দেশ-বিদেশের খবর

Des-Bideser Khobor copy

ইসলাম বিদ্বেষী প্রচারণায় চাকরি হারালো ইহুদি সাংবাদিক : ফ্রান্সজুড়ে হৈচৈ
ফ্রান্সকে সম্ভাব্য গৃহযুদ্ধ থেকে বাঁচাতে মুসলিম জনগোষ্ঠীকে বহিষ্কারের পরামর্শ দেয়ার পর একজন সুপরিচিত টিভি অ্যাংকরকে চাকুরিচ্যুত করা হয়েছে। কিন্তু আই টেলে নামের সংবাদ ভিত্তিক এই টিভি চ্যানেলের পদক্ষেপের পক্ষে-বিপক্ষে ফ্রান্স জুড়ে  শুরু হয়েছে তীব্র বিতর্ক। ব্রিটেনের দৈনিক দি ইন্ডিপেন্ডেন্টে প্রকাশিত খবর মতে, এরিক জেমোর নামে ইহুদি ওই সাংবাদিক সম্প্রতি ইটালির এক সংবাদপত্রের সাথে এক সাক্ষাৎকারে মন্তব্য করেন, ফ্রান্সকে বিশৃঙ্খলা এবং সম্ভাব্য গৃহযুদ্ধ থেকে রক্ষা করতে সেদেশের ৫০ লাখ মুসলিমকে বহিস্কার করা ছাড়া উপায় নেই। তিনি বলেন, এই পদক্ষেপ খুব কঠিন কিন্তু প্রয়োজনীয়। ইটালিয় ভাষায় প্রকাশিত তার এই সাক্ষাৎকারটি বেশি কিছুদিন কারো চোখে পড়েনি। কিন্তু ফ্রান্সের বামপন্থি একটি রাজনীতিক তার ব্লগে মি জেমোরের এই সাক্ষাৎকারটি ফরাসী ভাষায় অনুবাদ করে প্রকাশ করলে বিতর্কের ঝড় শুরু হয়। বিতর্কের মাঝে আই টেলে মি জেমোরকে চাকুরীচ্যুত করেছে। কিন্তু তার এই চাকুরীচ্যুতি নিয়ে এখন শুরু হয়েছে বিতর্ক। বর্ণবাদ বিরোধী রাজনীতিক সংগঠনগুলো আই টেলে টিভির এই পদক্ষেপকে স্বাগত জানিয়েছে। অন্যদিকে দক্ষিণপন্থি রাজনীতিকদের অনেকেই তার চাকুরিচ্যুতির কড়া সমালোচনা করছেন। এমনকি বামপন্থিদের অনেকেও বলছেন, এই চাকুরীচুুতি মত প্রকাশের স্বাধীনতার জন্য ক্ষতিকর।  বিবিসি

হজপালনকারীদের রেজিস্ট্রেশনের শেষ তারিখ ৫ ফেব্রুয়ারি
আগামী ২০১৫ ইংরেজি ও ১৪৩৬ হিজরী সনে পবিত্র হজ পালনকারীদের সরকারি ব্যবস্থাপনায় এক লাখ ৫১ হাজার ৬৯০ টাকা অথবা বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় এক লাখ ৪৮ হাজার ৩৩১ টাকা ৫০ পয়সা নির্দিষ্ট ব্যাংকে জমা দিয়ে আগামী ৫ ফেব্রুয়ারির মধ্যে রেজিস্ট্রেশন সম্পন্ন করতে হবে। প্যাকেজ মূল্যের বাকি টাকা আগামী ১০ জুনের মধ্যে জমা দিতে হবে। রেজিস্ট্রেশন ছাড়া কেউ পবিত্র হজব্রত পালনের জন্য সৌদি আরব যেতে পারবেন না। ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের হজ শাখার এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে একথা বলা হয়।

বেসরকারি হজ প্যাকেজ ঘোষণা
বেসরকারি হজ প্যাকেজ ঘোষণা উপলক্ষে হাব  সংবাদ সম্মেলন করে। এতে উল্লেখ করা হয়, সরকার ঘোষিত নতুন নিয়মে হজযাত্রী নিবন্ধনের সময় মুয়াল্লিম ফির সাথে বিমান ভাড়ার টাকা সরকারি কোষাগারে জমা না দেয়ার ঘোষণা দিয়েছে হজ এজেন্সিস অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (হাব)। প্রতারণা রোধে মুয়াল্লিম ফির সাথে বিমান ভাড়া জমা দেয়ার এ নতুন নিয়মে হজযাত্রীরা অসুবিধায় পড়বেন এবং এতে হজযাত্রী কমে যেতে পারে বলে মনে করছে হাব। হাব নেতাদের মতে, এতে প্রতারকদের শাস্তি নয়, হজযাত্রীদের জন্য শাস্তি হচ্ছে।
সংবাদ সম্মেলনে ২০১৫ সালের জন্য বেসরকারিভাবে কোরবানির টাকা ছাড়া সর্বনিম্ন দুই লাখ ৯৬ হাজার ২০৬ টাকার হজ প্যাকেজ ঘোষণা করা হয়। প্যাকেজ ঘোষণা করেন হাব সভাপতি মোহাম্মদ ইব্রাহিম বাহার।
এক প্রশ্নের জবাবে হাব মহাসচিব শেখ আব্দুল্লাহ বলেন, হজ এজেন্সিগুলো হজযাত্রীদের জন্য বিমানের টিকিট সংগ্রহ করবে। কিন্তু বিমান ভাড়ার টাকা কেন সরকারি কোষাগারে জমা দেবো? নিবন্ধনের সময় মুয়াল্লিম ফির টাকা ছাড়া বিমান ভাড়ার টাকা এজেন্সিগুলো সরকারি কোষাগারে জমা দেবে না।
সংবাদ সম্মেলনে হাবের পক্ষ থেকে ১০ দফা দাবি তুলে ধরা হয়। এতে হজযাত্রী নিবন্ধনের সময় শুধু মুয়াল্লিম ফি বাবদ ৩০ হাজার টাকা জমা নেয়ার জন্য ধর্ম মন্ত্রণালয়ের কাছে দাবি জানিয়ে বলা হয়েছে, বিমানের টিকিট মূল্য এক লাখ ২০ হাজার টাকা এই মুহূর্তে পরিশোধ করতে গেলে অহেতুক হজযাত্রীরা মানসিক চাপে থাকবেন। নিবন্ধনের ৩০ হাজার টাকা পরিশোধের পর যে টাকা বাকি থাকবে, তা মাসিক কিস্তিতে (৬ কিস্তি) পরিশোধের সুযোগ দেয়া হলে হজের তিন মাস আগেই শোধ হবে এবং টিকিটের অনিশ্চয়তাও কেটে যাবে।
থার্ড ক্যারিয়ারের দাবি জানিয়ে এতে বলা হয়, হজযাত্রী পরিবহনে আগ্রহী বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স এ ছাড়া সৌদি এয়ারলাইন্সসহ মধ্যপ্রাচ্যভিত্তিক সব এয়ারলাইন্সকে হজযাত্রী পরিবহনের জন্য উন্মুক্ত করতে হবে। আগামী রমজানের আগেই ফাইট শিডিউল ঘোষণা, মত্যু, দুর্ঘটনা ও যৌক্তিক কারণে কোনো হজযাত্রী হজে যেতে ব্যর্থ হলে তার জায়গায় অন্য হজযাত্রী নেয়ার সুযোগ দান, অনভিজ্ঞতা বা অনিচ্ছাকৃত ভুুলের জন্য যেসব এজেন্সি অভিযুক্ত হয়েছে তাদের সাধারণ ক্ষমার আওতায় আনা, প্রত্যেক হজ এজেন্সিকে একটি এবং ২০০  জনের বেশি হজযাত্রীর জন্য দু’টি বারকোড দেয়ার সুযোগ, ক্যাটারিং সার্ভিস বাধ্যতামূলক না করে রান্না করা খাবার পরিবেশন করার সুযোগ দেয়ার জন্য ধর্ম মন্ত্রণালয়ের কাছে অনুরোধ জানানো হয়।
চাঁদ দেখা সাপেক্ষে আগামী বছর ২২ সেপ্টেম্বর পবিত্র হজ অনুষ্ঠিত হবে। মোট এক লাখ এক হাজার ৭৫৮ জন এবার হজ করার সুযোগ পাচ্ছেন। এর মধ্যে সরকারি ব্যবস্থাপনায় ১০ হাজার এবং বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় ৯১ হাজার ৭৫৮ জন হজ করতে পারবেন।
সম্প্রতি সরকারিভাবে দু’টি হজ প্যাকেজ ঘোষণা করা হয়। ঘোষণা অনুযায়ী ১৫ ডিসেম্বর থেকে আগামী ৫ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত হজযাত্রীরা নিবন্ধন করতে পারবেন। বিগত পাঁচ বছরের মধ্যে যারা হজ করেছেন, তারা এ বছর হজে যেতে পারবেন না। আগামী ১০ জুনের মধ্যে হজের সব অর্থ পরিশোধ করতে হবে।
গোয়েন্দা মাছ!
এবার গোয়েন্দাগিরিতে নেমেছে মাছ! হ্যাঁ, আমেরিকান নেভি এবার গোয়েন্দাগিরিতে নামিয়েছে মাছকে। তা-ও আবার যে সে মাছ নয়, এক্কেবারে রোবট মাছ!  ব্লুফিন টুনা মাছের আদলে গড়া হয়েছে প্রায় পাঁচ ফুট লম্বা এই টুনা মাছ।
এতখানি পড়ে নিশ্চয়ই প্রশ্ন জাগছে, কী কী কাজ করবে এই রোবট মাছ? আরে কী করবে না, তা জিজ্ঞেস করুন। কখন শত্রু পানিসীমায় প্রবেশ করল, শত্রু জাহাজের গতিবিধি কী হবে, উপকূলবর্তী এলাকায় কখন কী চলছে না চলছে, জাহাজের সংকেত সব বিষয়েই পুঙ্খানুপুঙ্খ নজরদারি রাখবে সে। আর সে খবর নেভিতে পাঠাবে এই রোবট মাছ। আর শুধু তা-ই নয়, যদি রোবট মাছটিতে আরো একটু বেশি উন্নত প্রযুক্তি ব্যবহার করা যায় তাহলে সমুদ্রের স্রোত, জোয়ার ভাঁটা, আবহাওয়ার পরিবর্তন, কারেন্টের ব্যাপারগুলো সম্পর্কেও আগাম সতর্কতা পাওয়া যাবে বলে গবেষক মহলের একাংশের দাবি।
এই যন্ত্র মাছটি নড়াচড়া করতে পারে, তার লেজও রয়েছে এবং প্রয়োজনে তার গতিও আপাতত বাড়ানো যাবে বলে জানানো হয়েছে।
মার্কিন নেভি অফিসার জেরি লেডেম্যানই এই পুরো প্রকল্প রূপায়ণের দায়িত্বে রয়েছেন। তার মতে অবশ্য এই ঘটনা নতুন কিছু নয়। পৃথিবীতে এতদিন ধরে চলে আসা নানা বিবর্তনকে শুধুমাত্র যন্ত্রবন্দি করার প্রয়াসই আমরা করছি। এখন তা পরীক্ষা-নিরীক্ষার পর্যায়ে রয়েছে। আপাতত এই প্রয়াস কতটা সাফল্য অর্জন করতে পারে, তার জন্য আগামী বছর পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে।
সিরিয়ায় ক্রুসেডারদের বর্বরতা: ২০ হাজার মুসলমানকে হত্যা ও আধা-সেদ্ধ করে লাশ খাওয়া
আজ থেকে ৯১৬ চন্দ্রবছর আগে  ১০৯৮ খিস্টাব্দের ১২ ডিসেম্বর এমন দিনে ইউরোপ থেকে আসা খ্রিস্টান ক্রুসেডাররা সিরিয়ার ‘মারাত আন নুমান’ শহরে বিশ হাজারেরও বেশি মুসলিম নারী, পুরুষ ও শিশুকে হত্যা করেছিল। যুদ্ধ না করে শান্তিপূর্ণভাবে আত্মসমর্পণ করলে তাদের নিরাপত্তা দেয়া হবে বলে ক্রুসেডাররা ওই মুসলমানদের প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল। কিন্তু তারা ওই মুসলমানদের শুধু হত্যাই করেনি, এমনকি হত্যার পর তাদের লাশও খেয়েছিল।
প্রথম ক্রুসেডের ইতিহাস লেখার জন্য খ্যাত পশ্চিমা ঐতিহাসিক ফুলশার অব সারট্রেস এই বর্বরতা সম্পর্কে লিখেছেন: আমি কম্পিত হচ্ছি এটা জানাতে যে, আমাদের (ইউরোপীয় খ্রিস্টান ক্রুসেডারদের) অনেকেই ক্ষুধায় তাড়িত হয়ে এতটা উন্মাদ হয়ে গিয়েছিল যে তারা মৃত মুসলমানদের নিতম্বের মাংস কেটে নিত এবং তা আগুনে ভালভাবে না ঝলসিয়েই অর্থাত আধা-কাঁচা অবস্থায় তাদের বীভতস মুখে রেখে গিলত।
আমেরিকায় ৯ম শতকের কুরআনের পাণ্ডুলিপি আবিষ্কার
কাদামাটির ওপর লেখা পবিত্র কুরআনের এ লিপিকে নবম শতকের কুফিক লিপির পাণ্ডুলিপি বলে দাবি করেছেন বিশেষজ্ঞেরা। বহু শতাব্দী ধরে এ কথা বিশ্বাস করা হতো যে, ক্রিস্টোফার কলম্বাস হলেন পুরনো মহাদেশের প্রথম ব্যক্তি যিনি আটলান্টিক মহাসাগরের অপর পাড়ের ‘নতুন বিশ্বকে’ আবিষ্কার করেছেন। তবে রোড আইল্যান্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের একদল গবেষক নতুন তথ্যপ্রমাণ থেকে মনে করেছেন, সম্ভবত মুসলিম নাবিকেরা সর্বপ্রথম আমেরিকার উপকূলে বসতি স্থাপন করেছিলেন। এর ফলে আমরা এত দিন যে ইতিহাস জেনেছি তা হয়তো নতুন করে লেখার প্রয়োজন হতে পারে। গবেষক দলের প্রধান অধ্যাপক ইভান ইউরেস্কো স্বীকার করেন, গবেষকেরা হঠাৎ এ বিষয়টি আবিষ্কার করেন। তিনি বলেন, ‘আমরা আমেরিকার প্রাগৈতিহাসিক আদিবাসী বসতির সাক্ষ্যপ্রমাণ আবিষ্কারের আশা করছিলাম। তবে আমরা সেখানে নবম শতকে কাদামাটির ওপর আরবিতে লেখা কুরআনের পাণ্ডুলিপি দেখতে পাবো এমনটি আশা করিনি।’ সেখানে নবম শতাব্দীর নাবিকদের একটি বড় গণসমাধিসৌধ গবেষকদলের নজরে আসে। তারা সেখানে অনেক আগে থেকেই পচাগলা অবস্থায় চারটি কঙ্কাল দেখতে পান, যার ডিএনএ পরীক্ষা করা প্রায় অসম্ভব বলে বিশেষজ্ঞরা মনে করছেন। অবশ্য তাদের দাঁতগুলো অসময়োচিত ক্ষয়প্রাপ্ত ছিল যা থেকে পুষ্টিহীনতা অথবা অজ্ঞাত কোনো রোগের কারণে তাদের মৃতু্যু হয় বলে অনুমান করা হয়েছে। রোড আইল্যান্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকেরা কিছু পোশাক, মুদ্রা ও দু’টি তলোয়ারসহ অন্যান্য বিভিন্ন জিনিসও সেখান থেকে আবিষ্কার করেছেন। তবে প্রাপ্ত এসব জিনিসপত্রের অবস্থা এতটাই খারাপ যে, সেগুলো চেনা সম্ভব নয়। মরিচা পড়ে তলোয়ারের ওপর লেখা বোঝা বা পাঠোদ্ধার একেবারে অসম্ভব হয়ে পড়েছে। মুদ্রাগুলোর অবস্থাও অনুরূপ। তবে বিস্ময়কর ব্যাপার হলো, দু’টি কাদামাটির পট বেশ ভালো অবস্থায় পাওয়া গেছে। এর একটিতে অতি মূল্যবান পাণ্ডুলিপি এবং অপরটিতে অজ্ঞাত শুষ্ক মসলার মিশ্রণ রয়েছে। এসব জিনিস শনাক্ত করা গেলে ওই নাবিকদের শিকড় সম্পর্কে আরো প্রমাণ উপস্থাপন করা সম্ভব হবে। ম্যাসাচুসেটস বিশ্ববিদ্যালয়ের ইসলামি মধ্যযুগ সম্পর্কিত বিশেষজ্ঞ কারীম ইবনে ফাল্লাহ এ পাণ্ডুলিপির সময়কাল নির্ণয় করেছেন। তিনি জানান, এটি নবম শতকের কুফিক লিপির পাণ্ডুলিপি। কারীম বলেন, ‘বিভিন্ন ধরণের আরবি লিপির প্রাচীনতম ক্যালিওগ্রাফিক রূপ হলো কুফিক লিপি। বিভিন্ন ধরণের আরবি ও রূপান্তরিত প্রাচীন নাবাতিয়ান লিপির সমন্বয়ে এ লিপি গঠিত হয়।’ তিনি বেশ আবেগপ্রবণ ভাষায় বলেন, ‘সপ্তম শতকে ইরাকের কুফায় কুফিক লিপি আবিষ্কৃত হয়। কুফার থেকে এ লিপির নাম দেয়া হয়েছে কুফিক লিপি। কলম্বাস প্রাক-আমেরিকায় কুফিক পাণ্ডুলিপি আবিষ্কারের ঘটনা অত্যন্ত বিস্ময়কর ঘটনা।’ স্মিথসোনিয়ানের জাদুঘর বিজ্ঞানী বায়রন কেন্ট স্বীকার করেন, এ আবিষ্কার হলো একটি অত্যন্ত বিব্রতকর বিষয়। তিনি তার সুচিন্তিত অভিমত ব্যক্ত করে বলেন, ‘এতে কোনো সন্দেহ নেই যে, আরব মানচিত্র হচ্ছে বিশ্বের সেরা মানচিত্র। কলম্বাসের আগে মুসলমানেরা আটলান্টিক মহাসাগর পাড়ি দিয়ে আমেরিকা ভ্রমণ করেছিলেন এমন বিষয় বিদ্যমান ইতিহাসের ধারণার পরিপন্থী। ‘নতুন বিশ্ব’ আবিষ্কারের ক্ষেত্রে মুসলমানেরা সম্ভবত কলম্বাসকে পরাজিত করতে সক্ষম হয়েছিলেন, এ ধারণার ব্যাপারে কোনো বিশেষজ্ঞ হয়তো বিতর্ক করবেন না। উইলামেট বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক ও ‘ফার বেয়ন্ড দ্য ওয়েস্টার্ন সি অব দ্য অ্যারাবস…’ সর্বোচ্চ বিক্রীত বইয়ের লেখক রিচার্ড ফ্রাংকাভিজলিয়াও স্বীকার করেছেন, ‘এ আবিষ্কার এক নজিরবিহীন ঘটনা।’ তিনি বলেন, ‘কলম্বাস-পূর্ব ‘নতুন বিশ্বে’ ইসলামের প্রমাণ একটি অতি চমকপ্রদ বিষয় কারণ বিষয়টি বেশ বিশ্বাসযোগ্য।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


Hit Counter provided by Skylight