মাসিক সংরক্ষণাগার: September ২০১২

ইসলামে পিতা ও মাতার মর্যাদা : এ, এস, এম, রফিকুল ইসলাম নোমান

মহান আল্লাহ তা’আলা ইরশাদ করেন- قُلْ تَعَالَوْاْ أَتْلُ مَا حَرَّمَ رَبُّكُمْ عَلَيْكُمْ أَلاَّ تُشْرِكُواْ بِهِ شَيْئًا وَبِالْوَالِدَيْنِ إِحْسَانًا وَلاَ تَقْتُلُواْ أَوْلاَدَكُم مِّنْ إمْلاَقٍ نَّحْنُ نَرْزُقُكُمْ وَإِيَّاهُمْ وَلاَ تَقْرَبُواْ الْفَوَاحِشَ مَا ظَهَرَ مِنْهَا وَمَا بَطَنَ وَلاَ تَقْتُلُواْ النَّفْسَ الَّتِي حَرَّمَ اللّهُ إِلاَّ بِالْحَقِّ ذَلِكُمْ وَصَّاكُمْ بِهِ لَعَلَّكُمْ تَعْقِلُونَ মহান আল্লাহ তা’আলা ইরশাদ করেন- ‘আপনি বলুন, এসো

নামাযের শুদ্ধরূপ এবং প্রচলিত ভুলসমূহ : মাওলানা আবদুস সাত্তার আইনী

সিজদা : তাকবির বলা অবস্থায় সিজদায় যাওয়া। সিজদায় যাওয়ার সময় প্রথমে উভয় হাঁটু জমিনে রাখা।[১২] তারপর হাঁটু থেকে আনুমানিক এক হাত দূরে হাতদ্বয় রাখা। হাত রাখার পর হাতের আঙ্গুলসমূহ কেবলামুখি করে মিলিয়ে রাখা। হাতের বৃদ্ধাঙ্গুলির অগ্রভাগ বরাবর নাক রাখা। তারপর কপাল রাখা। সিজদাতে কপাল ও নাক ভালোভাবে জমিনে রাখা। সিজদার সময় পেট উরু থেকে, বাহু

জান্নাতের পরিচয় : সংকলনে : সৈয়দা সুফিয়া খাতুন

পূর্ব প্রকাশিতের পর…. জান্নাতীদের পোশাক ও অলংকার প্রশ্ন: অলংকার প্রকৃতপক্ষে মহিলাদেরই সুন্দর দেখায় এবং এটা তাদের জন্য আকর্ষণীয় হয়, কিন্তু পুরুষরা এগুলো পরলে কেমন দেখা যাবে? জবাব: যে কোন বস্তুই স্থান কাল পাত্র বিশেষে সুন্দর দেখায়। দুনিয়াতে পুরুষদের জন্য স্বর্ণালংকার পরিধান নিষেধ এবং পুরুষরা অলংকারের প্রতি বেশি আগ্রহীও নয়, কিন্তু জান্নাতে পুরুষরা অলংকারের প্রতি আগ্রহী

জাহান্নামের পরিচয় :জাহান্নামে বেশির ভাগই হবে মহিলাঃ

সংকলনে : মাওলানা আব্দুল মতিন : জাহান্নামে বেশির ভাগই হবে মহিলা রাসূলুল্লাহ সা. এরশাদ করেন, আমি জান্নাতের দিকে তাকিয়ে তাতে বেশির ভাগ দরিদ্র লোক, আর জাহান্নামের দিকে তাকিয়ে সেখানে বেশির ভাগই মহিলা দেখলাম। [মেশকাত শরীফ] হযরত আবু সাঈ খুদরী রা. থেকে বর্ণিত, রাসূলুল্লাহ সা. একবার ঈদুল ফেতর কিংবা ঈদুল আজহার নামাজের  জন্য ঈদগাহে যাচ্ছিলেন। মহিলাদের

সৃষ্টি জগতের সূচনা : মূল: আবুল ফিদা হাফিজ ইবনে কাসীর আদ-দামেশকী রহ.

সংগ্রহে: আব্দুল্লাহ মোঃ জুবায়ের : সাত যমীন প্রসঙ্গে আল্লাহ তা’আলা ইরশাদ করেন- তিনি  আল্লাহ, যিনি সাত আসমান এবং অনুরূপ যমীন সৃষ্টি করেছেন; এগুলির মাঝে তাঁর নির্দেশ অবতীর্ণ হয় যেন তোমরা জানতে পার যে, আল্লাহ সর্ববিষয়ে ক্ষমতাবান এবং আল্লাহর জ্ঞানতো সব কিছুকে বেষ্টন করে আছে। [সূরা আত-তালাক: ১২] ইমাম বুখারী রহ. বর্ণনা করেন যে, আবু সালামা

পবিত্র কুরআনের আলোকে পর্দা : সৈয়দা সুফিয়া খাতুন

পর্দা সম্পর্কিত দ্বিতীয় আয়াতের ব্যাখ্যা পূর্ব উল্লেখিত আয়াতের ব্যাখ্যা প্রসঙ্গে প্রসিদ্ধ মুফাস্সিরগণ নিম্নরূপ মতামত ব্যক্ত করেছেন: ১. সুপ্রসিদ্ধ মুফাস্সির আল্লামা ইবনে জারীর রহ. স্বীয় তাফসীর গ্রন্থ ‘তাফসীরে তাবারী’তে (পরস্পরা সনদ সহকারে) বর্ণনা করেন, ইবনে আব্বাস রা. থেকে বর্ণিত-আল্লাহ তা‘আলা মুমিন নারীদিগকে নির্দেশ দিয়েছেন যে, বিশেষ প্রয়োজনে ঘর থেকে বের হতে হলে তারা যেন মাথার উপর

জীবিত অবস্থায়ই সন্তানদের ধর্মীয় ভবিষ্যৎ সম্পর্কে নিশ্চিত হোন : মূলঃ সাইয়েদ আবুল হাসান আলী নদভী রহ.

অনুবাদঃ আবদুল্লাহ মুকাররম : দ্বীনের জন্যে ত্যাগের প্্রয়োজন এ মানসিকতা সম্পন্ন জাতির ব্যাপারে অমুসলিমদের আপনি জিজ্ঞেস করুন। যেমনটি মুহ্তারাম মেহমান জনাব হামেদ সাহেব ইতিপূর্বে বলেছেন। সংখ্যালঘু এক হিন্দু নেতা লেখেন যে, কেবল ভারতেরই এ অবস্থা যে, সেখানকার সংখ্যালঘুরা সংখ্যাগরিষ্টদের তুলনায় অনেক কম শ্রম ব্যয় করে। অথচ তাদের অনেক, অনেক পরিশ্রমী হওয়া প্রয়োজন। আমি আরো সামনে

মিরাস বন্টনের গুরুত্ব, তাৎপর্য ও শরীয়তের বিধান : মুফতী পিয়ার মাহমুদ

ইসলামে সম্পদ উপার্জনের গুরুত্ব এই পৃথিবীতে মানুষের বিভিন্ন প্রয়োজন পুরণে সম্পদের ভূমিকা অনস্বীকার্য। প্রয়োজন পূরণের অন্যতম হাতিয়ার হচ্ছে সম্পদ। এই জন্য স্বভাবগতভাবেই মানুষের রয়েছে সম্পদের প্রতি এক অপ্রতিরোধ্য আকর্ষণ। ইসলাম যেহেতু প্রকৃত ধর্ম, তাই সে মানুষকে বৈধ পন্থায় শুধু সম্পদ উপার্জনের অনুমতিই দেয়নি; বরং দিয়েছে উৎসাহ এবং বাতলে দিয়েছে সম্পদ উপার্জনের হালাল পদ্ধতিগুলো। বিস্তারিত বর্ণনা

ইসলামের আলোকে ক্রোধ ও তা দমনের উপায় : খন্দকার মনসুর আহমদ

ক্রোধ মানুষের স্বভাবজাত। স্বভাব থেকে তা সম্পূর্ণরূপে দূর করে দেয়া সম্ভব নয়। তাই ক্রোধের মুহূর্তে নিজেকে সংযত রাখার জন্য রাসূলে কারীম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম আমাদেরকে বিভিন্ন উপায় নির্দেশ করেছেন। উল্লিখিত হাদীসে সেসব উপায়ের একটির কথা জানানো হয়েছে। অন্য একটি হাদীসে রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম ইরশাদ করেছেন- ক্রোধ শয়তানের পক্ষ থেকে, আর শয়তান আগুনের

কবীরা গুনাহ সমূহের বর্ণনা : এ, এস, এম, রফিকুল ইসলাম নোমান

৬৬. পার্থিব মনোমালিন্যের কারণে পরস্পর তিন দিনের বেশী (ইচ্ছাকৃতভাবে) কথা বন্ধ রাখা বা সম্পর্ক বিচ্ছিন্ন করা। [বুখারী, মুসলিম, মিশকাত, ৪১৯ + ২০ + ২৭, কিতাবুল কাবাইর : ৫৪] ৬৭. জুমার নামাজ আদায় না করা বা জুমার আযানের পর দুনিয়াবী কাজে লিপ্ত থাকা। জুমার মুসুল্লীদের গর্দান ডিঙ্গিয়ে সামনে যাওয়া। [সূরা আল-জুমুআ : ৯, কিতাবুল কাবাইর :

মাদকের বিষাক্ত ছোবল দিকভ্রান্ত প্রজন্ম : শঙ্কিত জাতি

স্বাস্থ্য ও মাদক স্বাস্থ্য আর মাদক দুটি বিপরীতমুখী শব্দ। স্বাস্থ্যের সর্বজনীন স্বীকৃত সংজ্ঞায় শারীরিক, মানসিক ও আত্মিক সুস্থতার কথা বলা হয়েছে, আর যেকোনো ধরনের মাদক গ্রহণের কারণে স্বাস্থ্যের এই তিনটি উপাদানই দারুণভাবে বিপর্যস্ত হয়ে পড়ে। যেকোনো ধরনের মাদক গ্রহণের পরপর, তা আমাদের মস্তিষ্কের ‘পুরস্কারকেন্দ্র’ বা রিওয়ার্ড সেন্টারকে উদ্দীপ্ত করে। এর ফলে একটা সাময়িক ভালো লাগার

মানবতার ধর্ম ইসলাম : আলেমা জুনাইদা আফরোজ (মায়া)

মানবতা হচ্ছে ‘মানুষ হিসেবে মানুষের স্বভাবিক গুণাবলী, মনুষ্যসুলভ আচরণ তথা মানুষ হিসেবে অন্য মানুষের কল্যাণে যে আচরণ সমীচীন তা প্রদর্শন এবং মানবজাতির সদস্য হিসেবে যে আচরণ অশোভনীয় ও অসমীচীন তা বর্জনই হলো মানবতা বা মানবিকতা’। ইসলাম বাস্তবসম্মত ও প্রকৃত মানবতা প্রতিষ্ঠায় বিশ্বাসী। মানবতার ধর্ম প্রতিষ্ঠা করা ইসলামের অন্যতম লক্ষ্য। ইসলাম এই বিশাল পৃথিবীর সকল স্থানের,

একজন জান্নাতী সাহাবিয়ার ধৈর্যের পরীক্ষা ও তার বিনিময় : মোছাঃ ফাতেমা আক্তার

হযরত সাঈদ ইবনে মালিক রা. হতে বর্ণিত, নবী করীম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম ইরশাদ করেছেন, স্বপ্নে আমি জান্নাতে প্রবেশ করলাম। হঠাৎ কারো নড়াচড়ার শব্দ শুনতে পেলাম। আমি ফেরেশতাদেরকে জিজ্ঞেস করলাম, ইনি কে? তারা বললেন, ইনি হলেন রুমাইছা বিনতে মিলহান, আনাস ইবনে মালিকের আম্মা। (মুসলিম : হা.২৪৫৬; মুসনাদে আহমদ : হা.১১৯৫৫; তবাকাতে ইবনে সা’দ : ৮/৪২৯; মুসনাদে

বিশ্বে মুসলমানদের সংখ্যা একটি পর্যালোচনা : হা. মুহাম্মদ আলী

বর্তমান বিশ্বে মুসলমানদের মোট সংখ্যা ১৫৭ কোটি। ১২০টিরও বেশি দেশে রয়েছে উল্লেখযোগ্য সংখ্যক মুসলমান। বিশ্বের ৩৫টি দেশে মুসলমানরা সংখ্যাগরিষ্ঠ। ২৯টি দেশে মুসলমানরা সংখ্যালঘু হলেও অত্যন্ত প্রভাবশালী। বিশ্বের ২৮টি দেশের রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম। ইরান, মিশর, কুয়েত, ইরাক, মরক্কো, পাকিস্তান ও সৌদি আরব এসব দেশের মধ্যে অন্যতম। ইউরোপসহ বিশ্বের বিভিন্ন অঞ্চলে মুসলিম জনসংখ্যা ব্যাপক হারে বাড়তে থাকায় বিশেষজ্ঞদের

ইসলামী ইতিহাসে খন্দক যুদ্ধ : কাজী আশিকুর হোসেন (অপু)

খন্দকের যুদ্ধ ইসলামী ইতিহাসে এক বিরাট তাৎপর্য বহন করে। এটি ছিল মুসলমানদের চিরতরে উৎখাত করার লক্ষ্যে সম্মিলিত বাহিনীর আক্রমন। সংক্ষেপে এর বিবরণ তুলে ধরা হল: মদীনা থেকে বিতারিত বনু নযীর গোত্রের লোকেরা ইসলামের বিরুদ্ধে এক বিরাট ষড়যন্ত্রে লিপ্ত হলো। তারা আশপাশের গোত্রগুলো মুসলমানদের বিরুদ্ধে উত্তেজিত করে তুললো। মক্কায় গিয়ে কুরাইশদেরকে তারা যুদ্ধের জন্য প্রস্তুত করলো

দেশ-বিদেশের খবর

ঢাকায় নাইজেরীয় তরুণীর পেট থেকে বের হলো কোকেন গোপন সংবাদের ভিত্তিতে পুলিশ যখন রাজধানীর বনানীর হোটেল প্যাথেটিক ইন্টারন্যাশনালে অভিযান চালায় তখন বিকাল ৩টা। নাইজোরয়ার নাগরিক আইকেমি কিজুবা বেতসি (৩২) পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়েই কয়েকটি ক্যাপসুল গিলে ফেলেন। এতে পুলিশের সন্দেহ আরও গাঢ় হয়। এরপর বেতসিকে নেয়া হয় ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে। পাকস্থলী পরিস্কার করে উদ্ধার

ধারাবাহিক উপন্যাস : রাজকুমারী

সোমনাথ মন্দিরে প্রায় পাঁচশ দাসী থাকে। তারা সবাই উদ্ভিন্নযৌবনা, অনিন্দ্যসুন্দরী, রূপসী। সকলের বয়স পনের থেকে বিশের মাঝে। তারা নাচ-গানে দারুন পারদর্শী। তবে, তারা সাধারণ কোনো অনুষ্ঠানে নাচ-গান করে না। সোমনাথ মন্দিরে পূজার সময় প্রতিমার সামনে নাচ-গান করাই তাদের দায়িত্ব। তারা সবাই অত্যন্ত উঁচু বংশের মেয়ে। আমীর-ওমারা বা শাসক পরিবারের সন্তান। শৈশবকালেই তাদের পিতা-মাতা তাদেরকে সোমনাথ

শয়তানের ডায়েরী

শয়তানের ডায়েরী প্রথম সংখ্যার পর থেকে পির আলী-কোরআন কিতাবে যাহারা অজ্ঞ তাহাদিগের হয়ত সহজে বিভ্রান্ত করিতে পার। কিন্তু যাহারা কোরআন কিতাবে পাকা আলেম তাহাদিগকে কি ঐরূপ সহজে ক্ষতিগ্রস্থ করিতে পার? শয়তান – হুজুর! কোরান কিতাব পড়া পাকা আলেম তো দূরের কথা জবর বিদ্বান আলেমও হিসাবে গনি না। তবে বাস্তবিক যাহারা কুরআন কিতাব শিক্ষা করিয়া আধ্যাত্মিক

কাব্য-গুচ্ছ: মিরাজুন্নবী সা. , নারীর শপথ, হেরা হতে হেলে দুলে, হে মুহাম্মদ সা.

মিরাজুন্নবী (সাঃ) সুফিয়া খাতুন মিরাজে গেলেন মোদের নবী আল্লাহর ডাকে জিব্রীল এসে জাগালেন তাঁরে মধ্যরাত্রির ফাঁকে। বুরাকে চড়ি জিব্রীল সাথে মসজিদে আক্্সায়, জেরুজালিম তশরীফ নিলেন, বায়তুল মুকাদ্দাস যথায়। দাঁড়িয়ে সেথায় আম্বিয়াকুল আকুল ভক্তি সনে জানান স্বাগতম মোদের নবীরে উষ্ণ- আলিঙ্গনে। অতঃপর দিলেন মহাশূন্য পাড়ি সপ্ত আকাশ ঊর্ধ্বভ্রমণ হুর-গিলমান, ফেরেশতা জানায় সালাম আনত নয়ন। শেষ মঞ্জিল

জীবন জিজ্ঞাসা ও পরামর্শ

প্রশ্নঃ গোসলের পর পাত্রে যে অবশিষ্ট পানি থাকে, তা দিয়ে উযু করা জায়িয আছে কি- না?= মোঃ কফিল আহমদ, রামগঞ্জ, সিরাজগঞ্জ। উত্তরঃ গোসলের পর পাত্রে যে পানি অবশিষ্ট থাকে তা পাক। সুতরাং উক্ত পানি দ্বারা উযু-গোসল ইত্যাদি করা জায়িয আছে। [আদ্দুররুল মুখতার:১/১৮১, হিদায়া:১/৩৩ ও ৩৯] প্রশ্নঃ অনিচ্ছাকৃতভাবে হাঁটুর লুঙ্গি উপরে উঠে গেলে উযু ভেঙ্গে যাবে

রব কে জানো?, সুস্থ্যভাবে থাকতে চাইলে মানতে হবে, পর্যালোচনা, জানা অজানা,

রব কে জানো? : ভোরের মৃদু সমীরণ যখন তোমার আপদ মস্তকে ছড়িয়ে পড়ে, যখন তোমার ক্লান্ত শরীর মেলে দাও শিমুল তুলার বিছানায়, একটু খানি রোদের কষ্টে যখন আশ্রয় নাও কোন বৃক্ষের সুশীতল ছায়ায়; তখন ভেবে দেখ- এই ভোরের মৃদু সমীরণ, শিমুল তুলার রেশম কোমল বিছানা, বৃক্ষের সুশীতল ছায়ার পরশ, কার অপরিমেয় রহমে বিনিময়হীন এই অমূল্য


Hit Counter provided by Skylight