দেশ-বিদেশের খবর

Des-Bideser Khobor copy

হজ্জ: নিজস্ব উড়োজাহাজেই
ভরসা বিমানের
প্রথমবারেরমতো সম্পূর্ণ নিজস্ব সক্ষমতায় হজ্জযাত্রী পরিবহন করতে যাচ্ছে রাষ্ট্রীয় পতাকাবাহী সংস্থা বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স।
বেসামরিক বিমান চলাচল মন্ত্রী রাশেদ খান মেনন বলেন, “বিমানের নিজস্ব উড়োজাহাজ দিয়েই এবার হজ্জ ফ্লাইট পরিচালনা করা হবে।” হজ্জযাত্রী বহনে নিয়মিত ফ্লাইটে কাটছাঁট করবে বিমান। তিনি জানান, এবার প্রায় ৫০ হাজার হজ্জযাত্রী পরিবহন করবে বিমান। তবে এর চেয়ে দুই হাজার যাত্রী বেশি বহনের প্রস্তুতি রাখা হচ্ছে।
নির্বিঘেœ হজ্জ ফ্লাইট চালাতে অন্য বছরেরমতো এবারো নিয়মিত বহরে কিছুটা কাঁট-ছাঁট চালাতে হবে বিমানকে। এ বছর হজ্জ মৌসুমে দিল্লি ও হংকং রুট সাময়িক বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে বলে জানান বিমানমন্ত্রী।
চাঁদ দেখা সাপেক্ষে আগামী ৪ অক্টোবর হজ্জ হতে পারে। আর হজ্জ ফ্লাইট শুরু ২৭ আগস্ট, শেষ হবে ২৮ সেপ্টেম্বর। হজ্জের ফিরতি ফ্লাইট শুরু হবে ৮ অক্টোবর।
সরকারি ও বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় বাংলাদেশ থেকে এ বছর ৯৮ হাজার ৭০৫ জন হজ্জে যাচ্ছেন।
“এ বছর এক হাজার ৬০০ জন সরকারিভাবে হজ্জ করার সুযোগ পাবেন। আর বাকিরা ৮৩৫টি এজেন্সির মাধ্যমে হজ্জ করবেন।

১৫ লাখ টাকা পরিশোধের শর্তে আসলামের লাশ হস্তান্তর
পাঁচ মাসে ১৫ লাখ টাকা পরিশোধের শর্তে মো. আসলামের মরদেহ স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করলো রাজধানীর গুলশানের বেসরকারি সেবা প্রতিষ্ঠান ইউনাইটেড হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। লিখিতভাবে এমন প্রতিশ্র“তি দিয়ে মরদেহ বুঝে নেন স্বজনেরা। হাসপাতালের জনসংযোগ কর্মকর্তা মোস্তাফিজুর রহমান বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, মৃত আসলামের পরিবারে পক্ষে তার স্ত্রী ও মেয়ে লিখিত অঙ্গীকারনামা দিয়ে মরদেহ নিয়ে গেছেন। শর্ত অনুযায়ী তাদেরকে ৫ মাসে বকেয়া ১৫ লাখ টাকা পর্যায়ক্রমে পরিশোধ করতে হবে।
মৃত আসলামের মেয়ে সাদিয়াকে বলা হয়েছিলো, যেখান থেকে পারুন টাকা নিয়ে আসুন। কিন্তু ওই সময়ের মধ্যে টাকা জোগাড় করতে না পারায় মরদেহ আর হস্তান্তর করা হয়নি। এ অবস্থায় মৃতদেহ দাফন করতে বাড়িতে নিয়ে যেতে অনেক অনুরোধ জানান তার পরিবার। তবে স্বজনদের বুকফাটা কান্নায়ও মন গলে না ইউনাইটেড হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের। কর্তৃপক্ষের সাফ কথা, বাকির নাম ফাঁকি।
রাজধানী মগবাজারের দিলুরোডের বাসিন্দা মো. আসলাম (৫৪) গত ৩ জুলাই সেফটি সোমিয়া ও এআরডিএস রোগে আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হন। প্রায় ৪৩ দিন চিকিৎসার পর ১৫ আগস্ট বিকেল ৩টা ২০ মিনিটে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ তাকে মৃত ঘোষণা করেন।
লাশ হস্তান্তরের সময় হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ পরিবারের কাছে বকেয়া প্রায় ১৯ লাখ টাকা বিল দাবি করে। কিন্তু এত টাকা দিতে অপারগতা প্রকাশ করলে লাশ আটকে রাখে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। গণমাধ্যমে এ সংক্রান্ত প্রতিবেদন প্রকাশের পর শর্তসাপেক্ষে লাশ হস্তান্তর করা হয়।

ভিক্ষা করে ১৮ লাখ রুপি
ব্যবসা, চুরি, ডাকাতি না করে শুধু ভিক্ষা করেই পাঁচটি ব্যাংক অ্যাকাউন্ট, দুটি সরকারি ব্যাংকে ফিক্সড ডিপোজিট, কিষাণ বিকাশপত্র, পোস্ট অফিসে সঞ্চয়পত্র, সোনার গয়না-সবকিছু মিলিয়ে প্রায় ১৮ লাখ রুপি রেখে গেছেন অমরনাথ। এত অর্থ সঞ্চয়ের কথা তার মেয়েরাও জানত না। শনিবার পারলৌকিক কাজের পর কলকাতার আরামবাগের পারেরঘাটে ভাড়া করা ঘর থেকে বাবার জিনিসপত্র সরাতে গিয়ে দুই বোন তো হতবাক। কয়েকটি চটের পুরনো বস্তা, আর মরচেধরা টিনের বাক্স থেকে যা বের হলো তা নিয়ে গোটা পাড়ায় শোরগোল পড়ে যায়। বছর কুড়ি ধরে ভিক্ষা করছেন তিনি। রোজগার আর সঞ্চয় তার এমনই অভ্যাসে দাঁড়িয়েছিল যে, নিজের জন্য কখনও এক রুপি বাড়তি খরচ করেননি। স্ত্রী দীপালি পরপারে চলে যাওয়ার পর চার মেয়েকে প্রতিপালন করতেই তার ভিক্ষাবৃত্তির শুরু।

বিচারপতিদের অপসারণের ক্ষমতা সংসদের হাতে
বিচারপতিদের অভিশংসনের ক্ষমতা জাতীয় সংসদের হাতে ন্যস্ত হচ্ছে  মন্ত্রিসভা সোমবার সংবিধান সংশোধনী আইনের খসড়া অনুমোদন দিয়েছে। এদিকে আইনমন্ত্রী বলেছেন সংসদের সামনের অধিবেশনইে আইনটি পাস হবে। এখনকার সংবিধান অনুযায়ী সুপ্রিমকোর্টের বিচারপতিদের অভিশংসন বা অপসারণের ক্ষমতা সুপ্রিম জুডিশিয়াল কাউন্সিলের হাতে।  সংবিধান অনুযায়ী রাষ্ট্রপতি এই সুপ্রিম জুডিশিয়াল কাউন্সিল গঠনের অনুমতি দেন  কিন্তু সংবিধানের ষোড়শ সংশোধনীর মাধ্যমে তা এখন সংসদের হাতে ন্যস্ত করা হচ্ছে।
মন্ত্রিসভায় সংবিধানের ষোড়শ সংশোধনী আইনের খসড়ার অনুমোদন দেয়া হয়েছে  এতে উচ্চ আদালতের বিচারপতিদের অভিশংসন বা অপসারণের ক্ষমতা জাতীয় সংসদের হাতে আবার ফিরে যাচ্ছে।

নবজাতক বাইরে, অ্যাম্বুলেন্সের ভেতরে
পরীক্ষা দিলেন মা
স্থানীয় নিউলাইফ ক্লিনিকে অস্ত্রোপচার করে গত রবিবার রাতে প্রথমবারের মতো সন্তানের মা হয়েছেন তিনি। শারীরিক দুর্বলতা কাটেনি এখনো। কাটেনি ঝিম ঝিম ভাব। পরদিন সোমবার ছিল তার স্নাতক (সম্মান) তৃতীয়বর্ষের শেষ পরীক্ষা। ভেবে ছিলেন পরীক্ষা দেয়া আর হবে না। তারপরও অন্তত: উপস্থিতি দেখানোর জন্য পরীক্ষা কেন্দ্রে যান পঞ্চগড় মকবুলার রহমান সরকারী কলেজের ছাত্রী জান্নাতুন মাওয়া সুইটি।
পঞ্চগড় মহিলা কলেজে গিয়েই প্রিন্সিপাল জানালেন ক্যাম্পাসের ভেতরে অ্যাম্বুলেন্সে বসে পরীক্ষা দেয়ার সুযোগ আছে। তারপর কোন কিছুই আটকাতে পারে নি এই পরীক্ষার্থীকে। নবজাতক কে দাদীর কোলে রেখে অর্থনীতীর শিক্ষক হাসনুর রশিদ বাবুর তত্বাবধানে পরীক্ষা দিলেন তিনি।

বাংলাদেশসহ ৪টি দেশের নারীদের
বিয়ে করতে পারবে না সৌদি পুরুষেরা
সৌদি আরবের একটি গণবিয়ে অনুষ্ঠানে বরবৃন্দ সৌদি পুরুষদের ওপর বাংলাদেশ, পাকিস্তান, শাদ ও মিয়ানমারের নারীদের বিয়ে করার ব্যাপারে নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে। এক পুলিশ কর্মকর্তার উদ্ধৃতি দিয়ে ইন্দো এশিয়ান নিউজ সার্ভিস এ তথ্য দিয়েছে। তবে এ ব্যাপারে এখন পর্যন্ত সরকারি কোনো ঘোষণা দেয়া হয়নি।
সৌদি নাগরিকদের বিদেশী নারী বিয়ে করার প্রবণতা রুখতেই এই সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়েছে। সৌদি আরবে বর্তমানে ওই চার দেশের আনুমানিক পাঁচ লাখ নারী বাস করছেন বলে ধারণা করা হয়ে থাকে।

ইসরাইলি আগ্রাসনে গাজায় ৪৬০ কোটি ডলারের ক্ষতি
ইসরাইলি আগ্রাসনে বিধ্বস্ত গাজা উপত্যকা ইসরাইলের আগ্রাসনে অবরুদ্ধ গাজা উপত্যকায় কমপক্ষে ৪৬০ কোটি ডলারের আর্থিক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। ফিলিস্তিনের অর্থ মন্ত্রণালয়ের বরাত দিয়ে রেডিও তেহরান এ খবর জানিয়েছে।
ফিলিস্তিনের অর্থ মন্ত্রণালয় জানায়, ইসরাইলের হামলায় গাজায় কমপক্ষে ৪৬০ কোটি ডলারের ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। শুধুমাত্র ইসরাইলের হামলায় সরাসরি ক্ষতির বিষয়গুলো এই হিসাবের আওতায় আনা হয়েছে। তবে ইসরাইলি বিমান হামলার প্রভাবে যেসব ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে তা হিসাবের আওতায় আনা হলে তার পরিমাণ হবে অনেক বেশি।
গাজায় প্রায় মাসব্যাপী ইসরাইলের বিমান হামলা ও স্থল অভিযানে হাজার হাজার ঘর-বাড়ি ও গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনা ধ্বংস হয়েছে। এর মধ্যে ইসরাইলি সেনারা গাজার একমাত্র বিদ্যুৎ স্থাপনায় হামলা চালিয়ে ধ্বংস করে দেয়। এতে পুরো গাজা অন্ধকারে তলিয়ে যায়।
এছাড়া ইসরাইল ও মিসরের অবরোধের কারণে গাজাবাসী খাদ্য, পানি এবং ওষুধের মারাত্মক সংকটে পড়েছে।
২৯ দিনের আগ্রাসনে কমপক্ষে ১,৮৮০ জন নিহত ও প্রায় ১০ হাজার মানুষ আহত হয়েছেন। এর মধ্যে চারশ’ শিশু রয়েছে।
ইসরাইলের সাবেক সামরিক উপদেষ্টা গিওরা এইলান্দ বলেন, হামাসকে নতি স্বীকারে বাধ্য করতে না পারায় দুই পক্ষের যুদ্ধ ড্র হয়েছে।

এক আলুতে বাতি জ্বলবে
টানা ৪০ দিন
খাদ্য হিসেবে আলু নিয়ে গল্পের শেষ নেই। দেশ-কাল-পাত্র ভেদে আলুকে কেন্দ্র করে অনেক ধরনের গল্প চালু আছে। কিন্তু আলু দিয়ে বাতি জ্বালানো যাবে এমন কথা কেউ ভাবেনি। কিন্তু ভেবেছেন গবেষক রাবিনোভিচ। তার দাবি, একটি আলু দিয়ে টানা চল্লিশ দিন একটি এলইডি (লাইট এমিটিং ডায়োড) বাতি জ্বালানো যাবে।
যেহেতু প্রসঙ্গটা বাতির, তাই এই প্রসঙ্গের সঙ্গে চলে আসে জ্বালানির কথা। বিশ্বে বিকল্প জ্বালানি নিয়ে দীর্ঘদিন ধরেই অনেক গবেষণা হচ্ছে। তেল-গ্যাস-কয়লা-ইউরেনিয়াম-প্লুটোনিয়াম ইত্যাদির পর জ্বালানি সঙ্কট নিরসনে কী করা হবে, তা নিয়ে দীর্ঘদিন ধরেই গবেষণা চলছে। তেমনি এক গবেষণা দল রাবিনোভিচ ও তার সহকর্মীরা। জেরুজালেমের হিব্রু বিশ্ববিদ্যালয়ের এই অধ্যাপকের দাবি, আলুর ভেতর যথেষ্ট শক্তি আছে, আর সেই শক্তিকেই কাজে লাগিয়ে বিকল্প জ্বালানি উৎপাদন সম্ভব।
রাবিনোভিচ এ বিষয়ে বলেন, ‘একটি আলু থেকে যে শক্তি পাওয়া যায় তা দিয়ে অনেক কিছু করা না গেলেও, একটি মোবাইল ফোন ও ল্যাপটপ জাতীয় ডিভাইস চার্জ দেয়া যাবে।’
জৈবপদার্থ থেকে ব্যাটারি বানাতে গেলে প্রথমত দুটি আলাদা ধাতব দণ্ডের প্রয়োজন। যার একটিকে বলা হয় অ্যানোড (নেগেটিভ) এবং অন্যটিকে বলা হয় ক্যাথোড যা সাধারণত তামার তৈরি। অ্যাসিডিক পদার্থকে সংশ্লেষণের মাধ্যমে বিদ্যুৎ উৎপন্ন করা সম্ভব।
আলুতে যে জৈব অ্যাসিড থাকে তা থেকেও একই প্রক্রিয়ায় বিদ্যুৎ উৎপন্ন করা হয়।
মূলত ১৭৮০ সালে লুই গ্যালভানি নামের একজন বিজ্ঞানী এই পদ্ধতি আবিষ্কার করেন। তিনি দেখতে পান, দুটি পৃথক ধাতুকে ব্যাঙের পায়ের সঙ্গে সংযোগ ঘটালে ব্যাঙের পা নড়ে। কিন্তু ঘটনাটি শুধু ব্যাঙ বা আলুর মধ্যেই সীমাবদ্ধ নয়। এমন অনেক পদার্থই আমাদের চারপাশে পাওয়া যায় যা থেকে বিদ্যুৎ উৎপাদন করা সম্ভব।

জাতীয় পরিচয়পত্র
সহজলভ্য করতে মোবাইল অ্যাপস
জাতীয় পরিচয়পত্রকে আরো সহজলভ্য করতে মোবাইলের উপযোগী করে একটি অ্যাপলিকেশন বানাচ্ছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। এতে জাতীয় পরিচয়পত্র সংগ্রহ, সংশোধনসহ নানা বিষয়ে পরামর্শ সহজেই পাওয়া যাবে।
ইসির সূত্রগুলো জানিয়েছে, দেশের প্রান্তিক পর্যায়ে সেবা পৌঁছে দেওয়ার জন্য এ উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। আর কাজটি করছে সরকারের ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্য প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি (আইসিটি) বিভাগ।
মোবাইলে অ্যাপসটি চালু হলে দেশের যে কোনো প্রান্ত থেকে যে কোনো নাগরিক জাতীয় পরিচয় পত্র হারিয়ে গেলে, সংশোধন করার জন্য, নতুন পরিচয়পত্র পাওয়ার জন্য বা এলাকা স্থানান্তরের জন্য প্রয়োজনীয় দিক নির্দেশনা পাবেন।
সম্প্রতি সরকারের আইসিটি বিভাগে এজন্য প্রয়োজনীয় সব তথ্য সরবরাহ করে তাদের কাছে কিছু প্রস্তাব করেছে ইসি। মন্ত্রণালয় তা গ্রহণও করেছে। এখন চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত হবে কী কী সেবা এই অ্যাপস এর মাধ্যমে দেওয়া যাবে।
অ্যাপসটি মানুষের হাতে পৌঁছালে তারা যে কোনো জায়গায় বসে মোবাইল ফোনেই জেনে নিতে পারবেন কিভাবে কী  করতে হবে। এছাড়া শর্ট কোড নম্বরে ক্ষুদেবার্তার (এসএমএস) মাধ্যমে বা ফোনকলের মাধ্যমেও এ সেবা প্রদানের চিন্তা ভাবনা চলছে।

(ঢামেক) থেকে নবজাতক চুরি
ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল (ঢামেক) থেকে নবজাতক চুরির ঘটনায় তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।
নবজাতক চুরির ঘটনার পর তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়। ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের উপপরিচালক ডা. মুশফিকুর রহমান এ সম্পর্কে বলেন, ‘নবজাতক চুরির ঘটনায় তিন সদস্য বিশিষ্ট তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। এ ছাড়া, হাসপাতাল গেটে দায়িত্বরত আনসার সদস্যকে ক্লোজড করা হয়েছে। এ বিষয়ে তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে।’
চুরি হওয়া নবজাতকের মা রুনা বেগম (২৭) জানান, মঙ্গলবার রাত ৩টার দিকে প্রসবজনিত কারণে শরীর অসুস্থ হলে তিনি ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের ২১৩ নম্বর ওয়ার্ডে ভর্তি হন। এর দুই ঘণ্টা পরই জমজ পুত্রসন্তানের জন্ম হয়।

ব্যাটারি চার্জ হবে ঘাম থেকে!
ব্যায়ামাগার বা জিমে ঘাম ঝরানো কেবল স্বাস্থ্যের জন্যই যে ভালো, তা নয়। এই ঘাম থেকে আপনার ফোন চালানোর শক্তি বা চার্জের জোগানও হতে পারে। যুক্তরাষ্ট্রের একদল বিজ্ঞানী এবার উদ্ভাবন করেছেন একটি বিশেষ উল্কি বা ট্যাটু।
এটি জৈব ব্যাটারি হিসেবে কাজ করে এবং মানুষের শরীরের ঘাম থেকে বিদ্যুৎশক্তি উৎপাদন করতে পারে। মার্কিন রসায়নবিদদের সংগঠন আমেরিকান কেমিক্যাল সোসাইটির সম্মেলনে এই প্রযুক্তির প্রদর্শনী হয়েছে।
জৈব ব্যাটারির জ্বালানি আসে ল্যাকটেট (ল্যাকটিক অ্যাসিডের রাসায়নিক লবণ) থেকে। প্রচুর শারীরিক পরিশ্রম বা ব্যায়ামের পর শরীর থেকে যে ঘাম বেরোয়, তাতে এই ল্যাকটেট পাওয়া যায়। এটি হৃৎপিণ্ডের গতি পর্যবেক্ষণকারী যন্ত্র, ডিজিটাল ঘড়ি এবং কখনো কখনো স্মার্টফোনের ব্যাটারি চার্জ করতে পারে।
যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়া অঙ্গরাজ্যের সান ডিয়েগো শহরে অবস্থিত ক্যালিফোর্নিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের একদল গবেষক এই ট্যাটু আকৃতির জৈব ব্যাটারি উদ্ভাবন করেছেন।
গবেষকেরা তৈরি করেন ঘামের শক্তিতে চালিত জৈব ব্যাটারি। তাঁরা এতে যুক্ত করেছেন একটি এনজাইম বা উৎসেচক, যা ল্যাকটেট থেকে ইলেক্ট্রন আলাদা করে একধরনের স্বল্প শক্তির বিদ্যুৎপ্রবাহ তৈরি করে।
ওই ল্যাকটেট সেনসর বা ট্যাটুটি পরিধান করে ব্যায়ামের সাইকেলে চড়ে ঘাম ঝরালে ত্বকের প্রতি বর্গ সেন্টিমিটারে ৭০ মাইক্রোওয়াট পর্যন্ত বিদ্যুৎ উৎপাদিত হয়। মজার ব্যাপার হলো, শারীরিকভাবে তুলনামূলক কম শক্তিশালী বা সক্ষম ব্যক্তিরা ওই ট্যাটু পরে ঘামের সাহায্যে বেশি বিদ্যুৎশক্তি তৈরি করেন।

তথ্যসূত্র : বিবিসি, আমার দেশ, প্রথম আলো, বাসস, আরটি এন এন, ইরান বার্তা, ইত্তেফাক, রেডিও তেহরান, ডেইলি মেইল।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


Hit Counter provided by Skylight