দেশ বিদেশের খবর

স্থগিত হওয়া ১৫৯ বাংলাদেশিকে মিয়ানমার থেকে দেশে আনা হবে ৫ আগস্ট
খারাপ আবহাওয়ার কারণে মিয়ানমারের জলসীমা থেকে উদ্ধার হওয়া অভিবাসন প্রত্যাশীদের মধ্যে স্থগিত হওয়া ১৫৯ বাংলাদেশিকে মিয়ানমার থেকে ৫ আগস্ট দেশে ফেরত আনা হবে বলে জনিয়েছে আন্তর্জাতিক অভিবাসন সংস্থা (আইওএম)।  গত বৃহস্পতিবার এদের ফেরত আনার কথা থাকলেও দুর্যোগপূর্ণ আবহাওয়ার কারণে তা স্থগিত করা হয়েছিল।
আন্তর্জাতিক অভিবাসন সংস্থা (আইওএম) এর ন্যাশনাল প্রোগাম অফিসার আসিফ মুনীর জানিয়েছিলেন, বাংলাদেশি হিসেবে শনাক্ত ১৫৯ জনকে ফেরত আনার সকল প্রস্তুতি চলছে।  ফেরত আসার অপেক্ষায় থাকা বাংলাদেশি হিসেবে শনাক্ত ১৫৯ জন ১০টি জেলার বাসিন্দা। এর মধ্যে নরসিংদীর ৮০ জন, চট্টগ্রামের ১৮ জন, হবিগঞ্জের ১৭ জন, কিশোরগঞ্জের ১৩ জন, নারায়ণগঞ্জের ১২ জন, ফরিদপুরের ১২ জন, শরীয়তপুরের ৩ জন, নওগাঁর ২ জন, নাটোরের ১ জন ও বরিশালের ১ জন বাসিন্দা রয়েছে। এদের মধ্যে অপ্রাপ্ত বয়স্ক রয়েছে ১৬

আগামী দশকেই মানুষের চাঁদে বসবাসের সম্ভাবনা
আগামী এক দশকের মধ্যে মানুষ হয়তো চাঁদে বসবাস করতে পারবে। নাসার অর্থায়নে পরিচালিত এক গবেষণায় এ সম্ভাবনার কথা বলা হয়েছে।
নেক্সজেন স্পেস নামের একটি প্রতিষ্ঠান এই গবেষণা চালিয়েছে। প্রতিষ্ঠানটি চাঁদে অবতরণের রোডম্যাপ তৈরি করছে।
অ্যাপোলো-১১ মহাকাশ যানের অভিযাত্রীদের চাঁদের মাটিতে পা রাখার ৪৬তম বার্ষিকী ছিল ২০ জুলাই। ওই দিন এই ঘোষণা দেয়া হয় বলে খবর প্রকাশ করেছে আমেরিকার তথ্য ও প্রযুক্তি বিষয়ক ওয়েবসাইট ভার্জ।
নেক্সজেনের প্রতিবেদনে বলা হয়, ২০২১ সাল নাগাদ একটি স্থায়ী মহাকাশ স্টেশন  তৈরি সম্ভব হবে এবং তার পরের বছরই মানুষ ফের চাঁদে হাঁটতে পারবে।

ছিটমহলগুলোতে শুরু হয়েছে আনন্দ উৎসব
পঞ্চগড়ের বিভিন্ন ছিটমহলে শুরু হয়েছে আনন্দ উৎসব। আটষট্টি বছরের দুঃখ, কষ্ট আর যন্ত্রণা কথা ভুলে ছিটমহলবাসী সুন্দর আগামীর স্বপ্ন নিয়ে মেতে উঠেছে আনন্দ উল্লাসে। বাংলাদেশের অভ্যন্তরে অবস্থিত ১১১টি ছিটমহলেই আজ শুক্রবার সকাল থেকে শুরু হয়েছে খেলাধুলা ও রংখেলা। প্রত্যেকটি ছিটমহলে চলছে উৎসবমুখর পরিবেশ। ‘আমার সোনার বাংলা, আমি তোমায় ভালোবাসি’ জাতীয় সংঙ্গীত আর বাংলাদেশের জাতীয় পতাকা উত্তোলনের মাধ্যমে শুরু হয় ৩১ জুলাইয়ের সকাল। শিশু-কিশোর, কিশোরীরাই নয়, মধ্য বয়সী এবং বৃদ্ধরাও আনন্দ উল্লাস করছেন। আজকের সকালটাকেও ছিটমহলবাসী ঈদ উৎসবের মতোই পালন করে। ঘুম থেকে উঠেই নতুন জামা-কাপড় পড়ে বাড়ির বাইরে বেরিয়ে পড়েন।

ইসরাইলীদের দেয়া আগুনে ফিলিস্তিনী শিশুর মৃত্যু
পশ্চিম তীরে ইসরাইলী বসতি স্থাপনকারীদের দেয়া আগুনে ১৮ মাস বয়সী এক ফিলিস্তিনী শিশু মারা গেছে। এই ঘটনায় শিশুটি বাবা-মা আহত হয়েছেন।
শুক্রবার ফিলিস্তিনের নিরাপত্তা কর্মকর্তারা এ কথা জানান।
জানা গেছে, চার ইসরাইলী বসতি স্থাপনকারী একটি ফিলিস্তিনি গ্রামের প্রবেশ পথে একটি বাড়িতে আগুন ধরিয়ে এবং একটি দেয়ালে বিভিন্ন কুৎসামূলক লেখা লিখে পার্শ্ববর্তী বসতিতে পালিয়ে যায়।
উগ্র-ডানপন্থী ইসরাইলী কর্মীরা ফিলিস্তিনি ও আরব ইসরাইলীদের ওপর দীর্ঘদিন ধরেই সহিংসতা চালিয়ে আসছে। এছাড়াও তারা খ্রিষ্টান ও মুসলিম উপসনালয়েও হামলা চালায়। এমনকি ইসরাইলী সৈন্যদের ওপর হামলা চালায়।

উত্তরায় তরুণীকে গণধর্ষণের অভিযোগ
রাজধানীর উত্তরায় এক তরুণীকে গণধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। নির্যাতিতার বাড়ি বরিশালে। তিনি উত্তরায় বোনের বাসায় থাকেন। একটি বিপণিকেন্দ্রে বিক্রয়কর্মী হিসেবে তিনি কাজ করছেন।

নির্যাতিতার ভগ্নিপতি জানিয়েছেন, রাতে কাজ শেষে তিনি বাড়ি ফিরছিলেন। এ সময় রাজলক্ষ্মী কমপ্লেক্সের কাছে তার সহকর্মী আরিফ ও দুই সহযোগী তাকে জোর করে একটি ভবনের নিচতলায় নিয়ে যায়। সেখানে তার উপর নির্যাতন চালানো হয়। অসুস্থ অবস্থায় বাসায় ফিরলে তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়।

শাহজালালে পাচারকারীর পেট থেকে সোনা উদ্ধার
শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে এক পাচারকারীর পেট থেকে ছয়টি সোনার বার জব্দ করা হয়েছে। ঢাকা কাস্টমস হাউজের কর্মকর্তারা কয়েক ঘণ্টা চেষ্টা চালিয়ে এসব সোনার বার উদ্ধার করেন। পায়ু পথে বারগুলো পেটে ঢুকিয়ে দুবাই থেকে নিয়ে আসেন রফিকুল নামের পাচারকারী।
শুল্ক কর্মকর্তারা জানান, রফিকুলের কাছ থেকে ছয়টি সোনার বার উদ্ধার করা হয়। ৭০০ গ্রাম ওজনের এসব বারের মূল্য প্রায় ৪০ লাখ টাকা। রফিকুলের বাড়ি বরিশাল জেলায়।

হজের নামে সউদীতে মানব পাচারকারী চক্র শনাক্ত

হজের নামে সউদী আরবে মানব পাচারকারী চক্র শনাক্তকরণ (বাছাই) কার্যক্রম গতকাল বুধবার ভোরে সম্পন্ন হয়েছে। ধর্ম মন্ত্রণালয় কর্তৃপক্ষ গত বৃহস্পতিবার শনাক্তকৃত ভুয়া হজযাত্রীর তালিকার সংখ্যা প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে হজ্জ ব্যবস্থাপনা সংক্রান্ত বৈঠকে পেশ করবে। কতিপয় অসাধু হজ্জ এজেন্সির মালিক মুয়াল্লেম ফি জমা দেয়ার ব্যাংক তালিকা নিয়েও জালিয়াতির আশ্রয় নেয়ায় বাছাই কমিটির সদস্যরা হতবাক হন। দুপুরে পরিচালক হজ্জ ড. আবু সালেহ মোস্তফা কামাল তার দপ্তরে শনাক্তকৃত ভুয়া হজ্জযাত্রীর প্রকৃত সংখ্যা জানাতে পারেননি। রাতের মধ্যে গণনার কাজ সম্পন্ন করে শনাক্তকৃত ভুয়া হজ্জযাত্রীর সংখ্যার ও দায়ী হজ্জ এজেন্সির সংখ্যা প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে অনুষ্ঠিতব্য বৈঠকে উপস্থাপন করা হবে বলে পরিচালক হজ্জ ড. আবু সালেহ মোস্তফা কামাল উল্লেখ করেন। কোটা বঞ্চিত ক্ষতিগ্রস্ত হজ্জ এজেন্সির মালিকরা শনাক্তকৃত ভুয়া হজ্জযাত্রীর স্থলে কোটা বঞ্চিত মুয়াল্লেম ফি জমা দেয়া হজ্জযাত্রীদের ডাটা এন্ট্রির সুযোগ দিয়ে হজ্জে প্রেরণের জন্য দৌড়ঝাঁপ শুরু করেছেন। গত ২৮ জুলাই পর্যন্ত প্রায় ১৭টি হজ্জ এজেন্সির ২১শ’ ১১ জন হজ্জযাত্রীর তথ্যাদি যাচাই-বাছাইয়ের জন্য হাজি ক্যাম্পে উপস্থিত না হয়ে গা-ঢাকা দিয়েছে। এসব হজ্জযাত্রীর ব্যাপারে কি সিদ্ধান্ত নেয়া হবে তা’ কেউ কিছু বলতে পারছে না। এদিকে আসন্ন হজ্জ কার্যক্রম শুরু হয়ে গেছে। হাজি ক্যাম্পে আইটি বিভাগ (বিজনেস অটোমেশন লিমিটেডের) সার্বিক তত্ত্বাবধানে গত ২৭ জুলাই থেকে হজ্জযাত্রীদের ভিসা লজমেন্টের কার্যক্রম পুরোদমে শুরু হয়েছে।

১৮ সেপ্টেম্বর মেডিক্যাল ও ডেন্টাল কলেজের ভর্তি পরীক্ষা
আগামী ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৫-১৬ শিক্ষাবর্ষে দেশের সকল মেডিক্যাল ও ডেন্টাল কলেজের ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে।
মঙ্গলবার স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ে এমবিবিএস ও বিডিএসের প্রথম বর্ষে ভর্তি নিয়ে অনুষ্ঠিত সভায় এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। সভা শেষে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব (উন্নয়ন ও চিকিৎসা শিক্ষা) আইয়ুবুর রহমান খান একথা জানান।
আইয়ুবুর রহমান খান বলেন, ‘মেডিক্যালে ভর্তি পরীক্ষা আগামী ১৮ সেপ্টেম্বর শুক্রবার নেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে ওই সময়ে শুক্রবারগুলোতে ভর্তি পরীক্ষা থাকায় আর আমরা সময় পাচ্ছি না। আর সময় পাওয়া যায় ১৩ নভেম্বর। তবে মন্ত্রীর নেতৃত্ব আগামী মাসে আরও একটি সভা হবে। আমরা ১৮ সেপ্টেম্বরই পরীক্ষা নিতে চাচ্ছি। এছাড়া ভর্তির অন্যান্য বিষয়গুলো গত বছরের মতো থাকছে বলেও তিনি জানান।
দেশে বর্তমানে ২৯টি সরকারি মেডিক্যাল কলেজে এমবিবিএস কোর্সে তিন হাজার ১৬২টি আসন এবং ৬৪টি বেসরকারি মেডিক্যাল কলেজে পাঁচ হাজার ৩২৫টি আসন রয়েছে। এছাড়া ৯টি সরকারি ডেন্টাল কলেজ ও মেডিক্যাল কলেজগুলোর ডেন্টাল ইউনিট মিলিয়ে বিডিএস কোর্সে মোট ৫৩২টি ও ২৪টি বেসরকারি ডেন্টাল কলেজে এক হাজার ২৮০টি আসন রয়েছে।

আন্তর্জাতিক বাজারে সোনার দাম হু হু করে কমছে। কেন এমনটা হচ্ছে?
বিশেষজ্ঞদের মতে, সাম্প্রতিক কিছু ঘটনার জেরে ঝুঁকি এড়ানোর সম্ভাবনা কমে যাওয়ায় সোনার দাম হু হু করে নেমেছে। উদাহরণ হিসেবে বলা যায় গ্রিসের সমস্যার আপাত সমাধান এবং আমেরিকার সঙ্গে ইরানের পরমাণু চুক্তি সম্পাদন। বিশ্বে সোনার সবচেয়ে বড়  খদ্দের চীন সম্প্রতি বিপুল পরিমাণে বিক্রি করেছে। পাশপাশি, ইউ এস ফেড-এর সুদের হার বাড়ানোর জেরে ডলারের দাম বাড়ার বিষয়টিও গুরুত্বপূর্ণ।
বিশেষজ্ঞদের মতে, এই মুহূর্তে সোনার দাম বাড়ার সম্ভাবনা নেই। তাদের দাবি, ‘এই মুহূর্তে বিনিয়োগ করার জন্য সোনা বাছতে চাইছেন না কেউ।’ উল্লেখ্য, বিশ্বের বৃহত্তম বিনিময় ব্যবসা তহবিল (ইটিএফ) এসপিডিআর গোল্ড ট্রাস্টের মোট গোল্ড হোল্ডিং ২০১২ সালে ১২৯১ টন থেকে নেমে হালে ৬৯০ টনে পৌঁছেছে। অর্থাৎ ৪৭ শতাংশ পড়তি।

সোনা সম্পর্কে আরো উদ্বেগ উস্কে দিয়ে সম্প্রতি চীন ও ভারতের বাজারে তার চাহিদা কমে গেছে। চীনের বর্তমান অর্থনৈতিক জটিলতার কারণে আগামী কয়েক মাসে গয়নার সোনার চাহিদা প্রভাবিত হবে।

উচ্চ শিক্ষার পথ হারাচ্ছে কওমীর শিক্ষার্থীরা
কওমী মাদরাসাকে মূল ধারায় নিয়ে আসার চেষ্টা হলেও নিজেদের কর্তৃত্বে ভাটা পড়ার শঙ্কায় সাড়া দিচ্ছেন না তারা। এতে ইচ্ছে থাকলেও উচ্চ শিক্ষার পথ থেকে বঞ্চিত হচ্ছে বিপুল সংখ্যক শিক্ষার্থী।
ডিজিটাল যুগে আমাদের পড়ানোর ধরন অ্যানালগের চেয়েও পিছিয়ে। একেতো আমরা সাধারণ শিক্ষা নিতেই পারছি না, তার সঙ্গে যুগের সঙ্গে তাল মিলিয়ে চলার পথও হারাচ্ছি।
অবশ্য এ বিষয়টি নিয়ে মোটেও চিন্তিত নয় বাংলাদেশ কওমী মাদরাসা শিক্ষা বোর্ড।
যাত্রাবাড়ি এলাকার একটি কওমী মাদরাসার নবম শ্রেণির শিক্ষার্থী যেমন নাম প্রকাশ না করার শর্তে বললেন, পরিবারের অন্যান্য সদস্য সাধারণ শিক্ষা গ্রহণ করলেও তাকে এখানে পাঠানো হয়েছিল। থাকার ইচ্ছে না থাকলেও এখন সে ফিরে যেতে পারছে না।
“আমি কয়েকবার চেষ্টাও করেছিলাম। তবে পিএসসি এবং জেএসসি পাসের সনদ না থাকায় নবম শ্রেণিতে ভর্তি হতে পারিনি। একটি সুযোগ আছে তা হলো নতুন করে আবার শুরু করা।”
২০১০ সাল থেকে ইবতেদায়ী পরীক্ষা চালুর পরে কওমী শিক্ষার্থীদের মূল ধারার (আলিয়া) মাদরাসায় ভর্তির সুযোগ বন্ধ হয়ে যায়।
মাদরাসা শিক্ষা বোর্ডের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান এ কে এম ছায়েফ উল্যা জানান, শুধুমাত্র ইবতেদায়ী পরীক্ষা দিতে অল্প কিছু সংখ্যক শিক্ষার্থী এখনো আলিয়া মাদ্রাসায় ভর্তি হয়।
মোল্লা ওমরের মৃত্যুর খবর নিশ্চিত করল হোয়াইট হাউজ
আফগান তালেবানের সাবেক নেতা  মোল্লা ওমরের মৃত্যুর খবর নিশ্চিত করেছে মার্কিন প্রেসিডেন্টের সদর দপ্তর  হোয়াইট হাউজ।
গত বুধবার আফগান গোয়েন্দা সংস্থা  ঘোষণা করে যে, ২০১৩ সালের এপ্রিল মাসে মোল্লা ওমর পাকিস্তানের বন্দরনগরী করাচিতে ‘বিশেষ পরিস্থিতির ভেতরে’ মারা যান।
এ বিষয়ে হোয়াইট হাউজ গতকাল বলেছে, আফগান গোয়েন্দা সংস্থার এ রিপোর্ট মার্কিন গোয়োন্দারাও পর্যলোচনা করে দেখেছে এবং আফগান রিপোর্টের সত্যতা পেয়েছে।
মার্কিন প্রশাসন তার ভাষায় বলেছে, “যদিও মোল্লা ওমরের মৃত্যুর কারণ নিশ্চিত করে জানা যায় নি তবে কয়েক দশকের যুদ্ধ ও হাজার হাজার মানুষের প্রাণহানির পর এটা পরিষ্কার যে, তার মৃত্যুর পর আফগানিস্তান আরো বেশি স্থিতিশীলতা ও নিরাপত্তার  দিকে এগিয়ে যাওয়ার সুযোগ পাবে।”

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


Hit Counter provided by Skylight