জীবন জিজ্ঞাসা

al-jannatbd.com, আল জান্নাত । মাসিক ইসলামি ম্যাগাজিন, al-jannatbd.com, quraner alo, মাসিক জান্নাত, islamer alo, www.al-jannatbd.com, al-jannat, bangla islamic magazine, bd islam, islamic magazine bd, ব্লগে জান্নাত, জান্নাতের পথ, আল জান্নাত,

মুহাম্মাদ শফীকুল ইসলাম, জামিয়া ইসলামিয়া হবিগঞ্জ।
প্রশ্ন: হাদীস শরীফে আছে, যে ব্যক্তি একান্ত নিষ্ঠার সাথে আল্লাহর কাছে শাহাদাত কামনা করবে, আল্লাহ তা‘আলা তাঁকে শহীদের মর্যাদা দান করবেন। যদিও সে আপন বিছানায় মৃত্যু বরণ করে। যদি তাই হয়, তাহলে তিনি যে কাপড় পরিহিত অবস্থায় মৃত্যু বরণ করবেন, সেই কাপড় দিয়েই কি দাফন করতে হবে? আর তিনি কাপড় পরিহিত অবস্থায় হাশরের ময়দানে উপস্থিত হবেন, নাকি পোশাক বিহীন অবস্থায়?
উত্তর: এ ব্যক্তি শহীদের মর্যাদা পাবেন। কিন্তু তাঁর উপর শহীদের দুনিয়াবী কোনো হুকুম বর্তাবে না। তাই তাকে গোসল এবং যথারীতি কাফন পরিয়ে দাফন করতে হবে। হাশরের ময়দানে সকলের ন্যায় পোশাক বিহীন অবস্থায় উপস্থিত হবেন।- তাফসীরে ইবনে কাসীর: ৩/২০০, সহীহ বুখারী: ২/৬৯৩, আল-বাহরুর রায়িক: ২/৩৪৩, মিরকাত: ৭/২৭৯, আদ্-র্দুরুল মুখতার মা‘আ ফাতাওয়া শামী: ২/২৫২।
মুহাম্মাদ ইমদাদুল হক, জামিআ ইসলামিয়া দারুল কুরআন, বড় বাজার, হবিগঞ্জ।
প্রশ্ন: যদি কোনো ব্যক্তি বিতিরের নামাযে তৃতীয় রাক‘আতে দু‘আ কুনূত জানা সত্ত্বেও ভুলে অন্য দু‘আ পড়ে এবং দু‘আটি শেষ করার পর দু‘আ কুনূতের কথা তার স্মরণ হয়, তাহলে তার করণী কী?
উত্তর: বর্ণিত অবস্থায় তাকে আর দু‘আ কুনূত পড়তে হবে না। বরং রুকূতে চলে যাবে। সাহু সিজদাও করতে হবে না।- ফাতাওয়া শামী: ২/৬, ফাতাওয়া মাহমূদিয়া: ৭/১৬৬, আল-বাহরুর রায়িক: ২/৭৩, আল-মুহীতুল বুরহানী: ২/২১, ফাতাওয়া তাতারখানিয়া: ২/৩৪১।

মুহাম্মাদ আব্দুল্লাহ, দূর্গাপুর, নেত্রকোণা।
প্রশ্ন: জনৈক ব্যক্তি এক রাক‘আত চলে যাওয়ার পর জামা‘আতে শরীক হন। এরপর ইমাম সাহেব সালাম ফিরানোর সময় তিনিও সালাম ফিরিয়ে ফেলেন। কিন্তু সাথে সাথে ছুটে যাওয়া রাক‘আতের কথা মনে হলে দাঁড়িয়ে যান, এমতবাস্থায় তাকে সিজদায়ে সাহু দিতে হবে কিনা?
উত্তর: হ্যাঁ, দিতে হবে। এ ক্ষেত্রে দুই দিকে নয়, শুধু এক দিক তথা ইমাম সাহেবের সাথে ডান দিকে সালাম ফিরানোর পরপর যদি স্মরণ হয় এবং সাথে সাথে দাঁড়িয়ে যান, তারপরও সিজদায়ে সাহু দিতে হবে।- আদ্ -র্দুরুল মুখতার: ২/৮২, বাদায়িউস্ সানায়ি’: ১/৪২২, আল-বাহরুর রায়িক: ২/১৭৬, কিফায়াতুল মুফতী: ৩/৪৩৪।

মুসাম্মাত মায়মূনা আখতার, কুমিল্লা মহিলা মাদরাসা।
প্রশ্ন : আমরা জানি, সুন্নাত নামাযের কোনো কাযা নেই। কিন্তু কেউ কেউ বলেন, ফজরের নামায কাযা হলে, সুন্নাতসহ কাযা করতে হবে। হাদীসের কোথাও এর প্রমাণ আছে কিনা? থাকলে হাদীস ও ফিকহের দলীলসহ উত্তর দিলে উপকৃত হবো।
উত্তর: ফজরের নামায কাযা হলে তা আদায়ের নিয়ম হলো, যদি সেদিনই দুপুরের পূর্বে আদায় করে, তাহলে সুন্নাতসহ কাযা করবে। আর যদি দুপুরের পর আদায় করে, তাহলে শুধু ফরয কাযা করবে।- সহীহ মুসলিম: ১/২৩৯, আল-বাহরুর রায়িক: ২/৭৪, হিদায়া: ১/১৫৩, ফাতাওয়া হাক্কানিয়া: ৩/২৯৮।

মুহাম্মাদ মুখতার, ময়মনসিংহ।
প্রশ্ন: পিতা ছেলেকে আদর করে যেমন আব্বু বলে ডাকেন, তেমনি মেয়েকেও আব্বু বলে ডাকতে পারবেন কিনা?
উত্তর: হ্যাঁ, পারবেন।- ইমদাদুল ফাতাওয়া: ৪/১৫৯।

মুসাম্মাত আয়েশা বেগম, পূর্বধলা, নেত্রকোণা।
প্রশ্ন: আমার স্বামী তিন ছেলে, পাঁচ মেয়ে এবং আমাকে রেখে মারা যান। তাঁর পরিত্যক্ত সম্পদ থেকে আমি ৬৫ শতাংশ জমি পাই। উক্ত জমি নিয়ে আমি আমার ছোট ছেলের  ঘরে থাকি। সে-ই  আমার যাবতীয় খরচ বহন করে। বড় ও মেজো ছেলে মন চাইলে কিছু দেয়, নতুবা দেয় না। কিন্তু অধিকাংশ সময় আমার সাথে খারাপ আচরণ করে। যেমন গত ১০/০১/২০১৪ ইং তারিখে আমার নামে ডাকাতি মামলা দিয়েছে এবং আমাকে জেলে নেয়ার জন্য থানায় আট/নয় হাজার টাকা পর্যন্ত দিয়েছে। আমার চোখে সমস্যা, অপারেশন লাগবে। তবুও আমার প্রতি তাদের এতোটুকু দরদ নেই। বরং আমাকে মামলায় জড়িয়ে জেলে পাঠাতে চায়। এ কারণে আমি ইচ্ছা করেছি আমার ৬৫ শতাংশ জমি থেকে ৫০ শতাংশ ছোট ছেলেকে লিখে দিবো। শরী‘আতে ইসলামী অনুযায়ী তা কতোটুকু জায়িয হবে?
উত্তর: জায়িয হবে, তবে তা না করাই উত্তম।- আল-ফিক্হুল ইসলামী ওয়া আদিল্লাতুহু: ৫/৩৫-৩৬, হিদায়া ৪/৩৯১, খুলাসাতুল ফাতাওয়া: ৪/৪০০, ফাতাওয়া খানিয়া আলা হামিশি হিন্দিয়া: ৩/২৭৯।

হাজী মুহাম্মাদ সুবহান, কুড়িগ্রাম।
প্রশ্ন: জনাব মুফতী সাহেব, আমার পাঁচ ছেলে। তাদের মধ্যে একজনকে অনেক টাকা পয়সা খরচ করে উচ্চ শিক্ষিত করেছি। কিন্তু সে আমাদের কোনো খোঁজ-খবর রাখে না। বরং আমাদের সম্পূর্ণ অবাধ্য। তাই আমি তাকে আমার সম্পদ থেকে কোনো কিছু না দিয়ে সম্পূর্ণরূপে বঞ্চিত করতে চাই। শরী‘আতের দৃষ্টিতে এর বৈধতা কতোটুকু?

উত্তর: প্রশ্নের বিবরণ অনুযায়ী উল্লিখিত ছেলেকে সম্পদ থেকে বঞ্চিত করার ক্ষমতা আপনার আছে এবং শরয়ী দৃষ্টিতে তা বৈধও হবে। তথাপি যথাসম্ভব তা না করা চাই।- মিরকাত: ৬/১৮৫, খুলাসাতুল ফাতাওয়া: ৪/৪০০, ফাতাওয়া হিন্দিয়া: ৪/৩৯১, ইমদাদুল ফাতাওয়া: ২/১০৫০-১০৫১।
মুহাম্মাদ মনজুর নোমানী, মনোহরগঞ্জ, কুমিল্লা।
প্রশ্ন: শুনেছি একটি সুদী ব্যাংকে প্রত্যহ কুরআন তিলাওয়াতের মাধ্যমে দিনের কার্যক্রম শুরু করা হয়। এভাবে সুদী ব্যাংকের কাজ শুরু করার পূর্বে কুরআন তিলাওয়াত করার ব্যাপারে শরয়ী বিধান কী? যিনি তিলাওয়াত করেন, তার কোনো গুনাহ হবে কিনা?
উত্তর: ইসলামী শরী‘আতে সুদী লেনদেন সম্পূর্ণরূপে নাজায়িয ও হারাম। কুরআনে কারীমে আল্লাহ পাক এ ব্যাপারে কঠোর ধমকী এবং হুঁশিয়ারী বাণী ব্যবহার করেছেন। সুতরাং এ ধরনের একটি জঘন্য হারাম কাজের শুরুতে কুরআনে কারীমের তিলাওয়াত মারাত্মক গর্হিত কাজ। এমনকি কুরআনে কারীমের সাথে উপহাস করার শামিল। যদ্দরুন এতে কুফরীর আশংকা রয়েছে। আর যদি উপহাস করার উদ্দেশ্যেই তা করা হয়, তাহলে তো আয়োজকদের ঈমান চলে যাবে (নাউযুবিল্লাহ)। কাজেই তিলাওয়াতকারী এবং আয়োজক সকলেই এর মাধ্যমে গোনাহগার হবে।- সূরা বাকারা: ২৭৮-২৭৯, তাফসীরে রূহুল মা‘আনী: ১/৬৭, ফাতাওয়া হিন্দিয়া: ৫/৩১৫, মাজমা‘উল আনহুর: ২/৫৫১।

মুহাম্মাদ শরীফুল ইসলাম, মনোহরগঞ্জ, কুমিল্লা।
প্রশ্ন : যেসব কাজ কুরআন শরীফ দ্বারা হারাম হওয়া প্রমাণিত, সেসব কোনো কাজ হারাম হওয়াকে যদি কেউ অস্বীকার করে, তাহলে সে কাফির হয়ে যাবে কি না ? যেমন হাইয অবস্থায় সহবাস কিংবা গুহ্যদারে যৌন কর্ম চরিতার্থ করাকে কেউ হালাল মনে করলে, তার হুকুম কি?
উত্তর : যেসব কাজ কুরআন মাজীদের স্পষ্ট আয়াত এবং মুতাওয়াতির হাদীস দ্বারা হারাম হওয়া প্রমাণিত, সেসব কোনো কাজের হারাম হওয়াকে কেউ অস্বীকার করলে সে কাফির হয়ে যাবে। আর যদি কেউ তা অস্বীকার না করে উক্ত হারাম কাজে লিপ্ত থাকে, তাহলে সে কাফির হবে না। তবে উক্ত কাজে লিপ্ত হওয়ায় তার মারাত্মক কবীরা গুনাহ হবে। এ থেকে বিরত থাকা এবং তাওবা করা জরুরী। সুতরাং হাইয অবস্থায় সহবাস কিংবা গুহ্যদারে যৌন কর্ম চরিতার্থ করাকে কেউ হালাল মনে করলে, সে কাফির হবে না। তবে হারাম ও মারাত্মক গুনাহ হবে। এ থেকে অবশ্যই বিরত থাকতে হবে এবং দ্রুত তাওবা করতে হবে।- ফাতাওয়া শামী: ১/২৯৭, ফাতাওয়া হিন্দিয়া: ২/২৭২, আল-বাহরুর রায়িক: ৫/১২১, খুলাসাতুল ফাতাওয়া: ৪/৩৮৮।

মুহাম্মাদ আব্দুল ওয়াদূদ, হরিণাকুন্ড, ঝিনাইদহ।
প্রশ্ন : একজন পীর সাহেব বলেছেন, তাকে সিজদাহ করা জরুরী। কারণ তিনি একজন ধর্মীয় গুরু। হযরত ইউসূফ (আ.) নবী ছিলেন বলেই তাঁর ভাইয়েরা ও বাবা মা তাঁকে সিজদাহ করেছিলেন। এমনিভাবে ফিরিশতারা হযরত আদম (আ.) কে সিজদাহ করেছিলো। সুতরাং তাকেও সিজদাহ করা জরুরী। এ ব্যাপারে শরয়ী বিধান কি ?
উত্তর : আল্লাহ তা‘আলা ছাড়া অন্য কাউকে যে কোনো ধরনের সিজদাহ করা র্শিক। প্রশ্নে উল্লিখিত ফিরিশতা কর্তৃক হযরত আদম (আ.) কে সিজদাহ ও হযরত ইউসূফ (আ.) কে তাঁর পরিবারের সদস্যবৃন্দ কর্তৃক সিজদাহ করার ঘটনা দিয়ে দলীল পেশ করা শরী‘আতে মুহাম্মাদীতে গ্রহণযোগ্য নয়। আমাদের শরী‘আতে আল্লাহ তা‘আলা ছাড়া অন্য কাউকে যে কোনো ধরনের সিজদাহ করা নিষিদ্ধ এবং তা শিরকের মতো জঘণ্য অপরাধ বলে গণ্য।- ফাতাওয়া শামী: ৬/৩৮৩, ফাতাওয়া হিন্দিয়া: ৫/৩৬৮-৩৬৯, ফাতাওয়া মাহমূদিয়া: ৫/৩২২-৩২৩।

সুহাইল আহমাদ, কালীগঞ্জ, গাজীপুর।
প্রশ্ন: কেউ যদি বলে ‘‘ আমি শরী‘আতের পাবন্দ নই, বরং আমি রুসম ও রেওয়াজের পাবন্দ।’’ তহলে তার হুকুম কি? এতে তার ঈমানের কোনো ক্ষতি হবে কিনা?
উত্তর: ‘‘আমি শরী‘আতের পাবন্দ নই, বরং রুসম-রেওয়াজের পাবন্দ’’ এ কথা বলা কবীরা গোনাহ। উক্ত কথার উদ্দেশ্য যদি হয়, শরী‘আ মুতাবিক আমল বর্জন এবং রুসম-রেওয়াজের অনুসরণকে আবশ্যক মনে করা, তাহলে তা ফাসেকী তো বটেই, এতে কুফরীরও প্রবল আশংকা রয়েছে। তবে যেহেতু এর দ্বারা শরী‘আত হক হওয়াকে অস্বীকার করাটা পরিস্কারভাবে প্রমাণিত হয় না, এজন্য তাকে কাফির বলা যাবে না। অবশ্য কেউ যদি এমন বলে যে, ‘‘আমি রুসম ও রেওয়াজকে শরী‘আতের তুলনায় ভালো মনে করি” তাহলে তার ঈমান চলে যাবে-নাউযুবিল্লাহ।
তথাপি উল্লিখিত ব্যক্তিকে সতর্কতামূলক পুনরায় ঈমান আনা এবং বিবাহিত হলে বিয়ে নবায়ন করে নেয়া চাই। খালিস মনে তাওবা করা চাই। সাথে সাথে দ্বীনী ব্যাপারে এ ধরনের কথা বলা থেকে সব সময় বিরত থাকা জরুরী।- ফাতাওয়া হিন্দিয়া: ২/২৮৩, কিফায়াতুল মুফতী: ১/৪৯, আদ-র্দুরুল মুখতার: ৪/২৩০, ফাআওয়া দারুল উলূম: ১১/৩৪৬, ফাতাওয়া মাহমূদিয়া: ৮/২৮৬।

মুহাম্মাদ যাইনুল আবেদীন, বাজিতপুর, কিশোরগঞ্জ।
প্রশ্ন: অনেক মসজিদে আযানের পূর্বে মাইকে হামদ-নাত, তাসবীহ-তাহলীল, দরূদ ইত্যাদি পাঠ করতে শোনা যায়। এ ব্যাপারে শরয়ী বিধান কি ?
উত্তর: আযানের পূর্বে কিছু পাঠ করার শরয়ী কোনো বিধান নেই। বরং আযানের পর দরূদ শরীফ এবং আযানের দু‘আ পড়ার সুন্নাতের বিধান রয়েছে। এর মধ্যে বাড়ানো কমানো কিংবা আযানের পূর্বে কিছু পড়া সুন্নাত পরিপন্থী। কাজেই আযানের পূর্বে এসব পাঠ করা শরী‘আত সম্মত নয়, বিধায় পরিত্যাজ্য।- সহীহ মুসলিম: ২/৭৭, আহসানুল ফাতাওয়া: ১/৩৬৯।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


Hit Counter provided by Skylight