মাসিক সংরক্ষণাগার: October ২০১৩

সম্পাদকীয় : হজ্জ আত্মত্যাগ ও প্রভুর সান্নিধ্যের মিলনমেলা

    সমস্ত প্রশংসা একমাত্র আল্লাহ তা’আলার জন্য। অসংখ্য দরূদ ও সালাম বর্ষিত হোক সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ট মহামানব মুহাম্মদ সা. এর ওপর এবং তাঁর অনুসারীদের ওপর । যে পাঁচটি খুঁটির ওপর ইসলামের ভিত্তি তারই একটি গুরুত্বপূর্ণ খুঁটি হলো হজ্জ। তাই হজ্জকে বাদ দিয়ে ইসলামের পূর্ণ ইমারত নির্মিত হয় না। হজ্জ এমন এক ইবাদত যেখানে একই সঙ্গে দৈহিক,

হতাশা আল্লাহর স্মরণ থেকে বিমুখ হওয়ার প্রতিফল : আজেমেরী মারিয়ম মেরী

  যে আমার স্মরণ থেকে বিমুখ তার জীবনের সম্ভার হবে সঙ্কুচিত এবং আমি তাকে কিয়ামতের দিন অন্ধ অবস্থায় উত্থিত করবো। [সুরা ত্বোয়াহা : ১২৪] আল্লাহ কাউকে সৎপথে পরিচালিত করতে চাইলে তিনি তার মন ইসলামের দিকে প্রশস্ত করে দেন এবং কাউকে বিপথগামী করতে চাইলে তিনি তার হৃদয় সংকুচিত করে দেন। তার কাছে ইসলাম অনুসরণ আকাশে আরোহণের

বিচারের অপেক্ষায় : সংকলন : সৈয়দা সুফিয়া খাতুন

al-jannatbd.com, আল জান্নাত । মাসিক ইসলামি ম্যাগাজিন, al-jannatbd.com, quraner alo, মাসিক জান্নাত, islamer alo, www.al-jannatbd.com, al-jannat, bangla islamic magazine, bd islam, islamic magazine bd, ব্লগে জান্নাত, জান্নাতের পথ, আল জান্নাত,

মানুষদের নিজ নিজ পিতার নামে ডাকা হবে হযরত আবু দারদা রা. থেকে বর্ণিত, রাসুলুল্লাহ সা. এরশাদ করেন, কেয়ামতের দিন তোমাদের নামের সাথে তোমাদের বাবার নাম যোগ করে ডাকা হবে। এজন্য তোমরা ভাল নাম রাখ। [মুসনাদে আহমাদ, আবু দাউদ] কেয়ামত উচুঁ-নীচু কারী আল্লাহ তাআলা এরশাদ করেনÑ “যখন ঘটনা ঘটার তখন ঘটে যাবে, তা ঘটার মধ্যে কোন

আসমাউল হুসনা ও তাওহিদ : মোহাম্মদ মাকছুদ উল্লাহ

al-jannatbd.com, আল জান্নাত । মাসিক ইসলামি ম্যাগাজিন, al-jannatbd.com, quraner alo, মাসিক জান্নাত, islamer alo, www.al-jannatbd.com, al-jannat, bangla islamic magazine, bd islam, islamic magazine bd, ব্লগে জান্নাত, জান্নাতের পথ, আল জান্নাত,

  আল-আসমাউল হুসনার মাধ্যমে নিখিল জগতের মহান স্রষ্ঠার সত্যিকার পরিচয় বিবৃত হয়েছে। গতসংখ্যায় আসমাউল-হুসনার সংখ্যা বিষয়ে আলোচিত হয়েছে। বক্ষমাণ নিবন্ধে আমরা আসমা উল হুসনা ও তৎসম্পৃক্ত তাওহিদী আকিদা নিয়ে আলোচনার প্রয়াস পাব। প্রথমেই আলোচনা করবো পবিত্র কুরআনের সংকলিত ধারার প্রথম সুরা, উম্মুল কুরআন নামে খ্যাত সুরাতুল ফাতিহা’র প্রথম আয়াতে উল্লেখিত মহান আল্লাহর গুণবাচক নাম “রব”

সমাজবিধ্বংসী‘মাদক’ : মু. আবু হানিফা

আল্লাহ রাব্বুল আলামিন পবিত্র কুরআনের সুরা মায়েদার নব্বই নং আয়াতে বলেন, “হে ইমানদারগণ নিশ্চয়ই মদ এবং নেশা জাতীয় বস্তু নাপাক, শয়তানের কাজ, সুতরাং এ থেকে তোমরা বেঁচে থাক, হয়তো তোমরা সফল কাম হবে।” আর মুসলিম শরিফে হযরত ইবনে ওমর রা. থেকে বর্ণিত আছে যে, নবী করিম সা. বলেছেন “নেশা আনয়নকারী সকল বস্তু মদ, আর নেশা

কুরবানি ও কুরবানির তাৎপর্য : ফাহিম সিদ্দিকী

    কুরবানি একটি গুরুত্বপূর্ণ ইবাদত। এটি আদায়  করা ওয়াজিব। সামর্থ্য থাকা সত্ত্বেও যে ব্যক্তি এই ইবাদত পালন করে না তার ব্যাপারে হাদিস শরিফে এসেছে, ‘যার কুরবানির সামর্থ্য রয়েছে কিন্তু কুরবানি করে না সে যেন আমাদের ঈদগাহে না আসে।’ [মুস্তাদরাকে হাকেম, হাদিস : ৩৫১৯; আত্তারগিব ওয়াত্তারহিব ২/১৫৫] আল্লাহ রাব্বুল আলামিনের নৈকট্য অর্জন ও তার ইবাদতের জন্য

মৃতদের জন্য জীবিতদের করণীয় : মুফতি মুহাম্মাদ শোয়াইব

  সকলকে একদিন মৃত্যুর স্বাদ আস্বাদন করতে হবে। মৃত্যু থেকে কেউ রেহাই পাবে না। মানুষ মৃত্যুবরণ করার সাথে সাথে তার সমস্ত আমল বন্ধ হয়ে যায়। তাই পরকালে শান্তিময় জীবন লাভ করতে চাইলে অবশ্যই দুনিয়াতে তাকে ভালো আমল করে যেতে হবে। আমাদের সমাজের লোকেরা তাদের পরলোকগত বাবা-মা, আত্মীয়-স্বজনের জন্য বিভিন্ন রকমের আমল করে থাকে। কিন্তু তাদের

যৌবনকাল আল্লাহ তা’আলার শ্রেষ্ঠ নিয়ামত : মুহাম্মদ ফরিদুল ইসলাম

 মানব জীবনের গুরুত্বপূর্ণ একটি অংশ যৌবনকাল। এটি আল্লাহ প্রদত্ত মানুষের জন্য শ্রেষ্ঠ দান। আল্লাহ তা’আলার ইবাদত-বন্দেগির সর্বোত্তম সময় যৌবনকাল। যৌবনকালে মানুষ যে সকল কাজ সাহসিকতা বা হিম্মতের সাথে করতে পারে,  তা বৃদ্ধ কালে  সম্ভবপর হয় না। বৃদ্ধকালে মানুষ হয়ে যায় নিশ্চল, অথর্ব, অকর্মণ্য বিভিন্ন রোগ আর অলস্য তাকে পেয়ে বসে। আমাদের জাতীয় কবি কাজী নজরুল

ইসলামে ইনসাফ বা ন্যায় বিচার : মুহা. মাহবুবুর রহমান

ইসলাম শাশ্বত, অবিনশ্বর-চিরন্তন ও পূর্ণাঙ্গ জীবনবিধান। দুষ্টের দমন শিষ্টের লালন ইসলামের অবিচ্ছেদ্য অংশ। ইসলামী জিন্দেগির পরতে পরতে ইনসাফ বা ন্যায়নীতির দৃষ্টান্ত রয়েছে। পবিত্র কুরআন ও হাদিসের অসংখ্য জায়গায় এ ব্যাপারে সুস্পষ্ট ও সুদৃঢ় বক্তব্য রয়েছে। স্বয়ং আল্লাহ তা’আলাই সর্বশ্রেষ্ঠ বিচারক। পবিত্র কুরআনে এরশাদ হয়েছে- “আল্লাহ তা’আলা কি বিচারকদের মধ্যে শ্রেষ্ঠতম বিচারক নন?” [আল কুরআন ৯৫ঃ৮]

ধর্মবিবর্জিত শিক্ষার করুণ পরিণতি : উচ্চবিত্ত পরিবারে ইয়াবা’র মরণ থাবা : ড. আ ফ ম খালিদ হোসেন

ভয়ংকর নেশা উদ্রেককারী মাদক ‘ইয়াবা’ ও ‘আইস পিল’ তাদের সর্বশক্তি নিয়ে বাংলাদেশে আঘাত হেনেছে; তান্ডবের প্রলয় নৃত্যে লন্ডভন্ড হয়ে গেছে বিত্তের প্রাচুর্যে লালিত ধনীর দুলালদের সামাজিক মর্যাদা ও আভিজাত্যের দর্প। কিছু দিন পূর্বে ঢাকায় আবিস্কৃত হয়েছিল চার কোটি টাকা মূল্যের এক লাখ ৩০ হাজার ‘ইয়াবা’ ট্যাবলেট। আদিকাল হতে এ ভূখন্ডে মাদকের উৎপাদন, বিপনন ও প্রচলন

জমিদার থেকে ঈমানদার : মোহাম্মদ ওমর ফারুক

  ভারত উপমহাদেশে হিন্দু জমিদারির ইতিহাস, মানবতার এক কলংকজনক ইতিহাস। যুগ যুগ ধরে মুসলমানদের ইতিহাসের পাতায় যেটা কলংকের এক কালো অধ্যায় হয়ে থাকবে। কেননা, ইংরেজ বেনিয়ারা  এদেশের ওলামায়ে কেরাম এবং ধর্মপ্রাণ মুসলমানদেরকে দমন করে, তাদের ক্ষমতার মসনদকে পাকাপোক্ত করার জন্য যতগুলো মাধ্যম গ্রহণ করেছিল, তন্মধ্যে জমিদারি প্রথাও একটি। ওরা ওদের পছন্দের হিন্দু ব্যক্তিদরেকে “খোদায়ী মালিকানা”

ইসরাফিল আ. এর পরিচিতি : সংকলন : আব্দুল্লাহ মোহাম্মদ জোবায়ের

মূল: আবুল ফিদা হাফিজ ইবনে কাসীর আদ-দামেশকী রহ. : পূর্বপ্রকাশিতের পর… মুজাহিদ রহ. বলেন, প্রতি বান্দার জন্যে তার নিদ্রায় ও জাগরণে জিন, মানব ও হিংস্র জন্তু থেকে রক্ষণাবেক্ষণের জন্য একজন করে ফেরেশতা নিয়োজিত আছেন। কেউ তার ক্ষতি করতে আসলে ফেরেশতা বলেন, সরে যাও। তবে কোন ক্ষেত্রে আল্লাহর অনুমতি থাকলে তার সে ক্ষতি হয়েই যায়। আবু

মানুষের সাথে শয়তানের শত্র“তা : সৈয়দা সুফিয়াখাতুন

কুরআনে বর্ণিত শয়তানের ধোঁকাসমূহ আর আমি বললাম, ‘হে আদম! তুমি ও তোমার স্ত্রী জান্নাতে থাক এবং যেখান থেকে ইচ্ছা প্রাণ ভরে খাও। কিন্তু ওই গাছের কাছেও যেওনা। অন্যথায় তুমি জালিমদের মধ্যে গণ্য হবে। তারপর এই হল যে, শয়তান তাদেরকে সেখান থেকে টলিয়ে দিল এবং তারা যার (যে সুখের) ভিতর ছিল তা থেকে তাদেরকে বের করে

ইতিহাসের টুকরো কাহিনী : মাও. মুহাম্মদ সফিউল্লাহ

ধৈর্যের প্রতিদান ২৪০ হিজরির রমজান মাস। কিছুক্ষণ পূর্বেই সাহরির সময় শেষ হয়েছে। মক্কার মিনারে মিনারে ধ্বনিত হচ্ছে আজানের সুমধুর ধ্বনি। দলে দলে লোকজন ছুটে চলছে মসজিদ পানে। শুধু ৭৮ বছর বয়সের এক অসহায় পৌঢ় বসে আছে আপন কুটিরে। গায়ে তার জীর্ণ এক কাপড়। ক্ষুধায় শীর্ণ তার শরীর। নামাজে দাঁড়াতে গিয়ে হেলে পড়তে চাচ্ছে তার অবশ

দেশ-বিদেশের খবর

ধর্ষণ ঠেকাতে রূপার আংটি! এবার ধর্ষণ ঠেকাতে উদ্ভাবিত হল নতুন ধরনের আংটি – যা মহিলাদের সাহায্য করবে ধর্ষণ প্রতিরোধে। এমন দাবিই করলেন কর্নাটকের এক ফার্মাসিস্ট। ফার্মাসিস্টের নাম ইমরান খান। ইমরান খান দাবি করেন, নারীদের নিরাপত্তা দেয়ার একটি পদ্ধতি উদ্ভাবন করেছেন তিনি। তিনি বলেছেন, এ পদ্ধতি ব্যবহার করলে কোন পুরুষ কোন নারীকে ধর্ষণ বা শারীরিক নির্যাতন

ধারাবাহিক উপন্যাস : কায়রাওয়ানী দুলহান

 – ভীতু কাপুরুষ এসময়ে সালিমের আবির্ভাব লিময়ার জন্য ছিল অত্যন্ত রোমাঞ্চকর। সালিমকে দেখেই তার মাথা ভনভন করে উঠল। তার শক্তি একেবারে নিস্তেজ হয়ে গেল। ফলে সে কাছেই একটি আসনের ওপর শুয়ে পড়ল। লিময়া শুয়ে সালিমের দিকে এমন ড্যাব ড্যাব করে তাকাতে লাগল যে, যেন সে নিজ চোখকে বিশ্বাসই করাতে পারছে না। তার অজান্তেই চোখে অশ্র“র

শয়তানের ডায়েরি : মোছাঃ উম্মে হাবিবা

পির আল- আরে! নবীকে আল্লাহ তাআলা ছারে জাহান হেদায়েত করার উদ্দেশ্যে প্রেরণ করিয়া এখন কি তাহার বিরুদ্ধে তোকে সাহায্য করিলেন? তাহা কখনই হইতে পারে না; কারণ নবী হইল তাঁহার দোস্ত এবং শয়তান হইল তাঁহার দুশমন। দোস্তকে অপমান করিয়া দুশমনকে সাহায্য করা আল্লাহ তাআলার শান নহে। শয়তান- হুজুর! আপনি একজন বিশিষ্ট আলেম হইয়া একটি ভুল উক্তি

কাব্যগুচ্ছ : মহাজন , ঢাকার কোথায় কী? , স্বাধীন , ইলমে নাফে, কিষাণ

মহাজন মুহা. জোবায়ের আহমদ (৫৭১) দিবা নিশি ভাব বসি ডাক তারে সর্বোক্ষণ। চার রঙ্গের মশলা দিয়ে যে করিয়াছে তার গঠন আগুন পানি মাঠি বাতাশ চারজনাকে করিলেন প্রকাশ। তুই দেখলি নারে কে সে তোর মহাজন। দিবা নিশি ভাব বসিডাক তারে সর্বোক্ষণ ঢাকার কোথায় কী? হা: আবুবকর ছিদ্দীক সায়েদাবাদ যাত্রাবাড়ী গাড়ী ঘোড়া সারিসারি ফকিরাপুল মতিঝিল অফিসারগণ কিলবিল

কাব্যগুচ্ছ : আশা , মোসাদ্দাস-ই-হালী

আশা সৈয়দা সুফিয়া খাতুন জনম জনম আমি শুধু তোমাকে চাই জনম জনম ধরে যেন তোমাকে পাই। কি দিয়ে করিবো শুকুর ওগো দয়াময় আমার যা কিছু আছে সব দিয়েছি, তোমার কুদরতেরই পায়। সাদরে গ্রহণ করে নিও তা ওগো আমার দয়াময়। আমি পদে পদে করেছি গুনাহ কর গো দয়াময় আমায় ক্ষমা। আমি বড় গুনাগার তবু আমায় দিয়েছো

জীবন জিজ্ঞাসা : উত্তর দিচ্ছেন- মুফতি মানসুর আহমাদ

অন্যের নামে কুরবানি প্রসঙ্গ। মুহা. আফজাল হুসাইন, কুমিল্লা। প্রশ্ন : আমার এক ছেলে বিদেশে থাকে। প্রতি বছর কুরবানি করার সময় গরুর এক সপ্তমাংশ তার নিয়তে করে থাকি। কোনো কোনো বছর তাকে জানানো হয়, আবার কোনো কোনো বছর জানানো হয় না। কারণ, আমি মনে করি, তার তো এ ব্যাপারে ধারণা আছেই। ইদানীং একজন আমাকে বলেছেন, বিষয়টা

বানানচর্চা : [বাংলা বানান ও ভাষারীতি সম্পর্কে ধারাবাহিক আলোচনা-৪] : মুফতি মুহিউদ্দীন কাসেমী

৪. ঘ { ঘœ ঘ্র্র্র্র্র্র্র্র্র্র্র্র্র্র্র্র্র্র্র্র্র্র্র্র্র্র্র্র্র্র্র্র্র্র্র্র্র্র্র্র্র্র্র্র্র্র্র্র্র্র্র্র্র্র্র্র্র্র্র্র্র্র্র্র ঘ্য } ৪.১ ঘ+ন=ঘœ। নাম: ঘ- য়ে দন্ত্য-ন। যেমন- কৃতঘœ [ক্রিতগ্নো]; বিঘœ [বিগ্নো]। ৪.২ ঘ+র=ঘ্র। নাম: ঘ- য়ে র-ফলা। যেমন- ঘ্রাণ [গ্রান]। ৪.৩ ঘ+য=ঘ্য। নাম: ঘ- য়ে য-ফলা। এখানে য-ফলা এ-কারের মতো উচ্চারিত হবে। যেমন- ঘ্যাগ  [গেগ]। তবে ‘ঘ্য’ শব্দের শেষে হয় তবে য-ফলা উচ্চারিত হয় না। যেমন- অর্ঘ্য [অরগো]।


Hit Counter provided by Skylight