বিভাগ : জুন- ২০১৩

হাশরের ময়দানে উপস্থিতদের বিভিন্ন অবস্থা [২] : সংকলন : সৈয়দা সুফিয়া খাতুন

কেয়ামতের দিন সবচেয়ে বেশি ক্ষুধার্ত ব্যক্তিহযরত ইবনে ওমর রা. থেকে বর্ণিত, রাসুলুল্লাহ সা. এর সামনে এক ব্যক্তি ঢেকুর তুলল। তিনি বললেন, ঢেকুর কম তোলো। কেননা, কেয়ামতের দিন সবচেয়ে বেশি ক্ষুধার্ত সে-ই হবে, যে দুনিয়াতে বেশির ভাগ সময় ভরা পেটে থাকত। [মেশকাত শরিফ]দুমুখী লোকের হাশরহযরত আম্মার রা. থেকে বর্ণিত, রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলায়হে ওয়াসাল্লাম এরশাদ করেন, যে

সম্পাদকীয় : রজব-শাবান বয়ে আনুক আলোকিত জীবন

হিজরি বর্ষের সপ্তম মাস রজব। আরব জাহেলিয়াতের যুগে রজব মাস কেন্দ্রিক অনেক রুসম-রেওয়াজ প্রচলিত ছিল। ইসলাম সেসবকে বাতিল করে এটাকে সম্মানিত ৪মাসের একটি বলে ঘোষণা দিয়েছে। রজব ছাড়াও অপর তিনটি সম্মানিত মাস হলো-যিলকদ, যিলহজ, ও মুহাররম। [সূরা তাওবা ৩৬নং আয়াত দ্র.] আজকের সমাজের মুসলমানদের বেশিরভাগ সম্মানিত মাসসমূহ এবং বিশেষত রজব ও শাবান মাস সম্পর্কে অনেকখানি

আল কুরআনে মুমিনের পরিচয় : ইবনে সাইদ উদ্দীন

একজন মানুষ যখন ঈমান আনে তখন তার ভেতর সুপ্ত মানবীয়  গুণাবলি নতুন রূপ ধারণ করে মানুষটাকে সুন্দর করে। একজন মুসলমান যখন ঈমান আনয়ন করে মুমিন হয়, তখন তার পুরাতন বৈশিষ্ট্যাবলি পরিবর্তন হয়ে একটি উন্নতমানের গুণাবলি তার ভেতরে পয়দা হয়। তাই বলা চলে, ঈমান মুমিন-জীবনের উজ্জীবনী শক্তি। একজন মুমিনের চরিত্রে, তার চিন্তা ও কর্মে কী ধরনের

আল্লাহ ছাড়া কোন মাবুদ নাই : আবদুর রাকীব

কুরআন মাজিদের সর্বমহান আয়াত ‘আয়াতুল কুরসি’ এবং তাতে বিধৃত মহৎ, স্পষ্ট এবং উজ্জ্বল দলিল প্রমাণসমূহের এটি সংক্ষিপ্ত আলোচনা, যা মহত্ত্ব, বড়ত্ব এবং পূর্ণতার ব্যাপারে মহান আল্লাহর একত্বের প্রমাণ বহন করে এবং বর্ণনা করে যে, তিনি আল্লাহ পবিত্র। তিনি ছাড়া কোনো প্রতিপালক নেই। নেই কোনো সত্য উপাস্য। তাঁর নাম বরকতপূর্ণ। মহান তাঁর মহিমা। তিনি ছাড়া নেই

মহিমান্বিত শাবানের মার্যাদা ও ফজিলত : মুফতি : আশরাফুল ইসলাম

শাবান মাসের মহিমা ও গুরুত্ব সকল প্রশংসা অবশ্যই আল্লাহ তালার জন্য। তিনি আমাদেরকে সময়-সম্পদে কাজকর্ম করার অবকাশ দিয়েছেন। বিশেষ করে এই দুর্যোগে, যেখানে আমরা বাস করছি ফেতনা, ফ্যাসাদের সাথে। যেখানে মহৎ ও বৃহৎ প্রাণের মানুষ হ্রাস পাচ্ছে। সৎ ও সুউচ্চ গুণাবলি লোপ পাচ্ছে। মানুষ প্রবৃত্তি-পূজায় ডুবে আছে। ভালো-খারাপ জগাখিচুড়ি হয়ে যাচ্ছে। সত্য-মিথ্যা মিশে একাকার হয়ে

নামাজে একাগ্রতা অর্জনের গুরুত্ব ও উপায় : আহমাদ আব্দুল্লাহ নাজীব

ইসলামের সর্বাধিক গুরুত্বপূর্ণ ইবাদত হ’ল নামাজ। সর্বাবস্থায় আল্লাহর স্মরণকে হৃদয়ে সঞ্চারিত রাখার প্রক্রিয়া হিসাবে আল্লাহ তাঁর বান্দাদের জন্য প্রতিদিন ৫ ওয়াক্ত নামাজ ফরয করেছেন। আল্লাহ বলেন- ‘আর তুমি নামাজ কায়েম কর আমাকে স্মরণ করার জন্য’। [ত্বোয়া-হা ২০/১৪] আর প্রতিটি কাজে সফলতার জন্য মৌলিক শর্ত হল একাগ্রতা ও একনিষ্ঠতা। আর এ বিষয়টি নামাজের ক্ষেত্রে আরো গুরুত্বপূর্ণ।

শবে বরাত মহিমান্বিত এক রজনী : মাওলানা শিব্বীর আহমদ

হিজরী ক্যালেন্ডারের অষ্টম মাস শাবান। এরপরই আসে বহু প্রতীক্ষিত রমজানুল মুবারক। রহমত-ক্ষমা-দোজখ থেকে মুক্তির মাস রমজান। মুমিন বান্দা মাত্রই এই পূণ্যময় মাসটির জন্যে বছর ধরে অপেক্ষার প্রহর গুণতে থাকে। ফলে স্বাভাবিকভাবেই এ শাবান মাসটি রমজানুল মুবারকের জন্যে প্রস্তুতির মাস। প্রতীক্ষিত সে মাসের প্রতিটি মুহূর্ত কীভাবে কাজে লাগানো যায়, এবং নিজের আমলনামায় কীভাবে স্বল্প সময়ে অধিক

গাণিতিক সংখ্যায় ঈমানের শাখা-প্রশাখা : মোহাম্মদ মাকছুদ উল্লাহ

ঈমান  আরবী শব্দটি ইমানুন মূল ধাতু থেকে নিষ্পন্ন। শব্দটি ‘তাসদীক’ অর্থে ব্যবহৃত। আর  এর অর্থ বিশ্বাস করা। ঈমান শব্দটি ইসলাম ধর্মের সব থেকে গুরুত্বপূর্ণ পরিভাষা। বরং সমগ্র সৃষ্টিমূলের বিশাল বিস্তৃত বৈচিত্রময় জীবন ধারা সুচারু সুন্দর পরিচালনার জন্য ইসলাম নামীয় যে মহৎ ও পূর্ণাঙ্গ আদর্শিক জীবন বিধান বিশ্ববিধাতা আল্লাহ রাব্বুল আলামীন দান করেছেন তার সার্বিক কাঠামো

বিদায় হজ্জের ভাষণ : সাম্য মৈত্রি ও ভ্রাতিৃত্বের আহ্বান : মাওলানা গোলাম মোস্তফা

বিদায় হজ্জের ভাষণের পূর্ণরূপ সংরক্ষিত নেই। বুখারি শরিফে কিছু অংশ পাওয়া যায় যা নির্ভরযোগ্য সূত্র বিবেচনায় উদ্ধৃত হয়ে থাকে। আর কিছু অংশ মুসনাদে আহমাদ গ্রন্থে পাওয়া যায়। ভাষণের সারমর্ম তেরটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ের উপর উদ্ধৃত হয়েছে। যার আলোচনা নিম্নে করা হলো। জীবন সায়াহ্নের ইঙ্গিত “হে লোকেরা! আমার কথাগুলো মনোযোগসহ শ্রবণ করো। আমার মনে হয়, এরপর আর

ইলম অন্বেষণের গুরুত্ব ও মর্যাদা : মাওলানা আব্দুস সাত্তার

প্রথমেই ঐ দয়াময় সত্ত্বার প্রসংশা জ্ঞাপন করছি যিনি মানুষকে অক্ষর জ্ঞান দান করেছেন। অসংখ্য দরুদ ও সালাম বর্ষিত হোক শেষ নবী মুহাম্মদ সা. এর উপর যিনি দীনি জ্ঞান অর্জন করাকে সকলের উপর ফরজ করেছেন এবং তাঁর জান উৎসর্গকারী সাহাবীদের উপর। আমাদের এই মহান ধর্মে ইলমকে অনেক মর্যাদা দেয়া হয়েছে। ইলমের ধারক-বাহক নবী-রাসুলদের উত্তরাধিকারী। আর আবেদ

মন্দ ধারণা থেকে বেঁচে থাকুন : জি এম মুজিবুর রহমান

চিন্তা ও গবেষণামূলক মনোভাব বিবেকবান মানুষের থাকা উচিত। প্রতিদিন আমাদের সামনে ছোট-বড়, সমান্য-অসামান্য, স্বাভাবিক-অস্বাভাবিক যে অসংখ্য ঘটনা ঘটে যাচ্ছে এগুলোকে নিছক ঘটনা হিসেবে বিবেচনা করলে কিছুই শিক্ষার থাকে না। আমাদেরকে সব কিছু নিয়ে চিন্তাভাবনা করতে হবে। ঘটনার অপকারিতা ও উপকারিতা নিয়ে ভাবতে হবে। ঘটনা থেকে শিক্ষা নিতে হবে। ঘটনা থেকে ভালো কিছু শিক্ষা নিয়ে সমাজের

চেষ্টা ও উপার্জন : আল্লামা তাকি উসমানি

অনুবাদ : মুফতি মুহিউদ্দীন কাসেমী : নবী কারিম সা. স্বীয় পরিবার-পরিজনের এক বছরের খাদ্য পৃথক করে রাখতেন; যেন তা পুরো বছর পরিবার-পরিজনের পেছনে ব্যয় করা যায়। হযরত উমর ফারুক রা. নবী-জীবনের অভ্যাসের বর্ণনা দিয়েছেন। হুজুর সা. সকল স্ত্রীর এক বছরের খাদ্যদ্রব্য তাঁদের ঘরে পৌঁছে দিতেন; যাতে স্বয়ং রাসূলের সা. খাদ্যও শামিল থাকত। তবে এই স্ত্রীগণ

বিবেকের কাছে প্রশ্ন ? : একটি ঐতিহাসিক পর্যালোচনা : মুফতি আলী হোসেন

ঐতিহাসিক হুদায়বিয়া সন্ধি পর রাসুলুলাহ সা. অন্তত চার-পাঁচ বছরের জন্য স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেললেন। নবুওয়ত প্রাপ্তির পর থেকে এ পর্যন্ত প্রায় আঠার/ঊনিশ বছর পর্যন্ত এক মূহুর্তের জন্যও নিরুদ্বিগ্ন বসে থাকতে পারেন নি। কুরাইশসহ আরবের অন্যান্য গোত্র, সর্বোপরি মদিনা ও নাজরানের ইহুদী-নাসারাদের একের পর এক ষড়যন্ত্র নবী সা. ও তাঁর সাহাবীগণকে শান্তিতে বসে থাকতে দেয়নি। তাই এতদিন

ঘুষ ও দুর্নীতি একটি সামাজিক ব্যাধি : মাওলানা আলী উসমান

গত সংখ্যায় আলোচনা করে ছিলাম ঘোষের পরিচিতি এবং তার প্রকৃতি নিয়ে। এবার তার ক্ষতি ও প্রতিকার নিয়ে আলোচনার প্রয়াস পাবো ইনশাআল্লাহ। আল্লাহ তাআলা ইরশাদ করেন, তোমরা অন্যায়ভাবে একে অপরের সম্পদ গ্রাস করোনা এবং মানুষের ধন-সম্পত্তির কিছু অংশ জেনে শুনে অন্যায় পন্থায় আত্মসাত্ করার উদ্দেশ্যে শাসনকর্তা বা বিচারকদের হাতে উৎকোচ [ঘুষ] তুলে দিওনা। [সুরা বাকারা-১৮৮ আয়াত]

কিভাবে আপনার সন্তানদেরকে ন্যায় পরায়ণ করে গড়ে তুলবেন?: মুহাম্মাদ গাফফার

সন্তানদেরকে সুষ্ঠুভাবে গড়ে তোলা এবং সুশিক্ষায় শিক্ষিত করা প্রত্যেক পিতামাতার অন্যতম প্রধান দায়িত্ব ও কর্তব্য। সন্তানদের সুশিক্ষায়  শিক্ষিত করে নেক সন্তান হিসেবে গড়ে তোলা আল্লাহ্  রাব্বুল ‘আলামীন এবং তাঁর রাসুল সা. এর নির্দেশ। কোরআনে কারীমে আল্লাহ্  রাব্বুল ‘আলামীনের নির্দেশ হল- “হে মু’মিনগণ! তোমরা নিজেদেরকে এবং তোমাদের পরিবার পরিজনকে রক্ষা কর ঐ অগ্নি হতে, যার ইন্ধন

যে ভাবে সংঘটিত হবে কিয়ামত : মুফতী পিয়ার মাহমুদ

কিয়ামত হযরত ইসরাফীল আ. এর সিঙ্গার সেই ভয়ংকর ফুৎকারের নাম যার ফলে পুরো পৃথিবী প্রকম্পিত হবে। কম্পনের মাত্রা ও ফুৎকারের আওয়াজ উত্তরোউত্তর বাড়তেই থাকবে এত বিকট হবে যে, যার ফলে সমস্ত প্রানী প্রাণ হারাবে। যমীন ফেটে যাবে। পাহাড়-পর্বত উড়তে থাকবে ধূনিত তুলার মত। গ্রহ নক্ষত্র পড়ে যাবে টুকরো টুকরো হয়ে। সৃর্য আলোহীন হয়ে যাবে। আকাশ

নারী নির্যাতন কারণ ও প্রতিকার : মুহাম্মদ ফরিদুল ইসলাম

নারী নির্যাতন  বিশ্বের বিভিন্ন দেশে ভয়ানক রূপ নিয়েছে। বিশেষ করে উন্নত বিশ্ব তথা পশ্চিমা বিশ্বে  নারীরা সবচেয়ে বেশি নির্যাতিত  হচ্ছে। এই সভ্যতায় নারী পণ্য হিসেবে গণ্য। পশ্চিমা বিশ্ব নারী-পুরুষ সম অধিকারের বুলি আওড়িয়ে নারী অধিকার সংরক্ষণের চেয়ে অধিকার হরণের দিকে বেশি উৎসাহিত করছে। আর  ইসলামে নারী অধিকারকে তুচ্ছ জ্ঞান করে মানব সমাজে তুলে ধরার প্রয়াস

দেশ-বিদেশের খবর

চাঁদে পাথরের আঘাত প্রায় ৪০ কেজি ওজনের একটি পাথরের আঘাতে চন্দ্রপৃষ্ঠে উজ্জল আলোকস্ফূরণ এর ছবি প্রকাশ করেছে নাসা। গত ১৭ মার্চ নাসার স্বয়ংক্রীয়  টেলিস্কোপে ছবিটি ধরা পড়েছে। ঘণ্টায় প্রায় ৫৬ হাজার মাইল গতিবেগে বিশাল আকৃতির একটি উল্কা চাঁদের বুকে আছড়ে পড়ায় বিস্ফোরণ ঘটেছে, যার আলোর ঝলকানি ধরা পড়েছে খালি চোখে। নাসার জ্যোতির্বিজ্ঞানীরা জানিয়েছে, প্রায় ৫৬

ঐতিহাসিক উপন্যাস : কায়রাওয়ানী দুলহান

মুসলিম তরুণ-তরুণীদের জন্য একটি ঐতিহাসিক উপন্যাস কায়রাওয়ানী দুলহান মূল : জর্জি যায়দান ভাষান্তর : নাজীবুল্লাহ ছিদ্দীকী : ফাতেমী খলীফা মুঈয লিদীনিল্লাহ কায়রাওয়ানে (১) তাঁর রাজপ্রাসাদের বাগানে বের হলেন। তখন মধ্যরাত। উঁচু উঁচু গাছগাছালী আর সারি সারি ফুটন্ত ফুলগাছের মাঝ দিয়ে হাঁটছিলেন। হাঁটতে হাঁটতে তিনি বাগানের মাঝখানে অবস্থিত একটি প্রশস্ত পুকুরপাড়ে এসে থামলেন। এদিকে মালী তাঁকে

শয়তানের ডায়েরি

মোছাঃ উম্মে হাবিবা : পূর্ব প্রকাশিতের পর…… পির আলী- বে-নামাজীর জন্য দোয়া করি, আল্লাহ তাহাদিগকে নামাজ পড়ার তৌফিক দান করুন। শয়তান- হুজুর! আপনার নিকট দোয়া চাহিয়া আরো সর্ব্বনাশ করিলাম নাকি জানিনা। যাহা হউক তবুও কিতাবের কথার উপর ভরসা আছে যে বড় পাপীদের জন্য দোয়া করিলে নাকি আল্লাহ কবুল করেন না উপরন্তু দোয়াকারী আরো কৈফিয়াতে পড়েন।

সোনামণি , ডিজিটাল নারী , জানিয়ে গেছি , সত্য লিখেই যাব , হচ্ছেটা কি , মোসাদ্দাস-ই-হালী

সোনামণি : সৈয়দা সুফিয়া খাতুন : ওরে আমার সোনামণি ওরে আমার খোকা তুমি যে, আমার বুকের মানিক হসনে এক রোখা। স্বপ্নে ঘেরা আকাশ ছোঁয়া নীল আকাশের মনি মেঘের ভেলা, ফুলের হাসি হীরা মুক্তার খণি। তুই বিনা তোর মায়ের বুক শূণ্য হয়ে থাকে হৃদয় আমার জ্বলে পুড়ে কাঁদে ধুকে ধুকে। আয়রে আমার বুকের মানিক আয়রে আমার


Hit Counter provided by Skylight