ডিম দেহের পুষ্টিগুণ বাড়াতে ও দীর্ঘায়ুতে সাহায্য করে

নব্য গবেষণার নতুন সমীক্ষা: ৫ টি ক্ষেত্রে অতি কার্যকর ব্যবহার
* রক্তে কোলেষ্টেরল জমতে বাধা দেয়
* ওজন নিয়ন্ত্রণে রাখে
* মস্তিষ্কের কার্যকারিতা ঠিক রাখে
* চোখ ও হাড় ভাল রাখে
* প্রোটিনের ঘাটতি পূরণে সাহায্য করে।
পরিচিতি
বিভিন্ন প্রজাতির স্ত্রী প্রাণী যেমন- পাখি, সরীসৃপ ও উভচর প্রাণী ও মাছ থেকে আমরা ডিম পেয়ে থাকি।
অনেক বছর আগে থেকে মানুষ ডিম খাদ্য হিসাবে গ্রহণ করে আসছে। পাখি ও সরীসৃপ প্রাণীর ডিম এলবিউমিন (ডিমের সাদা অংশ), ভাইটিলাস (ডিমের হলুদ অংশ) ডিমের খোসা দিয়ে সুরক্ষিত থাকে।
মুরগি, হাঁস, কোয়েল ও মাছের ডিম মানুষ খাদ্য হিসাবে গ্রহণ করে। কিন্তু খাদ্য হিসাবে মানুষ মুরগির ডিম বেশি ব্যবহার করে থাকে। ডিমের সাদা অংশ ও কুসুমে প্রোটিন ও কোলিন থাকে যা মানব দেহের বিভিন্ন উপকার করে। এছাড়া মুরগির ডিম সব প্রয়োজনীয় অ্যামাইনো এসিড, ভিটামিন, মিনারেল, আয়রন, ক্যালসিয়াম, ফসফরাস রয়েছে যা মানুষের সঠিক বৃদ্ধি ও পুষ্টি সাধনে অপরিসীম ভুমিকা পালন করে।
ডিমের পুষ্টিগুণ
ডিমের প্রোটিন, ম্যাগনেসিয়াম, পটাসিয়াম, সোডিয়াম, ভিটামিন বি, টোটাল ফ্যাট, ওমোগ ৩ ফ্যাটস, ভিটামিন এ- ডি- এ- ও- কে; ক্যারোটিনয়েডস, ভিটামিন বি ৫, বি ৬, বি ১২, ক্যালসিয়াম, ফসফরাস, জিঙ্ক, কপার, আয়রন, ম্যাঙ্গানিজ, ভিটামিন বি ১, বায়োটিন, সোলিনিয়াম প্রভৃতি রয়েছে।
ডিমের পুষ্টি উপাদান শরীরে যেসব উপকার করে আয়রন:
আয়রন: আয়রন মানব কোষে অক্সিজেন সরবরাহ করে ও রক্তশূন্যতা দূর করে। ডিমে বিদ্যমান আয়রন সহজে হজম হয়।
ভিটামিন এ: ভিটামিন এ ত্বক ও চোলর জন্য উপকারী ও দৃষ্টিশক্তি বৃদ্ধি করে। এটা রাতকানা রোগ প্রতিরোধ করে।
ভিটামিন ডি: ভিটামিন ডি হার এবং  দাঁতের জন্য খুবই উপকারী।
ভিটামিন ই: ভিটামিন ই এক ধরনের অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট, যা শরীরকে সুস্থ রাখে এবং বিভিন্ন রোগ প্রতিরোধক হিসাবে কাজ করে।
ভিটামিন বি১২: ভিটামিন বি এটা হার্টকে ভাল রাখে, এ জন্য ভিটামিন বি সমৃদ্ধ খাবার দেহে এনার্জি বা শক্তি প্রদান করে।
ফলেট:  ফলেট নতুন কোষ তৈরি ও রক্ত সল্পতা দূর কওে এবং গর্ভবতি মায়েদের গর্ভপাতের ঝুকি থেকে রক্ষা করে।
প্রোটিন: পেশি, অঙ্গ, ত্বক, চুল এবং বিভিন্ন টিসুর জন্য প্রোটিন হারমোন, এনজাইম এবং অ্যান্টিবডি উৎপাদন করে।
লিউটিন: লিউটিন চোখকে ভাল রাখে ও চোখের বিভিন্ন সমস্যা যেমন- চোখে ছানি পড়া এবং ম্যাকুলার ডিজেনারেশন থেকে চোখকে রক্ষা করে।
কোলিন: কোলিন মস্তিষ্কের কার্যক্ষমতা রক্ষা করে ও মস্তিষ্ক ভালো রাখে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


Hit Counter provided by Skylight