শয়তানের ডায়েরি -উম্মে হাবিবা আকলিমা

পূর্বে প্রকাশিতের পর…
শয়তান বললো, হে দয়াময় প্রভু! তুমি দয়ার আধার, তাই তোমার নিকট ফরিয়াদ করি, তুমি আমাকেও ক্ষমা কর আর হযরত আইউবকেও ক্ষমা কর।
আমার এই মুনাজাতের পর দেখিলাম হযরত আইউব দিন দিন সুস্থের দিকে আসিতেছেন এবং সপ্তাহকালের মধ্যে তিনি সম্পুর্ণ রোগ মুক্ত হইয়া গেলেন।
এবার তার মুখমন্ডলখানি পূর্বের চেয়েও উজ্জ্বল হইয়া উঠিল। কিন্তু রোগ হইতে মুক্তি লাভ করিয়া তিনি কোন দিন কাহারো সংগে হাসি দিয়া কথা বলেন নাই। তাই একদিন তাহার কতিপয় শিষ্য একত্রিত হইয়া জিজ্ঞাসা করিল হুজুর! আপনাকে রোগ মুক্তির পর হইতে সর্বদা বিমর্ষ দেখিতেছি কেন? হযরত আইউব উত্তর দিলেন- আমি জীবনের একটি বড় নেয়ামত হারাইয়াছি এবং সর্বদা উহার অভাব অনুভব করিতেছি বলিয়া তোমাদের সংগে হাসিমুখে আলাপ করিতে পারিতেছিনা। তখন সকলে জিজ্ঞাসা করিল হুজুর! আপনি কি নেয়ামত হারাইয়াছেন? হযরত আইউব বলিলেন, আমি রোগাক্রান্ত থাকাকালীন প্রতিদিন আল্লাহ তাআলা শতবার আমার খবর জিজ্ঞাসা করিতেন। কিন্তু আমি রোগ হইতে মুক্তি লাভ করার পরে ঐ নেয়ামতটি হারাইছি। তাই সর্বদা আমাকে বিমর্ষ দেখিতেছ। হযরত আইউব নবীর এই গোপন কথাটি শুনিয়া আমি বিহ্বল হইয়া পরিলাম। কারণ, ভাবিলাম এতদিন পর্যন্ত অযথা আইউব নবীর পিছনে না ঘুরিয়া যদি সমাজের খেদমত করিতাম তাহা হইলে বহু অমর স্মৃতি স্থাপন করিতে সক্ষম হইতাম।
পির আলী- আচ্ছা, এই দীর্ঘকাল যাবৎ হযরত আইউবের সেবা শুশ্রুষা করার মত কোন আত্মীয় স্বজন তাহার নিকট ছিল কি?
শয়তানÑ হুজুর! হযরত আইউবের বহু আত্মীয় স্বজন ছিল, কিন্তু তাহারা অসুখের সময়ে সকলে একত্রিত হইয়া হযরত আইউব কে আবর্জনার মধ্যে নিক্ষেপ করিয়াছিল। এই বিরাট খেদমতটি ব্যতীত তাহার আত্মীয়-স্বজন দ্বারা তিনি আর কিছুই লাভ করেন নাই। তবে রহীমা নামে একজন পতিœ ছিলেন। তিনি এই দীর্ঘ তেরটি বছর যাবৎ আইউবের যাবতীয় খেদমত করিয়াছেন। এমনকি কোন এক সময় তাহার মাথার চুল বিক্রয় করিয়াও আইউবের পথ্যাদীর ব্যবস্থা করিয়াছেন।
হুজুর; হযরত রাহীমার ন্যায় একজন সতী, ধর্মপরায়ন ও ধৈর্যশীলা রমণী হযরত আইউবের ঘরে ছিলেন বলিয়া তিনি রোগাক্রান্ত অবস্থায়ও এক প্রকার নিশ্চিত ছিলেন। বাস্তবিক পক্ষে এই জাতীয় রমণী যে সমস্ত পুরুষের ঘরে থাকে তাহাদের পার্থিব ও পারলৌকিক সকল কল্যাণ সাধিত হইয়া থাকে এবং সকল উদ্দেশ্য সফল হইয়া থাকে। ইহার ভুরিভুরি উদাহারণ জগতে রহিয়াছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


Hit Counter provided by Skylight