বিভাগ : জুলাই-14

সম্পাদকীয় : ভ্রাতৃত্ব বন্ধনই সিয়ামের অন্যতম শিক্ষা

সমস্ত প্রশংসা একমাত্র আল্লাহ তা’আলার জন্য। অসংখ্য দরূদ ও সালাম বর্ষিত হোক সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ট মহামানব মুহাম্মদ সা. এর উপর এবং তার অনুসারীদের ওপর । মাহে রমযানের বহু কল্যাণ, প্রভাব, শিক্ষা ও অবদানের অন্যতম হচ্ছে ভ্রাতৃত্বের বন্ধন। হিংসা, জুলুম ও ক্রোধ পরিহারের এ শিক্ষা গ্রহণ সব রোযাদারের জন্যই সওয়াব ও কল্যাণকর। মাহে রমযানের প্রধান বৈশিষ্ট্যগুলোর প্রতি

বিশ্বাসীদের প্রতি আল কুরআনের দাবি : মাওলানা সিরাজুল মাওলা

আল কুরআন একজন মুসলমানের কাছে পরম সম্মানীয় একটি কিতাব বা গ্রন্থ। আমাদের প্রত্যেকের ঘরে ঘরে আল কুরআনের অন্তত একটি কপি রয়েছে এবং বছরের অন্য মাসে না পারলেও রমযান মাসে অন্তত একবার  তেলাওয়াতের চেষ্টা করি। কিন্তু এ আল কুরআন আমাদের কাছে কেন এসেছে বা এতে কী রয়েছে বা এর মর্মার্থ কী অথবা এর প্রতি আমাদের আচরণ

অর্থ না বুঝে কুরআন পড়া কি অনর্থক? : শাহ জালাল মুহাম্মদ

কুরআনুল কারীম আল্লাহ তাআলার সর্বশ্রেষ্ঠ কালাম তথা সর্বোত্তম কথামালা ও বাণী চিরন্তন। যারা কুরআন পাঠ করে তারা স্বয়ং মহান আল্লাহর সাথে কথোপকথন করে। রাসূল সা. ইরশাদ করেন- ‘তোমাদের কেউ তার প্রতিপালকের সাথে কথা বলতে চাইলে সে যেন কুরআন পড়ে।’ [আল বুরহান ফী তাজবীদীল কুরআন : ৩] অত্যন্ত পরিতাপের বিষয় হলো আমরা নিজেদেরকে আল্লাহপ্রেমিক দাবী করলেও

দাওয়াতে দীনের তাৎপর্য : মোশাররফ হোসেন পাটওয়ারী

আল কুরআন ও সুন্নাহর আলোকে কাউকে আল্লাহর দীনের প্রতি আহ্বান জানানোকে দাওয়াত বলা হয়। এরই আরেক নাম তাবলীগ। দাওয়াত বা তাবলীগ কেবল মুসলমানদের জন্য একটি ধর্মীয় দায়িত্বই নয়, বরং ইসলামের প্রথম ও প্রধান মৌলিক কর্মসূচির অন্যতম। একবিংশ শতাব্দীর সবচেয়ে ব্যাপক ও গতিশীল একটি ইসলামি আন্দোলনের নাম তাবলীগ, যা ইসলামি চিন্তা-চেতনায় সমগ্র বিশ্বে সমাদৃত একটি নীরব

জীবন জিজ্ঞাসা

মুহাম্মাদ সারওয়ার হুসাইন, কিশোরগঞ্জ, নীলফামারী। প্রশ্ন: সাহরি খাওয়ার উত্তম সময় কোন্টি? উত্তর: এমন সময় সাহরি খাওয়া শুরু করা উত্তম, যাতে স্বাভাবিকভাবে ওয়াক্তের মধ্যেই সাহরি খেয়ে শেষ করা যায় এবং খানা শেষে উযু ইস্তিঞ্জা করে ফজরের নামাযের জামা‘আত ধরা যায়।- ফাতাওয়া শামী: ২/৪১৯, ফাতাওয়া হিন্দিয়া: ১/২০০, মাজমাউল আনহুর: ১/২৪২, আল-বাহরুর রায়িক: ২/২৯২। মুহাম্মাদ মানসূর আহমাদ, সিংগাইর,

যাকাতের উদ্দেশ্য এবং দাতা ও গ্রহীতার জীবনে তার প্রভাব : মুফতি তাকি ওসমানী

যাকাত ইসলামের পঞ্চ ভিত্তির অন্যতম একটি ভিত্তি। যাকাত ওয়াজিব করার দ্বারা ইসলামের লক্ষ্য শুধু ধন-সম্পদ সংগ্রহ করা এবং রাষ্ট্রীয় ভাণ্ডারকে সমৃদ্ধ করাই নয়। অভাবী ও দুঃখী মানুষের শুধু অভাব ও দুঃখ দুর্দশা দূর করা উদ্দেশ্য নয়; বরং তার প্রথম লক্ষ্য দাতার জীবনে বিস্তর কার্যকরি প্রভাব ফেলা, তাকে বস্তুগত চিন্তার ঊর্ধ্বে উঠানো, তার ভিতরকার মানসিকতায় ব্যাপক

হাশরের ময়দানে শাফায়াত ও আমল অনুযায়ী নুরের বণ্টন সংকলন : সৈয়দা সুফিয়া খাতুন

al-jannatbd.com, আল জান্নাত । মাসিক ইসলামি ম্যাগাজিন, al-jannatbd.com, quraner alo, মাসিক জান্নাত, islamer alo, www.al-jannatbd.com, al-jannat, bangla islamic magazine, bd islam, islamic magazine bd, ব্লগে জান্নাত, জান্নাতের পথ, আল জান্নাত,

তাজাল্লি হযরত আবু সাঈদ খুদরি রা. থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, আমরা রাসূলুল্লাহ সা.-এর দরবারে আরজ করলাম, ইয়া রাসূলাল্লাহ, আমরা কি কেয়ামতের দিন আল্লাহ পাককে দেখতে পাব? রাসূলুল্লাহ সা. এরশাদ করেন, হ্যাঁ (অবশ্যই দেখতে পাবে)। আচ্ছা, তোমাদের কি দুপুর বেলায় সূর্য দেখতে কোন কষ্ট হয়? যখন কোন মেঘ থাকে না। আকাশ একেবারে পরিস্কার থাকে। চৌদ্দ তারিখের

কুরআনের বর্ণনা অনুসারে খেজুর এবং এর উপকারিতা আজমেরী মারিয়ম মেরী মহান আল্লাহ আমাদের কল্যাণের জন্য তার সমগ্র সৃষ্টি জগতকে নিয়োজিত করেছেন। মানুষের উপকারের জন্য তিনি দিয়েছেন সবুজ বৃক্ষ, নানা বর্ণের ফুল ও ফল। আল্লাহর দেয়া অসংখ্য নিয়ামতের মধ্যে খেজুর অতি পরিচিত এবং সাধারণ একটি ফল। কিন্তু সাধারণ এই ফলের বর্ণনাই কুরআনে এসেছে বিশেষভাবে। এমনকি একে

মিথ্যাচার ও পরনিন্দা সিয়ামের ফলাফল যেখানে শূন্য : কাজী আবুল কালাম সিদ্দীক

অশোধিত তেলকে যেমন পরিশোধন করেই জ্বালাতে হয়, ব্যবহার করতে হয়, কাজে লাগাতে হয়, তেমনি মানুষের মন ও আত্মাকেও যথার্থভাবে কাজে লাগানো বা ব্যবহার করার জন্যে বছরে একবার তাকে পরিশোধন করে নিতে হয়। নইলে অশোধিত তেলের মতো ময়লাযুক্ত আত্মা কিংবা মনে আল্লাহর নূর জ্বলবে না। পবিত্র রমযান মাস হলো অন্তরাত্মাকে পরিশোধন করার শ্রেষ্ঠ সময়। ব্যক্তিগত বিচিত্র

সাহরি খাওয়ার ফযীলত ও কতিপয় জরুরি মাসআলা : মাওলানা আলী উসমান

আল্লাহ তা’আলার বিধি-বিধান বড় আশ্চর্যময়। তাঁর কাছে সবকিছুর ভাণ্ডার রয়েছে। তিনি  প্রত্যেকটি বস্তুর ওপর ক্ষমতাবান। তিনি নিজের সম্পর্কে ঘোষণা করেছেন-“আমি রিযিক চাইনা; রিযিক দান করি।” [সূরা তাহা : ১৩২] প্রসিদ্ধ আছে, আল্লাহ তাআলার রহমত, উসিলা তালাশ করে। এখন সাহরি খাওয়ার কথাই ধরুন। সাহরি বান্দার স্বীয় চাহিদা এবং উদ্দেশ্যের জন্যই হয়। যেহেতু রোযা একমাত্র আল্লাহ তাআলার

বিনোদন ও খেলাধুলা : সীমারেখা ও চৌহদ্দি মুফতী পিয়ার মাহমুদ

ইসলাম ফিতরাতের ধর্ম। তাই মানুষের ফিতরাত তথা স্বভাবজাত চাহিদাকে ইসলাম স্বীকার করেছে অকপটে। মূল্যায়ন করেছে যথাযথভাবে। তবে সেই স্বভাবজাত চাহিদার পাগলা ঘোড়াকে লাগামহীন ছেড়ে দেয়নি। এর লাগাম টেনে ধরে দিয়েছে সীমারেখা। নির্দিষ্ট করে দিয়েছে তার চৌহদ্দি। মানুষের স্বভাবজাত চাহিদাগুলোর অন্যতম হলো খেলাধুলা ও বিনোদন। এই খেলাধুলা ও বিনোদনকে ইসলাম নিষেধ করেনা; বরং ক্ষেত্রবিশেষ উৎসাহ দিয়েছে

হযরত আদম আ.-এর সৃষ্টির ইতিহাস : সংকলন : আব্দুল্লাহ মোহাম্মদ জোবায়ের

পূর্ব প্রকাশিতের পর.. আল্লাহ তা’আলা বলেন- ‘তারপর তাদের লজ্জাস্থান, যা গোপন রাখা হয়েছিল তা তাদের কাছে প্রকাশ করার জন্য শয়তান তাদেরকে কুমন্ত্রণা দিল এবং বলল, পাছে তোমরা উভয়ে ফেরেশতা হয়ে যাও কিংবা তোমরা স্থায়ী হও এ জন্যই তোমাদের প্রতিপালক এ বৃক্ষ সম্বন্ধে- তোমাদেরকে নিষেধ করেছেন। সে তাদের উভয়ের কাছে শপথ করে বলল, আমি তোমাদের হিতাকাক্সক্ষীদের

ইতিহাসের টুকরো কাহিনী : মাও. মোহাম্মদ সফিউল্লাহ

দেয়ালের উপদেশ অনেকদিন আগের কথা। বনী ইসরাঈলের এক লোক ছিল। তার দুজন পুত্র ছিল। লোকটি যখন মারা গেল পুত্রদ্বয় তখন পিতার সমুদয় মিরাস বণ্টন করে নিল। কিন্তু একটা দেয়াল বণ্টন করতে গিয়ে তাদের মাঝে ঝগড়া বেঁধে গেল। ঝগড়া যখন তুঙ্গে উঠল, তখন তারা সেই দেয়ালের ভেতর থেকে একটা গায়েবী আওয়াজের দিকে কান পেতে ধরল। দেয়ালের

শয়তানের ডায়েরি : মোছাঃ উম্মে হাবিবা

পূর্ব প্রকাশিতের পর… পির আলী- খোরাছানী দরবেশ নাকি একজন আলেম। তাহা সত্তেও সে এত অবুঝ হইল কি করিয়া? শয়তান- হুজুর! আলেমদের মধ্যে এরকম লোক আজও ভুরি ভুরি আছেন। কয়টি শুনিবেন? অনেক আলেম আছেন যাহারা এখন বিশ্বাস করেন যে, পৃথিবী সূর্য্য অপেক্ষা অনেক বড় এবং উহা সর্বদা স্থির থাকে ও সূর্য্য উহার চতুঃপার্শ্বে প্রদক্ষিণ করিতেছে। অনেকে

ধারাবাহিক উপন্যাস ; কায়রাওয়ানী দুলহান

পূর্ব প্রকাশিতের পর. .. মিসর সেনাবাহিনীর মাঝে অন্তর্দ্বন্দ্ব ও ঝগড়া-বিবাদ লিময়ার মধ্যে মুঈয লিদীল্লাহর বাহিনীর সফলতা ও বিজয় সম্পর্কে আত্মবিশ্বাস বাড়িয়ে তুলল। নিজ চোখেই সে দেখল এবং নিজ কানেই শুনতে পেল, দেশের অভ্যন্তরীণ কোন্দল, রাজনৈতিক চরম দ্বন্দ্ব, সেনাবাহিনীর পারস্পরিক হিংসা-বিদ্বেষ এতই ভয়াবহ রূপ ধারণ করেছে যে, ভিনদেশী কোন শত্র“ আক্রমণ ছাড়াই ক্ষমতার মসনদ উল্টে যেতে

কবিতাগুচ্ছ : রমযানের বার্তা , ইলম নামক ধন, বৃদ্ধাশ্রম, দীনের তরে,

[রমযানের বার্তা] সৈয়দা সুফিয়া খাতুন রমযানেরই বার্তা নিয়ে এলো সাবান মাস, ঈদের খুশির বার্তা নিয়ে এলো রমযান মাস যাকাতের হুকুম নিয়ে এলো রমযান মাস। গরিব দুখির অভাব পূরণ করতে এলো রমযান মাস। রোযার শেষে ঈদ আসে এই ঈদ হলো গরিব দুঃখির বছরে দু’বার আসে। আর যাদের অনেক টাকা তাদের ঈদ প্রতি দিন আসে। রোযাদারের পুরস্কার

বন্ধুদের জীবন , মোসাদ্দাস-ই-হালী , “মা” কথাটি ,

[বন্ধুদের জীবন] মো. রায়হান আহমদ শিক্ষার স্থলে করবে না কো বন্ধুদেরই মেলা। লেখা পড়ায় মন বসবেনা করবে অবহেলা। ছেড়ে দিবে মুল্য সম্পদ টেরও পাবেনা। অবশেষে দুঃখ পাবে পাবে যন্ত্রণা। তাইতো বলি বন্ধু ছাড় কলম ধর পেয়োনা কো অক্কা জ্ঞানকে উচুঁ করতে সবাই ইলম কর শিক্ষা। [মোসাদ্দাস-ই-হালী] সংগ্রহে : সৈয়দা সুফিয়া খাতুন কতই সফর ক’রল তারা,

সৎ পথের পথিক

দুই বন্ধু, আছাদ এবং রাহাদ। আছাদ তার পরিবার নিয়ে গ্রামে বসবাস করে। রোজ-রোজ কঠোর পরিশ্রম করে সংসার চালায়। ধর্মীয় কাজে সে অত্যন্ত দায়িত্বশীল। মিথ্যা কথা, ধোঁকাবাজি মোটকথা সকল পাপ কাজ তার চরম শত্র“। রাহাদ শহরে থাকে। চুরি, বাটপারী, ধোঁকাবাজী মনে হয় জীবন সাথী বানিয়ে নিয়েছে। মাঝে মধ্যে বন্ধুর বাড়ি যায় এবং আসার সময় সাথে নিয়ে

কুরআন প্রেমিকের অমর কাহিনী

দাওরায়ে হাদীসের বছরে শইখুল হাদীস হযরত মাওলানা নূরুদ্দীন গওহরপুরী সাহেব বাংলার একজন সুপ্রসিদ্ধ বুযুর্গ। তিনি তার ছাত্রজীবনে দাওরায়ে হাদীস পড়ার সময় পবিত্র কুরআনুল কারীম হিফয করা আরম্ভ করেন। ক্লাসের পড়া, মুতায়ালা ও তাকরার ইত্যাদি করেও সময়ের ফাঁকে ফাঁকে অল্প অল্প করে হিফয করতে থাকেন। এভাবে ওই বছরের রমযান পর্যন্ত ১৫ পাড়া মুখস্ত হয়ে যায়। রমযানের

নারী প্রগতির ছদ্মবেশে দুর্গতি

নারী! তুমি কত প্রতারণার শিকার! তুমি ছাড়া জমে না হাট, ঘাট, মাঠ। তোমার কত হিতৈষী ও দরদী বন্ধু, তোমাকে উন্নতির মুকুট পরাতে তারা সদা মহাব্যস্ত। ওরা তোমার ঘরের কোণে আবদ্ধ না রেখে মুক্ত গগনে উড়ার সুযোগ করে দিতে পাগল প্রায়। তারা তোমায় স্বাধীনতার কথা বলে, উন্নতির কথা বলে আধুনিকতার ছোঁয়া দিতে সর্বদা ব্যাকুল। আর ভোগবাদীরা

আট প্রকার ব্যক্তি অসম্মানিত

১. ওই ব্যক্তি যে, খাওয়ার দস্তরখানে এসেছে, অথচ তাকে দাওয়াত দেয়া হয়নি। অর্থাৎ বিনা দাওয়াতি। ২. ওই ব্যক্তি যে, গৃহস্বামীর ওপর তারই ঘরের মধ্যে কর্তৃত্ব খাটায়। ৩. ওই ব্যক্তি যে, প্রবেশ করে দুই ব্যক্তির কথার মাঝে, অথচ তাকে প্রবেশের অনুমতি দেওয়া হয়নি। ৪. ওই ব্যক্তি যে, বাদশাহকে হেয় প্রতিপন্ন করে। ৫. ওই ব্যক্তি যে, এমন


Hit Counter provided by Skylight