চলে যায় সময় বেলায় অবেলায়-: মুহাম্মদ আবু হানিফ

সময় কারো জন্য অপেক্ষা করে না। এবং অতিবাহিত হলে আর ফিরে আসে না। এভাবেই অতীত পর্দায় লুকিয়ে যায় মানুষের শৈশব ও কৈশোরের অবাধ চপলতা। অতীত কাহিনীতে পরিণত হয় যৌবনের উদ্দমতা। সময়ের গতিতে উপস্থিত হয় পৌঢ়ত্ব ও বার্ধক্যের গাম্ভীর্যতা। সময়ের সমীকরণ তখন বার্তা দেয় অনিবার্য মৃত্যুর। তখন মনে হয় চোখ খুললেই যেন ভেসে উঠল জীবন সমাপ্তির শেষ রেখা।
সময়ের এই গতি-প্রকৃতি, ক্ষিপ্রতা ও সংক্ষিপ্ততা সকলের জীবনেই নির্দিষ্ট। তবুও মানুষ এই ক্ষণকালে, অমর হয়ে থেকে যায় সবার মাঝে।
সময়ের মূল্যায়ন যে যত বেশী করেছে। সফলতার পথে সে তত বেশী অগ্রসর হয়েছে।
প্রবাদে আছে- “ সময়ের মূল্য বুঝে করে যারা কাজ
তারা হয় বরণীয় সবাকার মাঝ”
সময় মানব জীবনের শ্রেষ্ঠ সম্পদ। যে এই অমূল্য সম্পদকে অবহেলা করে সে প্রকৃত পক্ষে নিজেকে নিজেই ধ্বংস করে। কেননা সময়ের অবমূল্যায়ন আত্মহত্যার নামান্তর।

তাই কবি বলেছেন -“ নিতান্ত নির্বোধ শুধু সেই জন
অমূল্য সময় করে বৃথায় যাপন”

পৃথিবীর বুকে যারাই স্মরণীয় হয়ে আছেন এবং আপন কীর্তি ও কর্মে প্রজ্জ্বল হয়েছেন। তারা সবাই প্রতি মুহূর্তের যথাযথ মূল্যায়ন ও শ্রম- সাধনার বাস্তবায়নের মাধ্যমেই বরণীয় হয়ে আছেন।
সময়ের সদ্ব্যবহার যেমন মানুষকে শ্রেষ্ঠ থেকে শ্রেষ্ঠত্বের দিকে নিয়ে যায় এবং উন্নতি ও চিরউন্নতির পথ দেখায়। তেমনি সময়ের প্রতি অবহেলা ও অবমাননার কারণে মানুষ ইতিহাসের আঁস্তাকুড়ে পতিত হয় এবং যুগ ও জামানা মানুষ ও মানবতার কাছে সে অবহেলিতই রয়ে যায়।
তাই কবি বলেন – “ খেলায় মজিয়া শিশু কাটিও না বেলা
সময়ের প্রতি কভু করিও না হেলা ”

সময় হলো জীবনের শ্রেষ্ঠ পুঁজি এর যথাযথ বিনিয়োগ একজন মানুষকে শ্রেষ্ঠত্বের আসনে সমাসীন করে এবং সুপ্তও বিলুপ্ত প্রতিভাকে জাগ্রত করে। আর যাদের বর্তমান সময় চলে যায় অতীতের চিন্তায় এবং সময়কে নষ্ট করে ভবিষ্যতের শঙ্কায় তাদের জীবনে নেমে আসে চরম দূর্গতি।

যারা মহান হতে চায় এবং বর্তমান সময়ের গুরুত্ব দেয়, অতীত হয় তাদের জন্য গৌরবান্বিত ও ঐতিহ্যময়। আর এই বর্তমানের উপরই নির্ভর করে ভবিষ্যৎ জীবনের চূড়ান্ত সফলতা।
তাই আল্লামা মুফতী দিলাওয়ার হোসাইন সাহেব দা. বা. যথার্থই বলেছেন- “বর্তমান সুন্দর হলে, অতীত সুন্দর হবে, কারণ এই বর্তমানই অতীত হবে।”

সময়ের বাস্তবতা যদিও বিপুল গতিতে বয়ে চলা শ্রোতের মত, তবুও গতিময় এই সময় শ্রোতে শ্রেষ্ঠত্ব লাভ করার এবং নিজ লক্ষ্যে পোঁছার সুযোগ আল্লাহ আমাদেরকে দান করেছেন। সুতরাং সময়ের গুরুত্ব অনুধাবন ও যথাযথ মূল্যায়ন আমাদের জীবনে এন দিতে পারে সফলতার দৃশ্যপট।
কবির ভাষায় – “সময় সাগর তীরে পদাঙ্ক অঙ্কিত করে
আমরাও হবো হে অমর।”

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


Hit Counter provided by Skylight