মানবজীবনে মহানবী সা. এর সীরাতের গুরুত: ড. মোহাম্মদ আরিফুর রহমান

মহানবী হযরত মুহাম্মদ সা. হচ্ছেন সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ নবী ও রাসূল। আল্লাহ তায়ালা তাঁকে সর্বশেষ নবী হিসেবে মনোনীত করেছেন। তাঁর মহান আদর্শ ও পূতপবিত্র চরিত্রের জন্য তিনি মানবজাতির ইতিহাসে সম্পুর্ন পড়তে»

খ্রিস্টান ধর্মযাজকদের দৃষ্টিতে নবীজির সত্যতা: শামসুদ্দীন সাদী

পৃথিবীতে আগমনের পূর্বেই বিভিন্ন আসমানি কিতাবে নবীজির আগমনের সুসংবাদ ও আলামত লিপিবদ্ধ ছিল। সর্বপ্রথম যেই রমজানে নবীজির ওপর ওহি অবতীর্ণ হয়, জিবরাইলের প্রচ- চাপায় নবীজি জ্বরে আক্রান্ত হন। সম্পুর্ন পড়তে»

ঈদুল ফিতর উদযাপন : তাৎপর্য ও শিক্ষা / মাওলানা আহমদ মায়মূন

দুনিয়ার সকল সম্প্রদায়ের মধ্যে প্রাচীনকাল থেকে উৎসব দিবস পালনের রেওয়াজ চলে আসছে। লোকেরা উৎসবের দিন সাজগোজ করে বের হয় এবং আনন্দ-ফুর্তি করে। জীবনের কান্তি-অবসাদ দূর করে মন-মেজাজকে প্রফুল্ল সম্পুর্ন পড়তে»

সুখি দাম্পত্য জীবন গড়তে রাসূল সা. এর আদর্শ / ড. মুফতী আবদুল মুকীত আযহারী

বিবাহে সচ্ছলতা বিবাহ করা ও করানো মুসলমানের জন্য একটি কর্তব্য। আল্লাহ তাআলা বলেন, তোমাদের মধ্যে যারা অবিবাহিত (পুরুষ হোক বা নারী) তাদেরকে বিবাহ করিয়ে দাও এবং তোমাদের মধ্যে সম্পুর্ন পড়তে»

আল-কুরআনে সাহাবীদের যত জিজ্ঞাসা : হালাল বস্তুনিচয়-সংক্রান্ত জিজ্ঞাসা / মাওলানা মুজিবুর রহমান

[জুন সংখ্যার পর] পালক পুত্র বধু নিজ পুত্রবধূ হারাম। এ ব্যাপারে কারো কোন দ্বিমত নাই। তদ্রƒপ পালকপুত্রবধূ হালাল এ ব্যাপারে কোন দ্বিমত নাই। কারণ, আল্লাহ তাআলা পালকপুত্রকে নিজ সম্পুর্ন পড়তে»

বিয়েতে অবহেলিত কিছু আমল / মুফতী পিয়ার মাহমুদ

বিয়ের গুরুত্ব ও প্রয়োজনীয়তা অন্ন-বস্ত্র-বাসস্থান ও চিকিৎসা যেভাবে মানব জীবনের অপরিহার্য প্রয়োজন, শিা-দীার প্রয়োজনীয়তা যেভাবে যুক্তিতর্কের ঊর্ধ্বে, একজন যৌবনদীপ্ত মানুষের সুস্থ জীবন যাপনের জন্য বিয়ের অপরিহার্যতা তেমনই। তাই সম্পুর্ন পড়তে»

 

চলে যায় সময় বেলায় অবেলায়-: মুহাম্মদ আবু হানিফ

সময় কারো জন্য অপেক্ষা করে না। এবং অতিবাহিত হলে আর ফিরে আসে না। এভাবেই অতীত পর্দায় লুকিয়ে যায় মানুষের শৈশব ও কৈশোরের অবাধ চপলতা। অতীত কাহিনীতে পরিণত হয় যৌবনের উদ্দমতা। সময়ের গতিতে উপস্থিত হয় পৌঢ়ত্ব ও বার্ধক্যের গাম্ভীর্যতা। সময়ের সমীকরণ তখন বার্তা দেয় অনিবার্য মৃত্যুর। তখন মনে হয় চোখ খুললেই যেন ভেসে উঠল জীবন সমাপ্তির

পথশিশুর দরুন কুরআন-হাদীসের বাণী: জামিল আহমদ

“আমার খেতে ভাল লাগছে না, আমি এখন কিছু খাব না” বলে একটু চুপ রইল মেছবাহ। অনন্তর বলল, বর্তমান সময়টা আমার ভাল যাচ্ছে না, কিছু ভাল লাগছে না। আব্বু বাসায় না আসা পর্যন্ত আমি কিছুই মুখে দিব না। আম্মু হিসাবে মমতাজ বেগমের যতটুকু চেষ্টা করা দরকার তাতে তিনি  ত্রুটি করেন নি। আপু মারিয়াম এবং বড় ভাইয়া

জামাল ও তার কম্বল: রাহাত ইবনে মাহবুব

কাক ডাকা ভোর।  সূর্যি মামা সবে মাত্র কীরণ বিলাতে শুরু করেছে। ঘন কুয়াশার কারণে চারদিক বেশ ধোঁয়াটে। তাই সূর্যি মামার সদ্য ছড়ানো মিষ্টি রুদ্দুর অতটা সুবিধা করতে পারছে না। কমলাপুর রেলষ্টেশনের আবর্জনা ভরা প্লাটফর্মের এক কোণে ছেড়া একটা ছালার বস্তা গায়ে জড়িয়ে নিশ্চুপ বসে আছে জামাল। অসহনীয় ঠান্ডার তীব্রতায় থর থর করে কাঁপছে ওর পুরো

তাঁরাও যখন দীনের দাঈ! মীজানুর রহমান হানাফী

সুস্থ সুশীল জ্ঞানী সমাজের কাউকে যখন দেখি দীন-ধর্ম বিমুখ। ধর্ম বিদ্বেষী কর্মকান্ডে তৎপর। অবাক হই,আশ্চর্যের সীমা হারিয়ে যায়। তাদের বিচ্ছিন্নতায় ব্যথিত হই। কী সেই হেতু? যার জন্যে তারা দীন-ঈমানের মতো মহা দৌলত থেকে বঞ্চিত। অথচ যারা মনের ভাব প্রকাশ করতে জানে না; মুখে বলতে পারে না হৃদয়ে জমে থাকা আবেগ-অনুভূতি। তারাও এসেছেন বিশ^ ইজতেমার বিশাল

বড়, মেঝো, ও ছোট ভাই: দিলখোলাশা জাহিদ খান

আজরাঈল এসে পড়েছে তার জান কবজ করতে। সে তার বড় ভাইয়ের কাছে চলে গেল। বড় ভাইয়ের কাছে গিয়ে বললো ভাইয়া! আজরাঈল আমার জান কবজ করতে এসেছেন। আমি মরণের পর কী তুমি আমার সাথে ঐ অন্ধকার কবরে যাবে? বড় ভাই বললো, ঐ কবরে যাবো তো দূরের কথা তুই মারা গেলে তোর জানাযার নামাজটাও পড়তে যাবো না।

মুঠোফোনও হতে পারে মারণাস্ত্র: আবদুল হান্নান জুলফিকার

বর্তমান সমাজের চিত্রটি এমন হয়ে দাঁড়িয়েছে যে আমরা পরস্পরকে ভালোবাসার চেয়ে নিজের মুঠোফোন বা মোবাইল ফোনকেই বেশি ভালোবাসি। প্রতিদিন খাবার খেতে ভুলে গেলেও অথবা অফিসের গুরুত্বপূর্ণ কাগজ নিতে ভুলে গেলেও; মোবাইল ফোন সঙ্গে থাকবেই। মুঠোফোন ছাড়া জীবন কাল-কুঠরিতে ধুঁকে ধুঁকে বেঁচে থাকা কয়েদীদের জীবনের মতো। মুঠোফোন আমাদের জীবনের অবিচ্ছেদ্য একটি অংশ হয়ে দাঁড়িয়েছে। প্রযুক্তির কল্যাণে

স্বাস্থ্যসমাচার

স্বাস্থ্য হলো শারীরিক ও মানসিক সুস্থতা। জন্ম ও মৃত্যুর মাঝে মানুষকে তার চারপাশের সামাজিক ও প্রাকৃতিক পরিবেশের উপর নির্ভরশীল হয়ে থাকতে হয়। এই উভয় প্রকার পরিবেশ মানুষের শারীরিক ও মানসিক স্বাস্থ্যকে প্রভাবিত করে। স্বাস্থ্য সচেতনতা হলো কিছু অভ্যাসের আচরণ, যার দ্বারা আমরা শারীরিক ও মানসিকভাবে সুস্থ ও স্বাভাবিকভাবে জীবনযাপন করতে পারি। ‘স্বাস্থ্যই সম্পদ’ এটি একটি

সম্পাদকীয়…

ইসলামপূর্ব যুগকে মূর্খযুগ বলা হয়। মানবতার ইতিহাসের এক কলংকময় অধ্যায় এটি। সভ্যতা এ সময় পচে-গলে দুর্গন্ধময় হয়ে পড়েছিল। মানুষ ছিল মানুষের শিকার। একের দুঃখ-যাতনা, বিপদ-মৃত্যু অন্যজনের কাছে উপভোগ্য মনে হত, মনে হত এ যেন তাদের মানসিক খোরাক, চিত্তবিনোদনের রসালো পার্টি। সে যুগে মানব জীবনের ভাবনাটাই বদলে গিয়েছিল। মানুষ তখন প্রকৃত অর্থে মানুষ ছিল না। মানবতার

পবিত্র কুরআন-হাদীসের আলোকে ঘুষের ভয়াবহতা: মাওলানা আহমদ মায়মূন

আল্লাহ তাআলা পবিত্র কুরআনে বলেন, “আর তোমরা নিজেদের মধ্যে একে অন্যের অর্থ-সম্পদ অন্যায়ভাবে গ্রাস করো না এবং মানুষের ধন-সম্পত্তির কিছু অংশ জেনে শুনে অন্যায়রূপে গ্রাস করার উদ্দেশ্যে তা বিচারকগণের নিকট পেশ করো না”। [সূরা বাকারা: আয়াত ১৮৮] হাদীস শরীফে বলা হয়েছে, “রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম ঘুষদাতা ও ঘুষগ্রহীতার প্রতি অভিসম্পাত করেছেন”। [সুনানে আবু দাউদ, হাদীস

প্রিয়নবীর সা. ভালোবাসায় জাগুক জীবন: ড. মুহাম্মদ ঈসা শাহেদী

আনাস রা. হতে বর্ণিত, মদীনায়  মসজিদে নববীতে রাসূলে পাক সা. এর কাছে এক আগন্তুক এসে জিজ্ঞাসা করলেন, হে আল্লাহর রাসূল! কিয়ামত কবে হবে? (জামাতের সময় হয়েছিল, তাই লোকটির প্রতি একনজর দৃষ্টিপাত করে) নবীজি সা. নামাজে দাঁড়ালেন।  নামাজ শেষ হলে হযরত জানতে চাইলেন, কেয়ামত সম্পর্কে প্রশ্নকারী লোকটি কোথায়? লোকটি বলল, হে আল্লাহর রাসূল! এই তো আমি।

হযরত মুগিরাহ বিন হারিছ হাশেমী রা. : সংকলন: সৈয়দা সুফিয়া খাতুন

নবুয়াত প্রাপ্তির পূর্বে যেসব ব্যক্তি রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামের বন্ধুত্বের বন্ধনে আবদ্ধ হওয়ার সৌভাগ্য অর্জন করেছিলেন, মুগিরাহ বিন হারিছ রা. ছিলেন তাঁদের অন্যতম। ইতিহাসে তিনি আবু সুফিয়ান পদবীতে মশহুর হয়ে আছেন। তিনি হুজুর সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম এর চাচাতো এবং দুধ ভাইও ছিলেন। কেননা উভয়েই হযরত হালিমা সাদিয়া রা. এর দুধ পান করেছিলেন। হযরত আবু সুফিয়ান

টিভি, সিনেমা, নাটক দেখার নেতিবাচক প্রভাব: একটি সমীক্ষা: মুফতী পিয়ার মাহমুদ

যুগের পরিবর্তনের সাথে সাথে সব কিছুতেই লেগেছে পরিবর্তনের হাওয়া। সেই পরিবর্তনের হাওয়া লেগেছে বিনোদনের রঙ্গিন দুনিয়াতেও। সময়ের সাথে পাল্লা দিয়ে আবিষ্কার হয়েছে টিভি, ডিস, ইন্টারনেট, ইউটিউবসহ বিনোদনের নানা উপকরণ। নতুন উপকরেণর দুর্দান্ত দাপটে মুখ থুবড়ে পড়েছে বিনোদনের পুরনো উপকরণ রেডিও, থিয়েটার, মঞ্চনাটক ইত্যাদি। এখন রিমোট চাপলেই গোটা পৃথিবী চোখের সামনে হাজির। এক পলকেই পর্দায় ভেসে

মানবজীবনে মহানবী সা. এর সীরাতের গুরুত: ড. মোহাম্মদ আরিফুর রহমান

মহানবী হযরত মুহাম্মদ সা. হচ্ছেন সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ নবী ও রাসূল। আল্লাহ তায়ালা তাঁকে সর্বশেষ নবী হিসেবে মনোনীত করেছেন। তাঁর মহান আদর্শ ও পূতপবিত্র চরিত্রের জন্য তিনি মানবজাতির ইতিহাসে সর্বোত্তম ব্যক্তিত্ব। মানবজীবনে তাঁর সীরাতের গুরুত্ব ও প্রয়োজনীয়তা অপরিসীম। আইয়্যামে জাহিলিয়াতের ঘোর অন্ধকার যুগে আল্লাহ তায়ালা তাঁকে প্রেরণ করে বিশ্বমানবতার প্রতি বিরাট করুণা করেছেন। কারণ সে সময়কার

মসজিদের আঙ্গিনায় ফিরে আসুক মক্তব: মমিনুল ইসলাম মোল্লা

আল্লাহ পাক রাব্বুল আলামিন বলেছেন, “পড়ন আপনার প্রভুর নামে যিনি আপনাকে সৃষ্টি করেছেন। ” [সূরা আলাক: আয়াত ১] বাংলাদেশের প্রচলিত শিক্ষা ব্যবস্থায় মক্তব হলো প্রাথমিক স্তরের দ্বীনি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। অন্য কথায় মক্তব হলো মুসলমান ছেলে-মেয়েদের ইসলামের বুনিয়াদি শিক্ষার  প্রাথমিক বিদ্যালয়। এখানে নামাজ, রোজা, ও ইসলামের বেসিক নলেজ দেয়া হয়। হযরত ওসমান রা. থেকে বর্ণিত, রাসুলে

কেমন হবে আপনার সন্তান? ননির পুতুল নয়, হোক সোনার মানুষ: আতিকুর রহমান নগরী

সন্তান আল্লাহর পক্ষ থেকে মা-বাবার জন্য এক বিশেষ নেয়ামত। পৃথিবীর সব মা-বাবারা সন্তানকে ভালোবাসেন। হর হামেশা স্নেহের চাদর দিয়ে আবৃত করে রাখেন। সন্তানের উজ্জ্বল ভবিষ্যতের জন্য যার পর নাই কষ্ট করেন। সব গ্লানি হাসি মুখে বরণ করে থাকেন মা-বাবারা। সন্তানের আকাশসম চাওয়া-পাওয়া পূরণেও তারা হাড় ভাঙ্গা পরিশ্রম করতে দ্বিদ্বাবোধ করেন না। সবসময় মুখে হাসি দেখতে

সুদৃঢ় ঐক্যই মুসলিম উম্মাহর মুক্তির উপায়: এইচ. এম. মুশফিকুর রহমান

ঐক্যের গুরুত্ব অপরিসীম। ঐক্য শব্দের অর্থ হলো একতা। ইসলামের মৌলিক আহ্বান হচ্ছে, আল্লাহ ছাড়া কোন ইলাহ নেই এবং মুহাম্মাদ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম আল্লাহর রাসূল। এই তাওহিদী আহ্বানের মধ্যেই ঐক্যের বীজ নিহিত। ইসলামে শিরকের সুযোগ নেই এবং অনৈক্য ও বিভেদের অবকাশ নেই। কুরআন মজিদে বার বার ঐক্যের প্রতি আহ্বান জানানো হয়েছে, বিভেদের বিষাক্ত ছোবল থেকে বাঁচার

খ্রিস্টান ধর্মযাজকদের দৃষ্টিতে নবীজির সত্যতা: শামসুদ্দীন সাদী

পৃথিবীতে আগমনের পূর্বেই বিভিন্ন আসমানি কিতাবে নবীজির আগমনের সুসংবাদ ও আলামত লিপিবদ্ধ ছিল। সর্বপ্রথম যেই রমজানে নবীজির ওপর ওহি অবতীর্ণ হয়, জিবরাইলের প্রচ- চাপায় নবীজি জ্বরে আক্রান্ত হন। শরীরে কম্পন আরম্ভ হয়। কোনো মতে বাড়িতে এসে হযরত খাদিজাকে বললেন, আমাকে কম্বল দিয়ে জড়িয়ে দাও। হযরত খাদিজা নবীজিকে কম্বলে জড়িয়ে দিলেন। কিছুটা স্বাভাবিক হওয়ার পরে নবীজি

পিতামাতাকে রাযী-খুশী রাখার কতিপয় নীতিমালা: আবদুল মালেক মুজাহিদ

পিতামাতাকে রাযী ও খুশী রাখতে হলে তাঁদের আত্মীয়-স্বজন ও বন্ধু-বান্ধবদের সাথে সদ্ব্যবহার করতে হবে। রক্তের সম্পর্ক এরই নাম যে, সম্মানিত মাতা বা শ্রদ্ধেয় পিতার আত্মীয়-স্বজন ও বন্ধুদের সাথে সাক্ষাত করতে হবে, তাঁদের প্রতি সম্মান প্রদর্শন করতে হবে এবং তাঁদেরকে প্রেমপূর্ণ ও সুন্দর উপাধি দ্বারা সম্বোধন করতে হবে। যেমন, বলতে হবে চাচাজান, খালুজান, মামুজান ইত্যাদি। আমাদের

দেশ-বিদেশের খবর

সূ চির সম্মান প্রত্যাহার করলো অক্সফোর্ড আন্তর্জাতিক ডেস্ক: রোহিঙ্গ মুসলমানের ওপর নির্যাতনের ঘটনায় মিয়ানমারের নেত্রি অং সান সূ চিকে দেয়া সম্মান প্রত্যাহার করে নিয়েছে ব্রিটেনের অক্সফোর্ড নগর কাউন্সিল। নগর কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, মিয়ানমার রোহিঙ্গা মুসলিমদের প্রতি সূ চি যে আচরণ করছে, তাতে সূ চি আর “ফ্রিডম অব দ্য সিটি” নামে ওই পুরস্কারের যোগ্য নন। গত অক্টোবরে

ও নবীজী: সৈয়দা সুফিয়া খাতুন

যে দিন তুমি এসেছিলে এই ভূবনে, সেই দিন কাননে কুসুমকলি ফুটে ছিল সবই, কৃষ্ণচূড়ার ডালে ডালে, পাখিরা গেয়েছিল সুরে সুরে তোমারি নামে। মৌমাছিরা গুঞ্জন করেছিল ফুলের বনে প্রজাপতিরা নেচে ছিল গোলাপ বাগে, বনের ময়ূর পেখম তুলে নেচে ছিল খুশির তালে বনের হরিণ ছোটে চলেছিল আনমনে পাহাড়ের ঝর্ণা ছুটে চলেছে অবিরত। চাঁদ-সূর্য, গ্রহ-তাঁরা, গাছ-গাছালি, পাহাড় নদী

রাসূল এলেন বলে: লাবিব শাহেল

রাসূল এলেন এই ধরাতে ছড়িয়ে  দিতে আলো রাসূল আসার সাথে সাথে দূর হলো সব কালো। পড়লো ধ্বসে কিসরা প্রাসাদ মোদের নবী আসায় হাসলো সকল সৃষ্টিরাজি নবীর ভালোবাসায়। শান্তি খুঁজে মানুষগুলো আসলো দলে দলে রাসূল এলেন বলে রাসূল এলেন বলে।


Hit Counter provided by Skylight