দেশ-বিদেশের খবর

Des-Bideser Khobor copy

নোবেল প্রাইজ শয়তানের সৃষ্টি, ইউরোপ হবে ইসলামের: বার্নার্ড শ
আজ থেকে ৮৭ বছর আগে ১৯২৬ সালের এই দিনে নোবেল-জয়ী বিখ্যাত আইরিশ চিন্তাবিদ ও সাহিত্যিক জর্জ বার্নার্ড শ নোবেল পুরস্কারের অর্থ গ্রহণ করতে অস্বীকৃতি জানিয়ে বলেছিলেন, আমি ডিনামাইট  তৈরির জন্য আলফ্রেড নোবেলকে ক্ষমা করতে পারি, কিন্তু নোবেল পুরস্কারের প্রবর্তনকারীকে ক্ষমা করতে পারি না, কারণ একমাত্র মানুষরূপী শয়তানই এমন পুরস্কার প্রবর্তন করতে পারে।
সুইডিশ রসায়ন বিজ্ঞানী আলফ্রেড নোবেল ডিনামাইট আবিষ্কারের পর ‘মৃত্যুর সওদাগর’ হিসেবে নিন্দিত হওয়ায় নোবেল পুরস্কার প্রথা চালু করেছিলেন। কিন্তু এই প্রথা চালু হওয়ার পর বেশি দিন না যেতেই পুরস্কারটিকে রাজনৈতিক হাতিয়ার হিসেবে ব্যবহার করতে থাকে পাশ্চাত্য। কেবল তাই নয় এই পুরস্কারকে ব্যবহার করা হয় পাশ্চাত্যের আধিপত্যকামী, বিভেদকামী, শোষণকামী ও হত্যাযজ্ঞের নীতি জোরদারের হাতিয়ার হিসেবে।
তাই স্পষ্টভাষী সাহিত্যিক ও চিন্তাবিদ জর্জ বার্নার্ড শ (১৮৫৬-১৯৫০) এই পুরস্কারের তীব্র সমালোচনা করতে বাধ্য হয়েছিলেন।
পবিত্র ধর্ম ইসলাম ও বিশ্বনবী সা. সম্পর্কে নিজের গভীর শ্রদ্ধাবোধের জন্যও খ্যাতি অর্জন করেছেন এই সুনাম-ধন্য মনীষী।
তিনি বলেছেন, যদি কোনো ধর্ম ব্রিটেন ও এমনকি গোটা ইউরোপের ওপর কর্তৃত্ব প্রতিষ্ঠা করতে পারে আগামী একশ বছরের মধ্যে তা হলে সেটা হবে ইসলাম।শ আরো বলেছেন, আমি মুহাম্মাদ সা.’র ধর্মকে সব সময়ই গভীর শ্রদ্ধার চোখে দেখি, কারণ এর রয়েছে বিস্ময়করগতিশীলতা বা শক্তি। আমার দৃষ্টিতে এটা হচ্ছে একমাত্র ধর্ম যার রয়েছে অস্তিত্বের জগতের পরিবর্তশীলতার সঙ্গে নিজেকে মানিয়ে নেয়ার বা খাপ খাইয়ে নেয়ার ক্ষমতা, আর এ কারণে ইসলাম প্রত্যেক যুগেই মানুষকে নিজের দিকে আকৃষ্ট করতে সক্ষম। আমি মুহাম্মাদের সা. ধর্ম সম্পর্কে এ ভবিষ্যদ্বাণী করছি যে এই ধর্ম আগামী দিনের ইউরোপে গৃহীত হবে এবং এই ধর্মকে সাদরে বরণ করে নেয়া এখনই শুরু হয়েছে।
সূত্র : রেডিও তেহরান

বাইসাইকেল যোগে হজ্জে সৌদি আরব
সৌদি আরবে পবত্রি হজ পালনকে উদ্দেশ্য করে বাইসাইকলে চালিয়ে রওনা হয়ছেনে মুক্তিযোদ্ধা জাফর ফরাজী নামে এক ষার্টোধ্ব ব্যক্তি।
যাত্রা পথে ঝালকাঠি জেলা প্রশাসক এর সাথে সৌজন্য সাক্ষাৎ করতে তার র্কাযালয়ে গিয়েছিলেন মাদারীপুরের কালকিনির বাসন্দিা জাফর ফরাজী (৬৫)। রাজী বলেন, আমি বাইসাইকেল চালিয়ে ইতোমধ্যে বাংলাদেশের ৬৪ জেলা দুইবার ভ্রমন করেছি। একবার গিয়েছি ভারতের আজমীর শরিফ।  এবার পবিত্র হজ্জ পালনের উদ্দেশ্যে রওনা দিয়েছেন  সৌদি আরব।

পৃথিবীর ভেতর আরেক পৃথিবী! (চীনে নতুন ‘পৃথিবীর’ সন্ধান লাভ)
পৃথিবীর ভেতর আরেক পৃথিবী! ভ্রু কুঁচকে গেল! সম্প্রতি চীনের চঙকিং প্রদেশে আবিষ্কার হয়েছে এমন এক গুহা যে গুহায় নিজের আলাদা আবহাওয়া ব্যাবস্থা। রয়েছে খাল, বিল, পাহার, আকাশ যাতে রয়েছে মেঘ এবং কুয়াশাও। চীনের এই দুর্গম গুহাতে স্থানীয় বাসিন্ধা ছারা বাইরে কেউ যায়নি, সম্প্রতি গুহা বিশেষজ্ঞ এবং ফটোগ্রাফারদের সমন্বয়ে গঠিত একটি দল এই গুহার গোপনীয়তা আবিষ্কার করেন এবং ভেতরের বেশ কিছু দুর্লভ ছবি তুলে নিয়ে আসেন।
গুহার অভ্যন্তরে বিশেষজ্ঞ দল দেখতে পান সেখানে ধরতে গেলে পৃথিবীর ভেতরে আরেকটি অসাধারণ পৃথিবী যেখানে মেঘ বালুকনা জলীয়বাস্পসহ রয়েছে আলাদা আবহাওয়া ব্যাবস্থা এবং সেখানকার আবহাওয়া অনেকটা শীতল।
কাজের চাপে রোবটের আত্মহত্যা!
কাজের চাপ সহ্য করতে না পেরে আত্মহত্যা করেছে অস্ট্রিয়ায় একটি রোবট। এমনই দাবি করলেন অস্ট্রিয়ার এক দমকল কর্মী। অবসাদ, বিষণ্নতা, একাকিত্ব, কাজের চাপে মানুষের আত্মহত্যার ঘটনা যখন দিন দিন বাড়ছে, তখন যন্ত্রমানবদের এমন আত্মহত্যায় বেশ অবাক গোটা বিশ্ব।
সেই দমকল কর্মী আগুন নেভানোর কাজ করতে গিয়ে বুঝতে পারেন সেই রোবটের আত্মহত্যাই অগ্নিকাণ্ডের প্রধান কারণ। ব্যাপারটা অনেকটা এই রকম। ক’মাস ধরেই অ্যান্ড্রয়েডের মাধ্যমে তার মালিক সেই রোবটকে অত্যধিক কাজ দিচ্ছিলেন। সেই কাজ যথাযথভাবেই পালন করে যাচ্ছিল সেই রোবটটি। কিন্তু কাজের চাপে সে নাকি এতই বিরক্ত হয়ে পড়েছিল যে, নিজেই আত্মহননের পথ বেছে নেয়। রাতে মালিক ঘুমিয়ে পড়ার পর রান্নাঘরে গিয়ে গ্যাস জ্বালিয়ে আগুনে পুড়ে মরে সেই রোবটটি। এরপর সেই আগুন গোটা বিল্ডিংয়ে ছড়িয়ে পড়ে। আগুন নেভানোর পর তদন্তে নেমে এই ঘটনা সামনে আসে। তবে মালিক বলেছেন, তিনি রোবটের সুইচ অফ করে রাতে শুতে গিয়েছিলেন। রোবটের পক্ষে কীু আত্মহত্যা করা সম্ভব! প্রশ্নের জবাবে বিজ্ঞানীরা হাসছেন। কেউ কেউ বলছেন, যেভাবে রোবট তৈরি হচ্ছে তাতে ব্যাপারটা একেবারে অসম্ভব নয়। সূত্র : ইন্টারনেট
১৭শ’ বছর পুরোনো কফিন উদ্ধার: যার মূল্যমান ২ কোটি ৫০ লক্ষ টাকা!
ব্রিটেনের একটি মাঠ খুঁড়ে পাওয়া গেলো ১৭শ’ বছর পুরোনো এক শিশুর কফিন। ধারণা করা হচ্ছে এটি তৃতীয় শতকের রোমান কোন ধনী ব্যক্তির শিশু সন্তানের কফিন।
ঘটনার শুরু হয় আরও আগে থেকে, যেখানে এই কফিন পাওয়া গিয়েছে এই যায়গার আরো দুই কিলোমিটার উত্তরে মাটির নিচে থাকা গুপ্ত ধন শিকারিরা অনুসন্ধান চালাচ্ছিল। অনুসন্ধান চালাতে চালাতে লিসেস্টারসেয়ার ঐ মাঠের খুব কাছে চলে আসলে ধন শিকারিদের মেটাল ডিটেক্টর হটাৎ ইঙ্গিত দেয় মাটির নিচে ধাতব কিছুর। পরে মাটি খুঁড়ে এই কফিন উদ্ধার করা হয়।
তবে ঠিক কোন যায়গায় কফিনটি পাওয়া গেছে তা এখনো গোপন রাখা হয়েছে কারণে ধারণা করা হচ্ছে এটি খ্রিষ্টান ধনী ব্যক্তিদের সমাধি স্থল ছিল। এখানে আরো অনেক গুপ্তধন পাওয়ার আশা করছেন ঐ গুপ্ত ধন সন্ধানী দল।
এশিয়ার ‘নীরব ঘাতক’ ডায়াবেটিস
এশিয়ার এক নীরব ঘাতকে পরিণত হয়েছে ডায়াবেটিস। এত দিন এ রোগটিকে ধনীদের ব্যাধি বলে বিবেচনা করা হতো। কিন্তু এখন এশিয়ার দরিদ্ররা এই ব্যাধির সবচেয়ে বড় ভুক্তভোগী। গত বৃহস্পতিবার বিবিসি অনলাইনে প্রকাশিত প্রতিবেদনে জানানো হয়, বিশ্বে চীন ও ভারতে ডায়াবেটিসে আক্রান্ত মানুষের সংখ্যা সবচেয়ে বেশি।
চীনে ডায়াবেটিস-আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা নয় কোটি ৮০ লাখের বেশি, যা দেশটির মোট জনসংখ্যার ১০ শতাংশ। চীনের মতো ভারতের অবস্থাও উদ্বেগজনক। দেশটিতে ছয় কোটি ১১ লাখ মানুষ ডায়াবেটিসে আক্রান্ত।
গত ৩০ বছর কোরিয়া, ইন্দোনেশিয়া ও থাইল্যান্ডেও ডায়াবেটিস-আক্রান্তদের সংখ্যা বেড়েছে।
এশিয়ায় ডায়াবেটিস-আক্রান্তদের হার বিশ্লেষণ করে হংকংয়ের চাইনিজ বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক জুলিয়ান চ্যান মন্তব্য করেন, ‘নীরব জনগোষ্ঠীর মধ্যে এক নীরব ঘাতকে পরিণত হয়েছে ডায়াবেটিস।’
রাখাল রোবট!
অদূর ভবিষ্যতে হয়তো ছড়ার চেহারা হবে এমন ‘রোবট গরুর পাল লয়ে যায় মাঠে, শিশুগণ দেয় মন নিজ নিজ পাঠে’। হ্যাঁ, এবার গরু দেখাশোনা করতে রোবট ব্যবহারের কথা ভাবছে অস্ট্রেলিয়ার ডেইরি ফার্মগুলো।
এক খবরে বিবিসি জানিয়েছে, গবেষণায় দেখা গেছে ডেইরি ফার্মের গরুগুলো চার চাকার রোবটকে সহজেই মেনে নিচ্ছে।
অস্ট্রেলিয়ায় অনেক দিন ধরেই ডেইরি ফার্মে গরুর দুধ দোয়াতে ব্যবহৃত হয় স্বয়ংক্রিয় যন্ত্র। এবার ফার্মের অন্যান্য কাজের উপযোগী রোবট বানিয়েছেন সিডনি ইউনিভার্সিটির একদল গবেষক। শুধু দিনে নয়, রাতেও রোবটটি ফার্মের গাছপালা ও অন্যান্য জিনিস দেখাশোনা করতে পারবে। রোবটটি প্রাথমিক পর্যায়ে থাকলেও এখনই কিনতে আগ্রহ প্রকাশ করেছে কৃষকরা। নির্মাতারা জানিয়েছেন, রোবটটিকে আরও উন্নয়ন করে তবেই বাজারে ছাড়া হবে।
ঘরের কাজ করতে আসছে রোবটের দল
জাপানের বৃদ্ধ-বৃদ্ধাদের সাহায্য করতে এখন ব্যবহৃত হচ্ছে রোবট। বেশকিছু কোম্পানি তৈরি করেছে বিশেষ ধরনের রোবট, যারা ঘর পরিষ্কার করা থেকে শুরু করে চুলে শ্যাম্পু পর্যন্ত করে দিতে সক্ষম। প্যানাসনিক কোম্পানি এমন একটি বিছানা তৈরি করেছে যা হুইল চেয়ার হিসেবেও ব্যবহার করা সম্ভব। এমন একটি রোবটও তারা তৈরি করেছে, যে রোবটটি বৃদ্ধ বা বৃদ্ধার চুলে শ্যাম্পু করতে এবং চুল ধুয়ে দিতে সাহায্য করবে। কোম্পানির পরিচালক, ইয়ুকিও হোন্ডা বলেন, ‘আমাদের লক্ষ্য হলো সমাজের বৃদ্ধ-বৃদ্ধাদের সাহায্য করা। শারীরিকভাবে যারা আর আগের মতো পরিশ্রম করতে পারেন না, তাদের প্রতিদিনের জীবনকে আরও সহজ করে তোলা। টয়োটা মোটর কোম্পানি তৈরি করছে এমন একটি রোবট, যা সঙ্গী হবে নিঃসঙ্গ মানুষের। তারা ঘর পরিষ্কার করবে, প্রয়োজনীয় ওষুধটি কাছে এনে দেবে, হাঁটা-চলার সময় একটি হাত ধরে রাখবে। এ ধরনের সেবা দেবে রোবট।

অ্যাঙ্গোলায় নিষিদ্ধ হলো ইসলাম: মসজিদ ভাঙার নির্দেশ!
মুসলিম চরমপন্থিদের দমন করতে অ্যাঙ্গোলার প্রেসিডেন্ট ঔড়ংল্ক ঊফঁধৎফড় ফড়ং ঝধহঃড়ং দেশটিতে ইসলাম নিষিদ্ধ করেছেন। সেই সাথে তিনি পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত মসজিদ ভেঙে ফেলতেও নির্দেশ দিয়েছেন। এর মধ্য দিয়ে ইতিহাসের প্রথম ইসলাম নিষিদ্ধ রাষ্ট্র হিসেবে আত্মপ্রকাশ করতে যাচ্ছে অ্যাঙ্গোলা।
আঙ্গোলার গরহরংঃবৎ ড়ভ ঈঁষঃঁৎব, জড়ংধ ঈৎুঁ সংবাদ মাধ্যমে বলেছেন, “মানবাধিকারের বিভিন্ন বিষয়ের সাথে ইসলাম ধর্ম কোনোভাবেই যায় না, বলে মসজিদ বন্ধ হয়ে যাবে।” অবশ্য অ্যাঙ্গোলার সরকার ইতিমধ্যেই মসজিদ ভাঙার নির্দেশ দিয়ে দিয়েছে।
তিনি আরও বলেন, ‘অ্যাঙ্গোলার সমাজ এবং সংস্কৃতির সাথে যায় না এমন যেকোনো কিছুই নিষিদ্ধ করতে তাঁর সরকার বদ্ধ পরিকর। তাঁদের কাছে সবার আগে গুরুত্ব পাবে তাঁদের নিজেদের সংস্কৃতি। এ দেশে ইসলাম প্রচার করা এখন নিষিদ্ধ। এখন থেকে আর কোনো ইসলামী প্রভাব প্রতিপত্তি চলবে না।”
উল্লেখ্য, ২০০৮ সালে অমুসলিমদের উপর মুসলমানদের হামলার পর থেকে দেশটিতে ইসলাম বিরোধী মনোভাব প্রকট আকার ধারণ করে। অ্যাঙ্গোলা খ্রিষ্টান অধ্যুষিত দেশ। দেশটিতে প্রায় ১৬ মিলিয়ন খ্রিষ্টানের বসবাস। যেখানে মুসলিমদের সংখ্যা মাত্র ৮০ থেকে ৯০ হাজার।

আবিষ্কার হল ৩ হাজার ৭’শ বছর পুরোনো বিশাল এক মদের ভাণ্ডার!
প্রতœতত্ত্ববিদরা প্রায় ৩ হাজার ৭’শ বছর পুরোনো ব্রোঞ্জ যুগের এক ব্যক্তিগত ভূগর্ভস্থ মদের ভাণ্ডার আবিষ্কার করেছেন যেখানে ছিল প্রায় ৫০০ গ্যালন মদ!
গবেষকরা জানিয়েছেন সদ্য আবিষ্কৃত এই ভূগর্ভস্থ মদের ভাণ্ডার প্রায় ৩ হাজার ৭’শ বছর পুরোনো অর্থাৎ এটি খ্রিষ্ট পূর্ব ১৭০০ সালের দিকের এক পুরাতত্ত্ব নিদর্শন!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


Hit Counter provided by Skylight