আল-কুরআনুল কারীম : [বিষয় : তাওহিদ]

১। আর তোমাদের ইলাহ এক ইলাহ, তিনি ব্যতীত অন্যকোনো ইলাহ নেই। তিনি দয়াময়, অতি দয়ালু। [সূরা বাকারা : আয়াত ১৬৩]
২। আল্লাহ, তিনি ব্যতীত কোনো ইলাহ নেই। তিনি চিরঞ্জীব, সর্বসত্তার ধারক। তাঁকে তন্দ্রা অথবা নিদ্রা স্পর্শ করে না। আকাশ ও পৃথিবীতে যা-কিছু আছে সমস্ত তাঁরই। কে সে, যে তাঁর অনুমতি ব্যতীত তাঁর নিকট সুপারিশ করবে? তাদের সম্মুখে ও পশ্চাতে যা-কিছু আছে তা তিনি অবগত। যা তিনি ইচ্ছা করেন তা ব্যতীত তাঁর জ্ঞানের কিছুই তারা আয়ত্ত করতে পারে না। তাঁর ‘কুরসী’ আকাশ ও পৃথিবীময় পরিব্যাপ্ত; এদের রণাবেণ তাঁকে কান্ত করে না; আর তিনি মহান, শ্রেষ্ঠ। [সুরা বাকারা : আয়াত ২৫৫]
৩। আল্লাহ, নিশ্চয়ই আসমান ও জমিনে কিছুই তাঁর কাছে গোপনীয় থাকে না। তিনিই মাতৃগর্ভে যেভাবে ইচ্ছা তোমাদের আকৃতি গঠন করেন। তিনি ব্যতীত অন্যকোনো ইলাহ নেই; তিনি প্রবল পরাক্রমশালী, প্রজ্ঞাময়। [সূরা আলে-ইমরান : আয়াত ৫-৬]
৪। আল্লাহ স্যা দেন যে, নিশ্চয়ই তিনি ব্যতীত কোনো ইলাহ নেই, ফেরেশতাগণ এবং জ্ঞানীগণও (এই স্যা দেন); আল্লাহ ন্যায়নীতিতে প্রতিষ্ঠিত, তিনি ব্যতীত অন্যকোনো ইলাহ নেই, তিনি পরাক্রমশালী, প্রজ্ঞাময়। নিঃসন্দেহে ইসলামই আল্লাহর কাছে একমাত্র দীন। [সূরা আলে-ইমরান আয়াত ১৮]
৫। আল্লাহ, তিনি ব্যতীত অন্যকোনো ইলাহ নেই; তিনি তোমাদেরকে কিয়ামতের দিন একত্র করবেনই, এতে কোনো সন্দেহ নেই। কে আল্লাহ অপো অধিক সত্যবাদী? [সূরা নিসা : আয়াত ৮৭]
৬। তিনিই তো আল্লাহ, তোমাদের প্রতিপালক; তিনি ব্যতীত কোনো ইলাহ নেই। তিনিই সবকিছুর স্রষ্টা; সুতরাং তোমরা তাঁর ইবাদত করো; তিনি সবকিছুর তত্ত্বাবধায়ক। [সুরা আন‘আম : আয়াত ১০২]
৭। তোমার প্রতিপালকের কাছ থেকে তোমার প্রতি যা ওহী হয়, তুমি তারই অনুসরণ করো, তিনি ব্যতীত অন্যকোনো ইলাহ নেই এবং মুশরিকদের থেকে মুখ ফিরিয়ে নাও। [সুরা আন‘আম : আয়াত ১০৬]
৮। বল, হে মানুষ, আমি তোমাদের সবার জন্য আল্লাহর রাসূল, যিনি আকাশম-লী ও পৃথিবীর সার্বভৌমত্বের অধিকারী। তিনি ব্যতীত অন্যকোনো ইলাহ নেই; তিনি জীবিত করেন ও মৃত্যু ঘটান। সুতরাং তোমরা ঈমান আনো আল্লাহর প্রতি ও তাঁর বার্তাবাহক উম্মী নবীর প্রতি যে আল্লাহ ও তাঁর বাণীতে ঈমান আনে এবং তোমরা তার অনুসরণ করো, যাতে তোমরা সঠিক পথ পাও। [সুরা আ‘রাফ : আয়াত ১৫৭]
৯। কিন্তু তারা এক ইলাহের ইবাদত করার জন্যই আদিষ্ট হয়েছিলো। তিনি ব্যতীত অন্যকোনো ইলাহ নেই। তারা যা শরীক করে তা থেকে তিনি কত পবিত্র! [সুরা তাওবা : আয়াত ৩১]
১০। অতঃপর তারা যদি মুখ ফিরিয়ে নেয় তবে তুমি বলো, আমার জন্য আল্লাহই যথেষ্ট, তিনি ব্যতীত অন্যকোনো ইলাহ নেই। আমি তাঁরই ওপর নির্ভর করি এবং তিনি মহাআরশের অধিপতি। [সুরা তাওবা : আয়াত ১২৯]
১১। পরিশেষে যখন সে নিমজ্জমান হলো তখন বললো, আমি বিশ্বাস করলাম, বনি ইসরাইল যাঁকে বিশ্বাস করে। নিশ্চয়ই তিনি ব্যতীত অন্যকোনো ইলাহ নেই এবং আমি আত্মসমর্পণকারীদের অন্তর্ভুক্ত। [সুরা ইউনুস : আয়াত ৯০]
১২। যদি তারা তোমাদের আহ্বানে সাড়া না দেয় তবে জেনে রাখো, ইহা তো আল্লাহর ইলম মোতাবেক অবতীর্ণ এবং তিনি ব্যতীত অন্যকোনো ইলাহ নেই। তাহলে তোমরা আত্মসমর্পণকারী (মুসলিম) হবে কি? [সূরা হুদ : আয়াত ১৪]
১৩। তবু তারা দয়াময়কে অস্বীকার করে। বল, তিনিই আমার প্রতিপালক; তিনি ব্যতীত অন্যকোনো ইলাহ নেই। তাঁরই ওপর আমি নির্ভর করি এবং আমার প্রত্যাবর্তন তাঁরই নিকট। [সূরা রা’দ : আয়াত ৩০]
১৪। আল্লাহ, তিনি ব্যতীত অন্যকোনো ইলাহ নেই, সুন্দর সুন্দর নাম তাঁরই। [সূরা তোয়া-হা : আয়াত ৮]
১৫। আমিই আল্লাহ, আমি ব্যতীত কোনো ইলাহ নেই। অতএব আমার ইবাদত করো এবং আমার স্মরণার্থে সালাত কায়েম করো। [সূরা তোয়া-হা : আয়াত ১৪]
১৬। তোমাদের ইলাহ তো কেবল আল্লাহই, যিনি ব্যতীত অন্যকোনো ইলাহ নেই, তাঁর জ্ঞান সর্ববিষয়ে ব্যাপ্ত। [সূরা তোয়া-হা : আয়াত ৯৮]
১৭। আমি তোমার পূর্বে এমন কোনো রাসূল প্রেরণ করিনি তার প্রতি এই ওহী ব্যতীত যে, আমি ব্যতীত অন্যকোনো ইলাহ নেই; সুতরাং আমারই ইবাদত করো। [সূরা আম্বিয়া : আয়াত ২৫]

একটি মন্তব্য রয়েছেঃ আল-কুরআনুল কারীম : [বিষয় : তাওহিদ]

  1. এম,সামি says:

    আল্লাহ্ বিনিময় দান করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


Hit Counter provided by Skylight