদ

পাকিস্তানে রাষ্ট্রভাষা কি হবে এ নিয়ে যথেষ্ট বদানুবাদ চলছে আর সবচাইতে আশার কথা এই যে, আলোপচনা হয়েছে গনতান্ত্রিক পদ্ধতিতে , জনগন ও ছাত্র সমাজ অকুন্ঠভাবে নিজের মতামত ব্যাক্ত করেছেন। সুতরাং এটা দৃঢ়ভাবেই আশা করা যায় যে, পাকিস্তানের জনগনের বৃহৎ অংশের মতানুযায়ী পাকিস্তানের রাষ্ট্রভাষা নির্বাচিত হবে। যদি তাই হয় তাহলে একথা নিশ্চিতভাবেই বলা যায় যে, বাংলা

অপসাংস্কৃতিক আগ্রাসন : প্রসঙ্গ এক মিনিটের নীরবতা // মুফতী পিয়ার মাহমুদ

কবরস্থ মৃত ব্যক্তির জন্য সবচেয়ে উপকারী ও প্রিয় বস্তু হলো দুনিয়া বাসীর প হতে তার জন্য প্রেরিত দুআ, ইস্তিগফার  ও বিভিন্ন ইবাদতের সুওয়াব। তারা সর্বদা এই অপোয় থাকে, দুনিয়াতে রেখে যাওয়া তার প্রিয়ভাজনরা তার জন্য কখন ইসালে সওয়াব করবে। ইসালে সওয়াব করা হলে এটি তার নিকট দুনিয়া ও দুনিয়ার সমুদয় বস্তু হতেও প্রিয় হয়। সাহাবী

দেনা-পাওনা : নাঈমা তামান্না

সন্তান আল্লাহ তাআলার অগণিত নেয়ামতের মধ্যে অন্যতম শ্রেষ্ঠ নেয়ামত ও তাঁর বিশেষ অনুগ্রহ। আল্লামা আলুসী (রহ.) বলেছেন, ‘ধন-সম্পদ হচ্ছে প্রাণ বাঁচানোর উপায় আর সন্তান-সন্ততি হচ্ছে বংশ তথা মানব প্রজাতি রার মাধ্যম’। কবির ভাষায় : بيننا انما أولادنا أكبادنا تمشي علي الارض, لو هبت الريح علي بعضهم لأمتنعت عيني عن الغمض অর্থাৎ, আমাদের সন্তানেরা আমাদের মাঝেই

ডিম দেহের পুষ্টিগুণ বাড়াতে ও দীর্ঘায়ুতে সাহায্য করে

নব্য গবেষণার নতুন সমীক্ষা: ৫ টি ক্ষেত্রে অতি কার্যকর ব্যবহার * রক্তে কোলেষ্টেরল জমতে বাধা দেয় * ওজন নিয়ন্ত্রণে রাখে * মস্তিষ্কের কার্যকারিতা ঠিক রাখে * চোখ ও হাড় ভাল রাখে * প্রোটিনের ঘাটতি পূরণে সাহায্য করে। পরিচিতি বিভিন্ন প্রজাতির স্ত্রী প্রাণী যেমন- পাখি, সরীসৃপ ও উভচর প্রাণী ও মাছ থেকে আমরা ডিম পেয়ে থাকি।

কা’বার হজের চেয়েও বড় : মুহাম্মদ নূরুন নবী (রৌমারি)

একবার বিখ্যাত হাদিস-বিশারদ আবদুল্লাহ বিন মুবারক রহ. হজের উদ্দেশে যাত্রা করেন। পথিমধ্যে তিনি দেখতে পান একটি বালিকা আবর্জনার স্তূপ থেকে কী যেনো তুলে নিচ্ছে। কাছে গিয়ে দেখেন বেচারী আবর্জনার স্তূপ থেকে একটি মরা পাখি তুলে নিচ্ছে এবং দ্রুত কোনোকিছু দিয়ে সেটাকে আড়াল করার চেষ্টা করছে। ইবনে মুবারক রহ. সেখানে থেমে গেলেন এবং বিচলিত হয়ে দরিদ্র

ছড়া-কবিতা

বলতে পারো? মাবরুর গাছে গাছে ফুলের তারা দূর আকাশে চাঁদ সেতারা কে বানালো বলতে পারো? উড়ে বেড়ায় মেঘের পাহাড় প্রাণি-ফসল-শস্যের আহার কে ছড়ালো বলতে পারো? ভোরের আকাশ রঙিন চাদর সূয্যিটাকে জড়িয়ে আদর কে উঠালো বলতে পারো? কাঁঠাল কলা পাকা আমে বিভিন্ন স্বাদ বরই জামে কে ছড়ালো বলতে পারো? মানুষকে কে শ্রেষ্ঠ করে ভালো-মন্দের বিশ্বঘরে কে

বিশটি মূল্যবান উপদেশ

১। কিয়ামত সেই সময়ে অনুষ্ঠিত হবে যখন পৃথিবীতে আল্লাহর নাম উচ্চারণকারী কেউ থাকবে না। ২। বান্দা যখন মিথ্যা বলে তখন তার মুখের দুর্গন্ধে ফেরেশতা এক মাইল দূরে সরে যায়। ৩। আল্লাহর স্মরণ ও সৎকর্মের জন্য নিয়ামত অপরিহার্য। ৪। প্রয়োজনের একটি সীমারেখা আছে; কিন্তু লোভের কোনো সীমা-পরিসীমা নেই। ৫। সফলতা অর্জনের পূর্বশর্ত হলো সফলতা অর্জনের অনুভূতি

যারা জান্নাতী কাফেলার সদস্য হতে চায়

১৬৩৭. মো. শাকিল আহমদ; পিতা : মুহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম; গ্রাম: চটটিটুয়া; থানা: লালমোহন; জেলা: ভোলা ১৬৩৮. মো. জুনাইদ বিন হাফিজ উল্লাহ; পিতা: হাফিজ উল্লাহ; গ্রাম: দেওরগাছ, ডাক: চুনারুঘাট, জেলা: হবিগঞ্জ। শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান : ইসলামিক রিসার্চ সেন্টার, বসুন্ধরা, ঢাকা। ১৬৩৯. মো. সাইফুল ইসলাম; গ্রাম: + পো: অলিপুর বাজার; থানা: হাজীগঞ্জ, জেলা: চাঁদপুর। শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান : জামেয়া ইসলামিয়া মুহাম্মদিয়া,

আল-কুরআনুল কারীম : [বিষয় : তাওহিদ]

১। আর তোমাদের ইলাহ এক ইলাহ, তিনি ব্যতীত অন্যকোনো ইলাহ নেই। তিনি দয়াময়, অতি দয়ালু। [সূরা বাকারা : আয়াত ১৬৩] ২। আল্লাহ, তিনি ব্যতীত কোনো ইলাহ নেই। তিনি চিরঞ্জীব, সর্বসত্তার ধারক। তাঁকে তন্দ্রা অথবা নিদ্রা স্পর্শ করে না। আকাশ ও পৃথিবীতে যা-কিছু আছে সমস্ত তাঁরই। কে সে, যে তাঁর অনুমতি ব্যতীত তাঁর নিকট সুপারিশ করবে?

জান্নাতবাসীদের মর্যাদা : সৈয়দা সুফিয়া খাতুন

হাফেজে কুরআনের মর্যাদা হযরত আবু সাঈস খুদরী (রাঃ) বলেন নবী করিম (সঃ) বলেন- হাফেজে কুরআন যখন জান্নাতে প্রবেশ করবে তখন তাকে বলা হবে যে, পড়ে যাও এবং উপরে উঠতে থাক। তখন সে পড়তে থাকবে এবং প্রতি আয়াত পড়ে একধাপ উপরে ওঠতে থাকবে। অতঃপর পবিত্র কুরআনের শেষ পর্যন্ত পড়ে সর্বোচ্চ স্থানে উঠে যাবে। মুজাহিদগণের মর্যাদা হযরত

ইসলাম প্রচারে বাংলা ভাষা সাইয়েদ আবুল হাসান আলী নদভী (রহ.)

[সমকালীন বিশ্বের অন্যতম প্রধান ইসলামী চিন্তাবিদ আল্লামা সাইয়েদ আবুল হাসান আলী নদভী (জন্ম : ৫ ই ডিসেম্বর ১৯১৪ ঈসায়ী  এবং মৃত্যু : ৩১ শে ডিসেম্বর ২০০০ ঈসায়ী) ভারতের উত্তর প্রদেশের রায়বেরেলীতে জন্মগ্রহণ করেন। উর্দুভাষী হওয়া সত্তেও তার রচনাবলীর প্রায় সবই আরবী ভাষায়। লাখনৌ নদওয়াতুল উলামার মহাপরিচালক হিসেবে দায়িত্বপালনের পাশাপাশি ইউরোপ, আমেরিকা, ও মধ্যপ্রাচ্যের অসংখ্য শিা,


Hit Counter provided by Skylight