বিভাগ : জান্নাতী কাফেলা

বন্ধু একটু ফিরে দেখ : রুহুল নবীর

এক আল্লাহর সৃষ্টি, একই মানব থেকে বের হওয়া, একই জনপদে গড়ে ওঠা, একই খাবার খাওয়া, কিন্তু আমাদের মাঝে আর তাদের মাঝে কত পার্থক্য! আমাদের জীবনযাপন আর তাদের জীবনযাপনের মধ্যে কত ফরাক। তাদের শরীর মাটির তৈরি আমাদের শরীরও মাটির তৈরি। তারাও কোন না কোন পিতা-মাতার ঔরসে জন্মগ্রহণ করেছে, আমরাও কোন না কোন পিতা-মাতার ঔরসে জন্মগ্রহণ করেছি।

সততার পুরস্কার… মুহাম্মাদ আতাউর রহমান (মারুফ)

বহুদিন আগের কথা,এক গ্রামে বাস করত নূরুল্লাহ্ নামের একজন দরিদ্র কৃষক। নিজের আবাদের ছোট্ট তেটির দেখাশোনা আর অন্যদের বাড়িতে মাটি কেটেই তার সংসার চলে। তবে সম্পদের দিক দিয়ে সে দরিদ্র হলেও ঈমানের দিক দিয়ে কিন্তু দরিদ্র নয়! পাঁচ ওয়াক্তের নামাজ সময়মত আদায়ের পাশাপাশি তাহাজ্জুদও সাধারণত বাদ দেয় না সে। শরিয়তের অন্য সকল আদেশনিষেধও যথাযথভাবে পালন

মায়ের সাথে বেয়াদবীর ফল / মুহাম্মদ আতিকুর রহমান

গ্রীষ্মকাল, বেশ গরম, তাই আনিস সাহেব একটি চেয়ার নিয়ে বাইরে বসে আছেন। বাইরের ঠা-া বাতাস আনিস সাহেবের চোখে ঘুম এনে দিল। হঠাৎ তিনি ঘুমিয়ে পড়লেন। যখন চোখ খুললেন, দেখলেন তার সামনে একজন লোক বসে আছে। খুব জীর্ণ-শীর্ণ অবস্থা। দেখে মনে হচ্ছে অনেক দিন যাবৎ কিছু খায়নি। লোকটি আনিস সাহেবের নিকট খাবার চাইল। আনিস সাহেব ঘর

মা-বাবার প্রতি শ্রদ্ধা আজীবন / তানভির রহমান

আসরের নামাজ আদায় করার জন্য মসজিদে যাচ্ছিলাম। মাঠে চোখ পড়তেই দেখলাম আমাদের পাড়ার রাশেদকে ওর বাবা সাইকেল চালানো শেখাচ্ছেন। ওর বাবা সাইকেলের পিছনের সিটে ধরে দৌড়াচ্ছেন আর রাশেদ সাইকেল চালাচ্ছে। রাশেদের সাইকেল চালানো দেখে আমারও ছোটবেলার প্রথম সাইকেল চালানোর কিছু স্মৃতি মনে পড়ে গেল। সাথে কিছু ভাবনারও উদয় হল। আর সেই ভাবনাই চোখের কোণায় দু’ফোঁটা

অন্য আনন্দ / রেদওয়ান সামী

রুবি ঘড়ি দেখছিল আর ব্যাগ গুছাচ্ছিল। রুবির এমন ব্যস্ততা দেখে রুবির মা বলল, রুবি এত তাড়া কিসের তোর? কোথাও বেরুচ্ছিস না কি? হ্যাঁ, মা আজ আমাদের পাঠাগারের ৪র্থ প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী। বন্ধুরা মিলে একটা পার্টির আয়োজন করেছি কলেজে। সকাল দশটায় ওরা সবাই কলেজে থাকবে। ওরা আমাকে বলে দিয়েছে, আমি না গেলে না-কি পার্টিটা প্রাণ পাবে না।

ক্ষমা / রাহাত ইবনে মাহবুব

বদর যুদ্ধে মুসলমানদের কাছে অত্যন্ত শোচনীয়ভাবে হেরে যাবার পর কাফেরদের মেজাজ বেশ চড়া। বড় বড় নেতারা লাত-উজ্জার নামে নানান শপথ করে বসে আছে, প্রতিশোধের আগুনে তারা জ্বলে-পুড়ে অঙ্গার। প্রায় সহ¯্র অস্ত্র সজ্জিত কাফের সৈনিক গুড়িয়ে গেছে মাত্র তিনশত তের জন দরিদ্র নিরস্ত্র মুসলমান সৈনিকের কাছে। কি লজ্জার কথা! লজ্জায় কাফেরদের মাথা কাটা যাওয়ার দশা। অন্যদিকে

পাহাড়ের পাদদেশে / মোস্তফা কামাল গাজী

পাহাড়ের গা ঘেঁসে পিচের সরু রাস্তা। হাজারো গাড়ির সথে এগিয়ে চলছে আমাদের মাইক্রোটাও। পাহাড়ের পাদদেশে বিশাল খাদ। রাস্তার দু’পাশে লোহার রেলিং দেয়া। গাড়ি নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে যাতে খাদে না পড়ে সেজন্য এ ব্যবস্থা। একটু পরপর বাঁক। মোড় নিতে গেলে গা ছমছম করে। এই বুঝি সামনের কোনো গাড়ির ধাক্কায় খাদে পড়ে যাই! কিন্তু না। রাস্তাটা বিপদজনক হলেও

জেলে রহমতুল্লাহর ছোটো মেয়েটি / মুনিরুল্লাহ রাইয়ান

জেলে পাড়ার একটি জীর্ণ কুটির। জেলে রহমতুল্লাহর। এক স্ত্রী আর এক ছোটো মেয়েকে নিয়ে তার সংসার। প্রতিদিন ভোরে মেয়েকে সঙ্গী করে জাল নিয়ে মাছ ধরতে বেরিয়ে যায়। কখনও নদীর তীরে, সমুদ্র সৈকতে। কখনওবা বিল- হাওড়ে। ঘরে ফিরে সন্ধ্যার দিকে। কোনো সময় ঝুড়ি ভর্তি মাছ নিয়ে। কোনো সময় শূন্য হাতেই। রহমতুল্লাহর একমাত্র আয়ের উৎস তার এই

হারানো স্মৃতি / উম্মে হাবিবা নুসরাত

ছোটবেলায় খুব দুষ্টু ছিলাম আমি। উদ্ভট সব কা- করে বেড়াতাম কেবল। ছয় বোনের মাঝে আমি ৪র্থ। আমার ছোট ছিলো ইসরাত। পিঠেপিঠি হওয়ায় ওর সঙ্গে খুব ভাব হতো আমার। যতো দুষ্টুমি সব ওকে সঙ্গে নিয়েই করতাম। অবশ্য ও আমার মতো দুষ্টু ছিলো না। ও ‘র’ উচ্চারণ করতে পারতো না বলে আমাকে বলতো ‘নুসলাত’ আর ওর নাম

আমার অবহেলা ও কলমের অভিমান / মুহাম্মদ রাসেল রাবী

আজ শুক্রবার। সপ্তাহশেষে একটু নীরবতায় নিশ্বাস নেবার দিন আজ। আমার সঙ্গে আমার কলমটাও যাতে একটু প্রশান্তির নিঃশ্বাস ফেলতে পারে তাই বসলাম খাতা নিয়ে। দ্বিতীয় সাময়িক পরীার প্রস্তুতির জন্য প্রায় একমাস পর আজই কলমটা হাতে নিলাম। কিন্তু একি! দীর্ঘদিন পর সাাতে কারাগারের কয়েদির মত দেখাচ্ছে ওকে। যেন সবেমাত্র ছাড়া পাওয়া শক্তিহীন কঙ্কালসার দেহ সে। কী বলে

মসজিদই ছিল মুসলমানদের অফিস / জমির আল-হাফিজ

রাসুল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম নবুয়ত ঘোষণার পর দ্বীনের কাজে মেহনত শুরু করেছিলেন। এতে মুসলমানদের সংখ্যা বৃদ্ধি পেতে থাকে। হিজরতের পর মদীনায় মসজিদে নববী নির্মাণ ছিল প্রথম গুরুত্বপূর্ণ কাজ। সকল মুসলমানকে এক জায়গায় একত্র করার উদ্দেশ্যে এ মসজিদ নির্মাণ করা হয়। সেখানে রুহানি প্রয়োজন মেটানোর পাশাপাশি পার্থিব সমস্যা-সম্পর্কিত বিষয়েও আলোচনা করা হতো এবং সমাধানও প্রদান

দেওবন্দের এদারা / মোস্তফা কামাল গাজী

মসজিদে রশিদে ফজর পড়ে বাইরে এলাম। বসন্তের ঝকঝকে একটা সকাল। মৃদু বাতাসে একটু একটু শীত লাগছে। মসজিদের বেলে পাথরের বিশাল চত্বর। তার একপাশে ফুলের বাগান। নানা রঙের ফুল ফুটে আছে সেখানে। নাম না জানা চমৎকার কিছু হলুদ রঙের ফুল গাছের ডালে ঝুলছে। শিশিরজলে ভেজা ফুলগুলো বেশ লাগছে। তবে এতো ফুলের মাঝেও প্রজাপতি উড়ছে না কোথাও।

এলো রক্তরাঙা বসন্ত / উম্মে হাবিবা নূসরাত

শীতের জীর্ণতা ঘুচিয়ে, কৃষ্ণচূড়ার রক্তআভা গায়ে মেখে, গলায় মহুয়ার মালা পরে, ঝোপে ঝোপে কোকিলের কুহুতান নিয়ে কে এলো? এ যে ঋতুরাজ বসন্ত! সে এসেছে বিজয়ী বেশে, প্রকৃতিকে নবরূপে সাজিয়ে দিতে। ষড়ঋতুর দেশ আমাদের বাংলাদেশ। ছয়টি ঋতু নিজ নিজ বৈশিষ্ট্য আর সৌন্দর্য নিয়ে পালাক্রমে উপস্থিত হয় আমাদের মাঝে। তার মধ্যে বসন্তকে বলা হয় ঋতুর রাজা। শীত

কিতাব হল বিপদের বন্ধু / নাদিরা বিনিতে ইউনুছ

বিগত ২০১৬ সালের ১৫ই ডিসেম্বর রোজ শনিবার ৯ টার সময় দুটি হাদীসের কিতাব নিয়ে বের হলাম ছাতক থানার চরবাড়া মহিলা মাদ্রাসায় আসার জন্য। কিছুণ হেঁটে পয়েন্টের মধ্য এসে গাড়ির জন্য অপো করছিলাম এবং কিছুণ অপো করার পর গাড়ি পেয়ে আমি ও আমার আব্বু গাড়িতে উঠলাম। প্রায় দশ মিনিটের রাস্তা অতিক্রম করার পর আরেকটি পয়েন্টে পৌঁছার

ধৈর্য সফলতার সোপান / জাকারিয়া সদর

‘হে ঈমানদারগণ! তোমরা ধৈর্য ও নামাজের মাধ্যমে সাহায্য চাও, নিশ্চয় আল্লাহ ধৈর্য ধারণকারীদের সঙ্গে আছেন। (সূরা বাকারাহ : আয়াত ১৫৩) বিপদে ধৈর্যধারণ করা একটি মহৎ গুণ। যার মাঝে এই গুন বিদ্যমান থাকে, সে চরম সংকটময় মুহূর্তেও আপন লক্ষ্যপানে এগিয়ে চলতে সক্ষম হয়। পক্ষান্তরে যার মাঝে ধৈর্যধারণ করার ক্ষমতা নেই, সে সামান্য প্রতিবন্ধকতায় পড়লে কিংবা সমালোচনায়

ইসলামের শ্রেষ্ঠত্ব / তানভীর রহমান

জাহেলিয়াতের বর্বরতা দ্বারা উত্তপ্ত আরবের ঊষর ভূমিতে ন্যায়ের ফুল ফোটাতে, মূর্খতার ব্যধিতে আক্রান্ত মানুষের কলুষিত অন্তরকে ঈমানী আলোতে আলোকিত করতে, আধার বিশ্বে হেদায়েতের সূর্যোদয়ের মাধ্যমে সত্যের আলো ছড়াতে আল্লাহপাক দুনিয়ার বুকে প্রেরণ করলেন সর্বশ্রেষ্ঠ মানব, সর্দারে আম্বিয়া হযরত মুহাম্মদ  সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামকে। অতঃপর কাক্সিক্ষত শুভলগ্ন যখন সমাসন্ন তখন ৪০ বছর বয়সে হেরার নির্জন গুহায় ধ্যানমগ্ন

প্রত্যুষে একদিন…/ মুহাম্মদ রাসেল রাবী

ফজরের নামায পর মাসনূন কিছু দোয়া পড়েই বেরিয়ে পড়লাম মসজিদ থেকে। অন্যদিনের মত সূরা ইয়াছিন এবং দু-চার পারা কোরান তেলাওয়াত আর করলাম না আজ। ইচ্ছে হল, একটু হাঁটতে যাবো গ্রামের পথে। দেখবো সকাল ও সূর্য। প্রভাত ও তার প্রকৃতি। প্রভু ও তার সৃষ্টি প্রভৃতি। যেই ইচ্ছে সেই হচ্ছে। এক’পা দু-পা করে অগ্রসর হলাম ইচ্ছে-কল্পের প্রভাত

জ্বীনের গল্প / এইচ এম শহীদুল ইসলাম মামুন

সিরাজ মিয়া খুব সৎ লোক। ফেনীর ছোট নদীর তীরে তাদের বসবাস।এক ছেলে ও দুই মেয়ে নিয়ে তার সংসার খুব সুখে চলছে। ছেলের নাম মামুন বয়স ১১ বছর হবে। ছেলেটি তৃতীয় শ্রেণীতে পড়ে। বাড়ির অদূরে নদীর চর। বিচিত্র কোলাহল, খোলামেলা মাঠ। প্রতিদিন সন্ধ্যা হতেই ওই মাঠে ছেলেদের কোলাহল দেখা যায়। বয়ে যায় ক্রিকেট, ফুটবল আর হকি

নারী / হাজেরা সুলতানা হাসি

  বিশ্বে যা-কিছু মহান সৃষ্টি চির কল্যাণকর অর্ধেক তার করিয়াছে নারী, অর্ধেক তার নর ॥ জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলামের অনবদ্য সৃষ্টি ‘নারী’ কবিতার চরণদুটি বাস্তব সত্য। মানবেতিহাসের পরতে পরতে নারীর অনস্বীকার্য অবদান রয়েছে। তেমনি, ইসলামের ইতিহাসেও রয়েছে নারীর ব্যাপক ভূমিকা। নব-ওহীপ্রাপ্ত রাসূল সা. যখন ভীতসন্ত্রস্ত হয়ে পড়লেন, তখন একজন নারীর (খদিজাতুল কুবরা রা.) আঁচলই

ছড়াগুচ্ছ

ভালো এবং মন্দ মুনিরুল্লাহ রাইয়ান সবকিছুতে ভালো এবং সবকিছুতে মন্দ থাকে, ভালোর মাঝে ছন্দ এবং মন্দে অনেক গন্ধ থাকে। কেউ খুঁজে নেয় ভালো এবং কেউ বেছে নেয় মন্দটারে, কেউ পেতে চায় আলো এবং কেউ পড়ে রয় অন্ধকারে। কোনটা ভালো মন্দ কোনটা তা নিয়ে কেউ দ্বন্দে থাকে, মন্দটাকে ভালো ভেবে কেউ বা মহানন্দে থাকে। মন্দ-ভালো সবাই

বড় হবার ইচ্ছা / উম্মে হাবিবা নুসরাত

সবাই গভীর ঘুমে বিভোর। নিশীথিনীর গুমোট নীরবতা সবখানে। দূরে কোথাও নিশাচর পাখিরা ডাকছে। ঘুম নেই শুধু হাসানের চোখে। ক্লাস ফাইভে পড়ে ও। কম্বল মুড়ি দিয়ে শুয়ে আছে শুধু। ভাবছে আগামীকাল স্কুলে কী হবে কে জানে। স্যার বলেছে অংক খাতা দিবে কাল। অংক খাতায় কী যে সব লিখে এসেছে হাসানই ভালো জানে। নিশ্চিত শূন্য পাবে। এরপর


Hit Counter provided by Skylight