বিভাগ : জুলাই-২০১৭

মানবাত্মার বিজয় উৎসব ঈদ

আরবীতে ঈদ শব্দের আভিধানিক অর্থ-‘যা বার বার ফিরে আসে’। সময়ের যে মুহূর্তটা এখন আমাদের কাছ থেকে বিদায় নিচ্ছে তার দেখা আর হবে না। জীবনের শৈশব, কৈশোর, যৌবন বা বার্ধক্যের যে অধ্যায়টিই অতিক্রান্ত হচ্ছে তার পুনরাগমন কোনকালেই হবে না। এভাবে বস্তুজগতের প্রতিটি জিনিসই একবার গেলে আর ফিরে আসে না। এ েেত্র ঈদের নিয়ম ব্যতিক্রম। প্রতি বছর

ঈদুল ফিতর উদযাপন : তাৎপর্য ও শিক্ষা / মাওলানা আহমদ মায়মূন

দুনিয়ার সকল সম্প্রদায়ের মধ্যে প্রাচীনকাল থেকে উৎসব দিবস পালনের রেওয়াজ চলে আসছে। লোকেরা উৎসবের দিন সাজগোজ করে বের হয় এবং আনন্দ-ফুর্তি করে। জীবনের কান্তি-অবসাদ দূর করে মন-মেজাজকে প্রফুল্ল করে তোলার জন্য আনন্দ উৎসবের আয়োজন করা মানুষের জীবনের অপরিহার্য অনুষঙ্গ। ইরানের অগ্নিপূজকেরা বছরে দুটি উৎসব পালন করত। একটি নওরোজ (২১ মার্চ থেকে ২৫ মার্চ এর মধ্যবর্তী

সুখি দাম্পত্য জীবন গড়তে রাসূল সা. এর আদর্শ / ড. মুফতী আবদুল মুকীত আযহারী

বিবাহে সচ্ছলতা বিবাহ করা ও করানো মুসলমানের জন্য একটি কর্তব্য। আল্লাহ তাআলা বলেন, তোমাদের মধ্যে যারা অবিবাহিত (পুরুষ হোক বা নারী) তাদেরকে বিবাহ করিয়ে দাও এবং তোমাদের মধ্যে দাসদাসীদের মধ্যে যারা সৎকর্মপরায়ণ, তাদেরও (বিবাহ করিয়ে দাও)। যদি তারা অভাবী হয় আল্লাহ তাআলা নিজ অনুগ্রহে তাদেরকে ধনী বানিয়ে দেবেন।  অন্য এক হাদীসে আল্লাহর রাসূল বলেন, যে

আল-কুরআনে সাহাবীদের যত জিজ্ঞাসা : হালাল বস্তুনিচয়-সংক্রান্ত জিজ্ঞাসা / মাওলানা মুজিবুর রহমান

[জুন সংখ্যার পর] পালক পুত্র বধু নিজ পুত্রবধূ হারাম। এ ব্যাপারে কারো কোন দ্বিমত নাই। তদ্রƒপ পালকপুত্রবধূ হালাল এ ব্যাপারে কোন দ্বিমত নাই। কারণ, আল্লাহ তাআলা পালকপুত্রকে নিজ পুত্রের মতো মর্যাদা প্রদান করেননি। এরশাদ হচ্ছে, আল্লাহ তোমাদের মুখে-ডাকা পুত্রকে ঔরসজাত পুত্র বানিয়ে দেননি। [সূরা আহযাব : আয়াত ৪] বিভিন্ন সহীহ হাদীস দ্বারা প্রমাণিত আছে যে,

আপ কী আমানত আপ কী সিওয়া মেঁ / মাওলানা কলিম সিদ্দিকি : এই নিন আপনার আমানত / অনুবাদ : আবদুস সাত্তার আইনী

কিছু কথা একটি ছোটো শিশু খালি পায়ে হেঁটে আসছে। সে আগুনের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে। তার কচি দুটি পা আগুনে পড়তে যাচ্ছে। আপনি সব দেখছেন। এখন আপনি কী করবেন? আপনি তৎণাৎ ছুটে গিয়ে শিশুটিকে কোলে তুলে নেবেন এবং তাকে আগুন থেকে বাঁচাতে পেরে বিপুল আনন্দ অনুভব করবেন। তেমনি কোনো মানুষ যদি আগুনে ঝলসে যায় বা আগুনে

বিয়েতে অবহেলিত কিছু আমল / মুফতী পিয়ার মাহমুদ

বিয়ের গুরুত্ব ও প্রয়োজনীয়তা অন্ন-বস্ত্র-বাসস্থান ও চিকিৎসা যেভাবে মানব জীবনের অপরিহার্য প্রয়োজন, শিা-দীার প্রয়োজনীয়তা যেভাবে যুক্তিতর্কের ঊর্ধ্বে, একজন যৌবনদীপ্ত মানুষের সুস্থ জীবন যাপনের জন্য বিয়ের অপরিহার্যতা তেমনই। তাই ইসলামে এর গুরুত্ব অপরিসীম। ফযীলত ও মর্যাদা তুলনাহীন। কুরআন মাজীদে ইরশাদ হয়েছে, “তোমাদের মধ্যে যে পুরুষের স্ত্রী নেই আর যে নারীর স্বামী নেই তাদের এবং তোমাদের দাস-দাসীর

সর্বশ্রেষ্ঠ কিতাব কুরআন মাজীদ / এইচ. এম. মুশফিকুর রহমান

যাবতীয় কল্যাণ, সর্বপ্রকার জ্ঞান-গরিমা, প্রজ্ঞা ও রহস্যের আধার হল আলকুরআন। একে অনুসরণ করেই দুনিয়া ও আখিরাতে পাওয়া যায় সুখের সন্ধান, মেলে সঠিক পথের দিশা। আলকুরআন মহান আল্লাহর বাণীর অপূর্ব সমাহার বিস্ময়কর এক গ্রন্থের নাম। আলকুরআন আল্লাহর প থেকে অবতীর্ণ সংরতি এক সংবিধান। আল্লাহ তাআলা জিবরাঈল আলাইহিস সালামের মাধ্যমে সুদীর্ঘ ২৩ বছরে মানব জাতির হিদায়াত হিসেবে

সোনালি ফায়সালা / সৈয়দা সুফিয়া খাতুন

ইনসাফ প্রিয় বাদশাহ বাদশাহ মালিক শাহ সালজুকী রাজধানী নিশাপুরে অবস্থান করছিলেন। তিনি রাজত্বের সর্বস্থান পরিদর্শন করার পরকল্পনা গ্রহণ করলেন। পবিত্র রমজান মাস ছিল এবং তার শেষ দশ দিন ছিল। তিনি সিদ্ধান্ত নিলেন রমজান শেষ হওয়া মাত্রই বের হবেন। রমজান মাসের ২৯ তারিখ। তিনি তার মন্ত্রীবর্গ ও সাথীদেরকে নিয়ে চাঁদ দেখতে লাগলেন। কিছু আমলা হৈ চৈ

ঈদের আনন্দ নিভে গেল আবদুল মালেক মুজাহিদ

কতিপয় লোক বড়ই দুর্ভাগা হয়ে থাকে। তারা পিতামাতার অধিকার সমূহের প্রতি আদৌ পরোয়া করে না। স্ত্রী প্রেমে তারা এতই উন্মত্ত হয়ে পড়ে যে, মাতাপিতাকে সম্পূর্ণরূপে ভুলে বসে। মাতাপিতার আকাঙ্খার প্রতি মোটেই সম্মান প্রদর্শন করে না। এটা এরূপই এক হতভাগ্য ব্যক্তির কাহিনী। এর বর্ণনাকারী হচ্ছেন শায়খ আলী বিন আবদুল মালেক আলকারনী। তিনি সৌদি আরবের একজন সুপরিচিত

মুহাম্মদ আলি আজমি : মন্দির থেকে মসজিদে

মুহাম্মদ আলি আজমি, একটি নাম, একটি বিপ্লব। অশ্রুবিন্দু আর অগ্নিশিখায় মোড়া কিংবদন্তি। শৈশবেই মগ্ন হয়েছিলেন সত্য ও বিশ্বাসের সন্ধানে, পেয়েছেন কৈশরেই, সতের বছর বয়সে। তিনি জন্মেছিলেন ভারতের পানিপুরে, ১৯৬৬ সালে, নাম ছিলো রাম চন্দর, পিতার নাম জুমনাদাশ। ইসলাম গ্রহণ করেছেন ১৩ এপ্রিল ১৯৮৩ সালে। তারপর থেকে দিয়ে চলেছেন অগ্নিপরীক্ষা। এখানে তাঁর নিজের মুখেই পরিবেশিত হলো

হৃদয় তাঁর আকাশের চেয়ে বড়ো / নাজিব আল-কিলানি

কাফেলার সবাই ক্লান্ত। দীর্ঘ কষ্টকর সফরের পর তাঁরা সবাই দুর্বল হয়ে পড়েছেন। কিন্তু মুসাফিরদের সান্ত¡না যে তাঁরা একটি পবিত্র ও সুন্দর স্বপ্ন নিয়ে এসেছেন। এই স্বপ্নই কষ্টভোগে তাঁদের প্রেরণা যুগিয়েছে। রাসূলের ভূমিতে পৌঁছার মাধ্যমে অচিরেই এই স্বপ্ন বাস্তব রূপ নেবে। পবিত্র ভূমি ভ্রমণের মাধ্যমে তাঁদের স্বপ্ন সফল হবে। কষ্ট-ক্লান্তি যাই হোক। কাফেলার শায়খ ও প্রধান

সুখ / নাঈমা তামান্না

অত্যাধুনিক সাজসজ্জা। বাইরে বর্ণিল আলোকচ্ছটা। ভেতরে আবছা অন্ধকার। অবশ করা আলো-আঁধারির মিলনমেলা। এরই মধ্যে চলে প্রেমিক প্রেমিকা জুটির আড্ডা মাদকতা। সিলিংয়ে ঝোলানো লাখটাকার ঝাড়বাতি মিটমিট করে জ্বলছে। নরম গদির পরিপাটি আরাম কেদারায় দেহ এলিয়ে বসে থাকে তারা। টেবিলের নিচ দিয়ে কখনো পায়ে পা স্পর্শ করে প্রেমও উপভোগ করে। ফিসফিসিয়ে তাদের চলে মধুর প্রেমালাপ। কখনো হাত

জীবনজিজ্ঞাসা

যাকাত কে? কাকে? কখন দিবে? শরীফুল আলম, সাভার, ঢাকা। প্রশ্ন: যাকাত কার উপর? কখন ওয়াজিব হয়? যাকাত এর হকদার কারা? যাকাত রমযান মাসেই কি আদায় করতে হয়? নাকি অন্য কোন মাসে আদায় করলেও চলে? উত্তর:  সাবালক সজ্ঞান মুসলমান নেসাব পরিমাণ মালের মালিক হওয়ার পর চান্দ্র মাস হিসেবে ঠিক একবছর কার অতিক্রান্ত হলে যাকাত আদায় করা

জীবন ফিরে পেলাম (স্মৃতিচারণ) / রাহাত ইবনে মাহবুব

মাদরাসার বার্ষিক পরীক্ষা শেষ। ছুটি শরু হয়ে গেছে গতকালই। জনমানবশূণ্য মাদরাসায় আমরা মাত্র হাতে গনা সাত জন। তালিবে ইলম বিছানা পত্র আর ব্যাগ গুছানোয় ব্যস্ত। অনেক কাজ বাকি এখনও। চটজলদি সেরে ফেলা চাই। এরপর দুজন শিক্ষকের পিছু পিছু যেতে হবে কাকরাইল মসজিদে। তারপর সেখান থেকে দশ দিনের জন্য তাবলীগ জামাতে। দ্রুত সকালের নাস্তা সেরে গাট্টি

তাকওয়ার গুরুত্ব ও প্রয়োজনীয়তা / আহমদ আবদুল্লাহ

তাকওয়া মহান রব্বুল আলামীনের এক বিশেষ গুণ। যাদেরকে তিনি এ গুণে গুণান্বিত করেন, তারা খুবই সৌভাগ্যশীল। তাদের জন্য রয়েছে চিরস্থায়ী জান্নাত। তাকওয়া এর আভিধানিক অর্থ ‘ভয় করা’, ‘ছেড়ে দেওয়া’ ও ‘বেঁচে থাকা’।  পরিভাষায় বলা হয়, আল্লাহ তায়ালার ভালোবাসায় প্রবৃত্তির চাহিদা থেকে বিরত থাকা। গুণাহের সর্বপ্রকার কার্যাদি থেকে নিজেকে হেফাজত করা। অশ্লীল কথাবার্তা, নির্লজ্জ কথোপকথন ও

ভয় / মুস্তাকিম আল মুনতাজ

রাত ১০টা। সবে মাত্র টিপ টিপ বৃষ্টিতে ভিজতে ভিজতে ঘরে এসেছে সায়েম। কিছুণ পরেই বৃষ্টির গতি বেড়ে গেল। বাহিরে মুষলধারে বৃষ্টি ও প্রচন্ড তুফান হতে লাগলো। আকাশেও খুব ঘনঘন বিকট আওয়াজে বজ্রপাত হচ্ছে। এমন বিকট শব্দে থরথর করে কেঁপে উঠছে সায়েমের বুক। খুব ভয়ও করছে তার। সায়েমের মা আমিনা বেগম। তিনি ছাড়া সবাই ঘুমিয়ে আছে।


Hit Counter provided by Skylight