দেশ বিদেশের খবর

২০ হাজার টাকায় যাওয়া যাবে সৌদি আরব!
বাংলাদেশি শ্রমিকরা মাত্র ২০ হাজার টাকায় সৌদি আরব যেতে পারবে বলে জানালেন প্রবাসী কল্যাণমন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার খন্দকার মোশাররফ হোসেন। দেশটির রাজধানী রিয়াদে প্রবাসীদের দেয়া এক সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন মন্ত্রী। খবর সময় টেলিভিশনের। এসময় মন্ত্রী বলেন, দীর্ঘদিন বন্ধ থাকার পর আবারো শ্রমিক নেয়ার ব্যাপারে আগ্রহ প্রকাশ করেছে সৌদি সরকার। গভার্নমেন্ট টু গভার্নমেন্ট – জি টু জি- প্রক্রিয়ায় এ শ্রমিক নেয়া হবে। এ ব্যাপারে চলতি মাসেই একটি সৌদি প্রতিনিধি দল ঢাকা সফর করবে বলে জানান মন্ত্রী।
১২ মিলিয়ন মুসলমান হত্যায় বিশ্ব নীরব’
প্যারিসে গত সপ্তাহে ১২ জনকে হত্যার পর বিশ্বজুড়ে হইচই হচ্ছে, অথচ গত ১০ বছরে ইসলামি বিশ্বে প্রায় এক কোটি ২০ লাখ মুসলমানকে হত্যা করা হলেও নীরবতা দেখা গেছে। তুরস্কের ধর্মবিষয়ক বিভাগের প্রধান মোহাম্মদ গোরমেজ মঙ্গলবার এ মন্তব্য করেছেন।
তিনি বলেন, ‘একদিনে গত ১০ বছরে ইসলামি বিশ্বে প্রায় ১২ মিলিয়ন নির্মমভাবে লোককে হত্যা করা হয়েছে। আর অন্যদিকে প্যারিসে গত সপ্তাহে ১২ জনকে নৃশংসভাবে হত্যা করা হয়েছে।’
তিনি বলেন, মাত্র ১২ জনকে খুন করার পর যে সভা-সমাবেশ হলো, ১২ মিলিয়নকে হত্যার ঘটনায় তেমন কিছুই দেখা যায়নি। গোরমেজ আরো বলেন, তা-ই বলে প্যারিসের হামলাকে কোনোভাবেই গ্রহণযোগ্য মনে করা হচ্ছে না। কোনো মুসলমান বা কোনো বোধসম্পন্ন লোক এ ধরনের হত্যাকাণ্ড গ্রহণযোগ্য মনে করতে পারে না।গত বুধবার প্যারিসে কার্টুন পত্রিকা চার্লি হেবদোতে আক্রমণ হলে ১২ জন নিহত হয়। পত্রিকাটিতে মহানবী হযরত মোহাম্মদের (সা.) বিদ্রুপাত্মক কার্টুন প্রকাশ করে আসছিল।

৫০ হাজার টাকা দিয়েই হজের নিবন্ধন
হজের টাকা কিস্তিতে পরিশোধের সুযোগ রেখে সরকারি ও বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় হজ যাত্রীদের নিবন্ধন ফি গ্রহণের সময়সীমা পুনর্নিধারণের প্রস্তাব অনুমোদন করেছে মন্ত্রিসভা।
৫ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত সরকারি ব্যবস্থাপনার হজযাত্রীরা ৫১ হাজার ৬৯০ টাকা ও বেসরকারি ব্যবস্থাপনার হজযাত্রীরা ৪৮ হাজার ৩৩১ টাকা দিয়ে নিবন্ধন করতে পারবেন। হজ প্যাকেজের বাকি টাকা ১০ জুনের মধ্যে জমা দিতে হবে।
সচিবালয়ে মন্ত্রিপরিষদ সভাকে সোমবার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত মন্ত্রিসভা বৈঠকে এ অনুমোদন দেওয়া হয়। বৈঠক শেষে মন্ত্রিপরিষদ সচিব মোহাম্মদ মোশাররাফ হোসাইন ভূইঞা প্রেস ব্রিফিংয়ে এ অনুমোদনের কথা জানান।
চাঁদ দেখা সাপেক্ষে এ বছরের ২২ সেপ্টেম্বর (৯ জিলহ্জ) পবিত্র হজ অনুষ্ঠিত হবে। বাংলাদেশ থেকে এবার ১ লাখ ১ হাজার ৭৫৮ জন হজ পালন করতে পারবেন। এর মধ্যে সরকারি ব্যবস্থাপনায় ১০ হাজার ও বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় এজেন্সিগুলোর মাধ্যমে ৯১ হাজার ৭৫৮ জনের হজ পালন করার সুযোগ রয়েছে বলে ধর্ম মন্ত্রণালয় থেকে জানা গেছে।
ভারতে জেরুসালেমমুখী সুপ্রাচীন মসজিদ
ভারতীয় উপমহাদেশের সব থেকে প্রাচীন মসজিদ কোনটি? এ প্রশ্নের জবাবে বেশির ভাগ ঐতিহাসিকই বলে থাকেন, ‘কেবলার চেরামান জুমা মসজিদ’ই উপমহাদেশের সব থেকে পুরাতন মসজিদ। এটি ৬২৯ খ্রিষ্টাব্দে নির্মিত হয়েছিল। কেরালার স্থানীয় রাজা চেরামান পেরুমল সেই প্রথম যুগেই আরব ব্যবসায়ীদের হাতে অনুমতিক্রমেই মসজিদটি নির্মিত হয়েছিল।
তবে সম্প্রতি এক চাঞ্চল্যকর তথ্য আবিষ্কৃত হয়েছে। আর তা হলো ভারতের গুজবটি-উপকূলের ভাবনগরের ঘোঘা জনপদে একটি প্রাচীন মসজিদ রয়েছে যার রুখ বা কিবলা হচ্ছে জেরুসালেমের দিকে। উল্লেখ্য, জেরুসালেমের মসজিদুল আকসাই ছিল মুসলমানদের প্রথম কিবলা।
অর্থাৎ প্রথমে রাসূল হযরত মোহাম্মদ সা.-এর নেতৃত্বে মুসলমানেরা জেরুসালেমের মসজিদুল আকসার দিকেই মুখ করে নামায পড়তেন। মদীনায় হিজরতের পর হিজরি ২ সালে কিবলা পরিবর্তন সম্পর্কে কুরআন শরীফের এক আয়াত নাযিল হওয়ার পর রাসূল সা. তাঁর সাহাবাদের নিয়ে মক্কায় অবস্থিত পবিত্র কাবা শরিফের দিকে মুখ করে নামায পড়া শুরু করেন।
সেই থেকে সারা বিশ্বের মুসলমানরাই কাবা শরিফকে কিবলা জেনে সেদিকে মুখ করে নামায আদায় করে থাকেন। ভাবনগরের জেরুসালেমের দিকে মুখ করা মসজিদটির অস্তিত্ব প্রমাণ করছে ২ হিজরির আগেই হজরত মোহাম্মদ সা.-এর অনুগামীরা ব্যবসায় উপলক্ষে আরব থেকে ভারতীয় উপমহাদেশের ভাবনগর উপকূলে জাহাজে করে এসেছিলেন এবং তারাই এই প্রাচীন মসজিদটি নির্মাণ করেন। অর্থাৎ তখনো জেরুসালেমের দিকেই মুসলিমদের কিবলা ছিল এবং তা তখনো মক্কার দিকে পরিবর্তিত হয়নি।
ইরাকে এক বছরে সহিংসতায় ১৫ হাজারের বেশি নিহত
ইরাকে গত বছরের সহিংসতায় ১৫ হাজার ৫৩৮ জন নিহত হয়েছে। ইরাকের স্বাস্থ্য, স্বরাষ্ট্র ও প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় এ পরিসংখ্যান দিয়েছে। ২০১৪ সাল শেষ হওয়া উপলক্ষে এ পরিসংখ্যান প্রকাশ করা হয়েছে।
নিহতদের মধ্যে বেসামরিক ব্যক্তি ও নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যরা রয়েছে। প্রাণহানির দিক থেকে ২০০৩ সালের পর ২০১৪ সাল অন্যতম ভয়াবহ বছর। তবে জাতিসংঘের তথ্য অনুযায়ী, ২০১৪ সালে ইরাকে ১২ হাজার ২৮২ জন বেসামরিক লোক নিহত হয়েছে। ২০০৭ সালে সর্বোচ্চ ১৭ হাজার ৯৫৬ জন নিহত হয়েছিল।
রক্তক্ষয়ী বছর ২০১৪: কত মানুষ মারা গেল সিরিয়ায়?
সদ্য বিদায়ী ২০১৪ সালে সিরিয়ায় বিদেশি মদদপুষ্ট সন্ত্রাসীদের বর্বর সহিংসতায় ৭৬,০০০ মানুষ মারা গেছে। দেশটিতে প্রায় চার বছরের সংঘর্ষ-সহিংসতায় গত বছরই সবচেয়ে বেশি মানুষ নিহত হয়েছে। সে কারণে বিদায়ী বছরকে সিরিয়ার সহিংসতায় সবচেয়ে রক্তক্ষয়ী বছর হিসেবে গণ্য করা হচ্ছে।
নিহত ৭৬,০০০ মানুষের মধ্যে হাজার হাজার শিশু রয়েছে। ব্রিটেনভিত্তিক কথিত মানবাধিকার সংস্থা সিরিয়ান অবজারভেটরি ফর হিউম্যান রাইটস (বৃহস্পতিবার) এ তথ্য প্রকাশ করেছে।
লণ্ডনভিত্তিক বিরোধী গ্রুপটি বলেছে, গত বছরের সহিংসতায় ১৮,০০০ বেসামরিক লোক মারা গেছে যার মধ্যে ৩,৫০১টি শিশু রয়েছে। সিরিয়ান অবজারভেটরি ফর হিউম্যান রাইটসের রিপোর্টে আরো বলা হয়েছে, ২০১৪ সালে সিরিয়ার প্রেসিডেন্ট বাশার আল-আসাদ সরকারের বিরুদ্ধে সহিংসতায় লিপ্ত বিদেশি মদদপুষ্ট অন্তত ৩২,৭০০ সন্ত্রাসী নিহত হয়েছে। এছাড়া, সংঘর্ষে মারা গেছে প্রায় ২২,৬০০ সেনা।
২০১১ সালের মার্চ মাসে সিরিয়ায় বিদেশি মদদপুষ্ট সন্ত্রাসীদের সহিংসতা শুরুর পর এ পর্যন্ত দুই লাখের বেশি মানুষ মারা গেছে বলে জাতিসংঘ কিছুদিন আগে ঘোষণা করেছে।#
ইরান: মুসলিম-বৌদ্ধ সংলাপে মিয়ানমারের শীর্ষ ধর্মগুরু
বিশ্বে সহিংসতা ও যুদ্ধ-বিগ্রহ বেড়ে যাওয়ার প্রেক্ষাপটে তেহরানে অনুষ্ঠিত হয়েছে ইসলাম ও বৌদ্ধ ধর্ম বিষয়ক একটি সংলাপ। এ বৈঠকে যোগ দিয়েছেন মিয়ানমারের প্রধান বৌদ্ধ ধর্মগুরু অশিন নিয়ানসারা। তিনি বলেছেন: বিশ্বের সমস্ত সমস্যা ও সহিংসতার উৎস হলো মানুষের অজ্ঞতা। মানুষ যদি অন্য ধর্মগুলোর গুরুত্বপূর্ণ দিকগুলোর সঙ্গে পরিচিত হয় তাহলে তারা সুযোগ-সন্ধানীদের হাতের পুতুল হিসেবে ব্যবহৃত হবে না এবং এর ফলে ধর্মগুলোর মধ্যে সহিংসতাও কমে যাবে বলে তিনি মন্তব্য করেছেন।
মিয়ানমারে মুসলমানদের ওপর বৌদ্ধদের পরিকল্পিত গণহত্যার প্রেক্ষাপটে ইসলাম ও বৌদ্ধ ধর্মের মধ্যে বহুপাক্ষিক সংলাপের এই আয়োজনকে স্বাগত জানিয়েছেন মিয়ানমারের প্রধান বৌদ্ধ-ভিক্ষু। এ ধরনের সংলাপ ধর্মগুলোর মধ্যে পারস্পরিক পরিচিতি জোরদার এবং উগ্রবাদীদের হাতে ধর্মের অপব্যবহারও রোধ করবে বলে তিনি মন্তব্য করেছেন।
তেহরানে ইসলাম ও বৌদ্ধ ধর্ম বিষয়ক সংলাপের আয়োজন করেছে ইরানের ইসলামী সংস্কৃতি ও দিক-নির্দেশনা বিষয়ক সংস্থা। বৌদ্ধ ও মুসলমানদের মধ্যে সহযোগিতা জোরদার এবং সহিংসতা ও উগ্রবাদ ঠেকানো ছিল এই সংলাপের লক্ষ্য। ইরানের এই সংস্থা ধর্মগুলোর শিক্ষার আলোকে বিশ্বকে সন্ত্রাস ও সহিংসতামুক্ত করার আহ্বান জানিয়ে আসছে।
গত ৩০ ও ৩১শে ডিসেম্বরে অনুষ্ঠিত তেহরানের এই বৈঠক বা সংলাপে যোগ দিয়েছেন মিয়ানমার, শ্রীলংকা ও থাইল্যাণ্ডের সিনিয়র বৌদ্ধ নেতৃবৃন্দ এবং ইরানের মুসলিম চিন্তাবিদরাও।
শেষ হলো আফগান যুদ্ধ: নিহত ২,২০০ মার্কিন সেনা
আফগানিস্তানে ১৩ বছরের দীর্ঘ যুদ্ধের আনুষ্ঠানিক সমাপ্তি ঘোষণা করেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা। গতকাল (রোববার) তিনি এক বিবৃতিতে বলেছেন, “আমেরিকার ইতিহাসে দীর্ঘতম যুদ্ধের দায়িত্বশীল সমাপ্তি হলো।” ১৩ বছরের এ যুদ্ধে নিহত হয়েছে কমপক্ষে ২,২০০ মার্কিন সেনা।
হাওয়াই দ্বীপে অবকাশ যাপন অবস্থায় ওবামা এ বিবৃতি দিয়েছেন। এতে তিনি আফগান যুদ্ধের মিত্রদের প্রশংসা করে বলেছেন, মিত্র জোটের সেনাদের প্রচেষ্টায় আল-কায়েদা নেতৃত্বের মূল অংশ ভেঙে দেয়া সম্ভব হয়েছে, ওসামা বিন লাদেনকে হত্যা এবং অনেক সন্ত্রাসী হামলার পরিকল্পনা নস্যাত করা সম্ভব হয়েছে।
ওবামা বলেন, যুদ্ধের এই ১৩ বছরে মার্কিন জাতি ও সেনাবাহিনীর জন্য বিরাট পারীক্ষা হয়ে গেছে। তিনি জানান, তার ক্ষমতা গ্রহণের সময় ইরাক ও আফগানিস্তানে ১,৮০,০০০ সেনা মোতায়েন ছিল; এখন তা কমিয়ে ১৫ হাজারেরও নীচে আনা হয়েছে। শতকরা ৯০ ভাগ সেনাকে দেশে ফেরত নেয়া হয়েছে বলে জানান তিনি।
১৩ বছরের আফগান যুদ্ধে ৩,৫০০ বিদেশি সেনা মারা গেছে এবং আমেরিকার খরচ হয়েছে এক ট্রিলিয়ন ডলারের বেশি অর্থ। তবে, আফগান যুদ্ধের আনুষ্ঠানিক সমাপ্তি ঘোষণা করা হলেও দেশটিতে ১৩,৫০০ ন্যাটো সেনা অবস্থান করবে যার মধ্যে থাকবে ১১,০০০ মার্কিন সেনা।

অজ্ঞাত কবরে চিরনিদ্রায় শায়িত বাদশা আবদুল্লাহ
বিশ্বের সর্বকালের সেরা ধনীদের একজন ছিলেন সৌদি আরবের বাদশা আবদুল্লাহ। অথচ সাধারণ সাদা আবরণে অজ্ঞাত এক কবরে শুক্রবার চিরনিন্দ্রায় শায়িত হয়েছেন তিনি। তার পূর্বপুরুষদের মতই সাধারণ নাগরিকদের মত তাকে কবর দেয়া হয়েছে। সৌদি আরবের ওয়াহাবি মতবাদ অনুসারে লাশ নিয়ে আড়ম্বর এবং শোক প্রকাশ শিরকের শামিল। বাদশার মৃত্যুতে সৌদি আরবে সরকারিভাবে কোনো শোক দিবস পালনের ঘোষণা দেয়া হয়নি, জাতীয় পতাকাও অর্ধনমিত রাখা হয়নি। তার মৃত্যুতে সৌদি আরবের রাজপথে কোনো শোকলিও হয়নি, যদিও একটি অংশের কাছে আবদুল্লাহ জনপ্রিয় ছিলেন। শুক্রবার ও শনিবার যথারীতি অফিস বন্ধ থাকার পর রবিবার আবার খুলবে। এর আগে শুক্রবার আসরের নামাযের পর রাজধানী রিয়াদের গ্রান্ড মসজিদে তার নামাযের জানাযা অনুষ্ঠিত হয়। জানাযার নামাযে ইমামমতি করেন মসজিদের ইমাম তুর্কি বিন আব্দুল্লাহ। সৌদি বাদশার জানাযায় তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়্যেপ এরদোগান, পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরীফ, মধ্যপ্রাচ্যের বিভিন্ন দেশের শাসক এবং বহু দেশের প্রতিনিধিরা অংশ নেন। আসরের নামাযের পর শহরের একটি অ্যাম্বুলেন্সে করে বাদশার লাশ মসজিদে নিয়ে আসা হয়। জানাযার নামায শেষে সাধারণ স্ট্রেচারে করে বাদশার নিকটাত্মীয়রা সেটি বহন করে তাকে কবরে শায়িত করেন। বাদশাকে সমাহিত করার সময় কোনো আনুষ্ঠানিকতার আয়োজন ছিল না। তবে জীবদ্দশায় বাদশায় বিশ্বের সবচেয়ে ব্যয়ববহুল বিমানে ভ্রমণ করতেন। ২০০৬ সালে ফাঁস হওয়া মার্কিন কূটনৈতিক তারবার্তায় জানা যায় যে তিনি মার্কিন একজন কূটনীতিককে বলেছিলেন যে তার বিমানটিতেও যেন এয়ার ফোর্স ওয়ানের (মার্কিন প্রেসিডেন্টের বিমান) মতই নিরাপত্তা ব্যবস্থা সংযোজন করে দেয় বোয়িং। তবে অন্যান্য ক্ষেত্রে বাদশা আবদুল্লাহ তার ভাই এবং ভাতিজাদের মত বিলাসী জীবন যাপন করতেন না। তিনি ছিলেন মিতব্যয়ী। মধ্যপ্রাচ্যের ব্যয়বহুল প্রাসাদে অবকাশ যাপনের পরিবর্তে তিনি মরুভূমির শিবিরে সময় কাটাতেন। ক্ষমতায় থাকাকালে তিনি তার পরিবারের সদস্যদের ব্যয় হ্রাসের পদক্ষেপ নিয়েছিলেন। ওয়াহাবি মতবাদ অনুসারে কবর সাজসজ্জা করা মুসলিম উম্মাহর ঐক্যের পরিপন্থী। এজন্য মধ্যপ্রাচ্যের বিভিন্ন দেশে শিয়া দরবেশ আর ইমামদের মাজার ভেঙে ফেলার পক্ষে তারা। নিজেদের যাযাবর হিসেবে তুলে ধরতে বাদশা আবদুল্লাহর পূর্বসূরী এবং তার সৎ ভাইদের আল-আউদ কবরস্থানের অজ্ঞাত কবরে সমাহিত করা হয়েছে। তবে বাদশা আবদুল্লাহর নামে সৌদি আরবে বিশ্ববিদ্যালয়, মেডিকেল সিটি, স্কলারশিপসহ বহু স্থাপনার নাম রাখা হয়েছে। ইসলামের ওপর নির্ভরশীলতা বোঝাতে আবদুল্লাহ তার নামের আগে ‘দুটি পবিত্র মসজিদের জিম্মাদার’ উপাধি ব্যবহার করতেন। নতুন বাদশাহ সালমান বিন আব্দুল আজিজও একই উপাধি ধারণ করবেন। উল্লেখ্য, চিকিৎসাধীন অবস্থায় শুক্রবার রাত একটার সময় ইন্তেকাল করেন বাদশা আবদুল্লাহ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


Hit Counter provided by Skylight